সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০৪:৩৫ পূর্বাহ্ন

আহত পূর্ণিমা-ফেরদৌস ঢাকায়

‘গাঙচিল’ সিনেমার শুটিংয়ে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত চিত্রনায়ক ফেরদৌস ও চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা ঢাকায় ফিরেছেন।

মঙ্গলবার সকালে তারা নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ থেকে ঢাকায় ফিরেন।

গুরুতর আহত না হলেও শরীরের বিভিন্ন জায়গা থেতলে গেছে দুজনের।সোমবার পর্যন্ত তারা বিছানা থেকেই উঠতে পারছিলেন না।এজন্য শুটিং বন্ধ রাখা হয়েছিল।

রোববারের মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় পূর্ণিমার কাঁধে প্রচন্ড ব্যথা পেয়েছেন। আর নায়ক ফেরদৌস বাঁ পায়ের হাঁটুতে চোট পেয়েছে।থেতলে গেছে তাদের শরীরের বিভিন্ন জায়গা।

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ছবির প্রধান দুই অভিনয়শিল্পী ফেরদৌস ও পূর্ণিমার আহত হওয়ার ঘটনায় সাময়িকভাবে শুটিং বন্ধ করে দেন পরিচালক।

ভাবছিলেন, সাময়িক বিশ্রাম শেষে আবার শুটিং শুরু করবেন। কিন্তু চিকিৎসকের কড়া নির্দেশ, বেশ কিছুদিন বিশ্রামে থাকতে হবে ফেরদৌস ও পূর্ণিমাকে। শিল্পীদের সুস্থতার কথা ভেবে তাই শুটিং বন্ধ করে দেন পরিচালক নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল।

রোববার সকালে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরমণ্ডলে শুটিংস্থলে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার শিকার হন পূর্ণিমা ও ফেরদৌস।সেখানে ওবায়দুল কাদেরে লেখা ‘গাঙচিল’ সিনেমার শুটিং করছিলেন এই দুই নায়ক-নায়িকা। পরে দুপুরে ফেরদৌস ও পূর্ণিমাকে সেখানকার বসুরহাট সেন্ট্রাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

দুর্ঘটনার বর্ণনা দিয়ে সিনেমার পরিচালক নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল জানান, মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন পূর্ণিমা আর তার পেছনে বসেছিলেন ফেরদৌস। হঠাৎ রাস্তায় স্লিপ কেটে তাদের মোটরসাইকেলটি উল্টে গেলে ফেরদৌস ও পূর্ণিমা ছিটকে রাস্তার পাশে পড়ে যান। এতে দুজন ব্যথা পান। দুজনেরই শরীরের কিছু স্থানে কেটে গেছে।

বসুরহাট সেন্ট্রাল হাসপাতালে চিকিৎসক ডা. আ ক ম আব্দুল হক যুগান্তরকে বলেন, ফেরদৌস ও পূর্ণিমা এখানে এসেছিলেন। তারা দুজনই ব্যথা পেয়েছেন। কিছু জায়গায় কেটে গেছে। তবে তাদের শরীরের কোনো জায়গায় ফ্রেকচার হয়নি। তবুও এক্স-রে করানো হয়েছে। এক্সরে করানোর পর দেখা গেছে, তাদের কোনো মারাত্মক ফ্রেকচার হয়নি। তবে দুজনেরই চামড়া থেঁতলে গেছে। সেখান থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাদেরকে হোটেলে নেয়া হয়।

উল্লেখ্য, ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের চরমণ্ডল ও চর এলাহিতে ‘গাঙচিল’ সিনেমাটির শুটিং করছেন ফেরদৌস ও পূর্ণিমা।

নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল পরিচালিত এ সিনেমায় নায়ক ফেরদৌস সাংবাদিক চরিত্রে ও নায়িকা পূর্ণিমা একজন এনজিও কর্মীর চরিত্রে অভিনয় করছেন। অতিথি শিল্পি হিসেবে রয়েছেন কলকাতার অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। ছবিটির চিত্রনাট্য লিখেছেন, মারুফ রেহমান ও প্রিয় চট্টোপাধ্যায়।


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৫:১২
    সূর্যোদয়ভোর ০৬:৩০
    যোহরদুপুর ১২:১২
    আছরবিকাল ১৬:১৮
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৭:৫৫
    এশা রাত ১৯:২৫
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!