সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ০৩:০৯ পূর্বাহ্ন

কবি ওমর আলী সারাজীবন বেঁচে থাকবেন তার লেখনির মাধ্যমে- কবির জন্মদিনে বক্তারা

 

বার্তা সংস্থা পিপ, পাবনা : কবি ওমর আলী সারাজীবন বেঁচে থাকবেন তার লেখনির মাধ্যমে। জীবীত কবি ওমর আলীর চেয়ে মৃত কবি ওমর আলী অনেক শক্তিশালী।

এ দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ে এখনও কবি ওমর আলীর উপর পড়াশুনা করানো হচ্ছে। এমন একদিন আসবে যখন কবি ওমর আলী সকল পাঠ্য বাইয়ে অর্ন্তভুক্ত হবে।

গতকাল শনিবার (২০ অক্টোবর) রাতে পাবনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এদেশে শ্যামল রঙ রমণীর সুনাম শুনেছি খ্যাত একুশে পদকপ্রাপ্ত এবং বাংলা একাডেমী পুরস্কারপ্রাপ্ত কবি ওমর আলীর ৭৯তম জন্মদিন উপলক্ষে পাবনার ফোল্ডার কবিতা সম্পাদক কবি ইদ্রিস আলীর আয়োজনে ‘কবি ওমর আলী স্বর্ণপদক প্রদান গুণিজন সংবর্ধনা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে’ বক্তারা এ সব কথা বলেন।

ফোল্ডার কবিতা সম্পাদক কবি ইদ্রিস আলীর সভাপতিত্বে এবং কবি জেবুন্নেচ্ছা ববিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠান প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, পাবনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. শাহেদ পারভেজ।

সম্মানীয় অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখে, পাবনা প্রেসক্লাব সভাপতি প্রফেসর শিবজিত নাগ, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ লেখক গবেষক অধ্যাপক মনোয়ার হোসেন জাহেদী, সাউথ ইষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের শিক্ষক ড. রকিবুল হাসান, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষক ড. বাকিবিল্লাহ বিকুল, মাসিক মোহনা পত্রিকার সম্পাদক কবি ইসরাফিল হোসেন,

সমকাল এবং এনটিভির স্টাফ রির্পোটার এবিএম ফজলুর রহমান, মাছরাঙা টেলিভিশনের উত্তারাঞ্চলীয় বুরো প্রধান উৎপল মির্জা, দৈনিক সিনসা সম্পাদক এস এস মাহবুব আলম, পাবনা রির্পোটাস ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী মাহবুব মোর্শেদ বাবলা, দৈনিক ইছামতির প্রধান প্রতিবেদক ও যমুনা টেলিভিশনের পাবনা প্রতিনিধি কবি ছিফাত রহমান সনম, অধ্যক্ষ এনামুল হক টগরসহ বরেণ্যে ব্যক্তিবর্গ।

২০১৫ সালের ৩ ডিসেম্বর পাবনা সদর উপজেলার পদ্মা নদী তীরবর্তি প্রত্যন্ত কোমরপুর গ্রামে নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল করেন কবি ওমর আলী।

নির্লোভ র্নিমহ সাধাসিধে কবি ওমর আলী পাবনা সরকারী শহীদ বুলবুল কলেজের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ছিলেন।

বাংলা ও ইংরেজিতে ডবল এম এ কৃতি এই শিক্ষাবিদ ও কবি ১৯৩৯ সালের ২০ অক্টোবর জন্মগ্রহন করেন পাবনা শহরের দক্ষিনের দুর্গম চরশিবরামপুর গ্রামে।

কবিতায় বিশেষ অবদানের জন্য তিনি ১৯৮১ সালে বাংলা একাডেমী পুরস্কার পান। ২০১৬ সালে মৃত্যুর পর তিনি একুশে পদকে ভুষিত হন।
১৯৭০ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে এম এ এবং ১৯৭৫ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা সাহিত্যে এম এ পাশ করেন।

তার ৪৩টি কাব্যগ্রন্থ ও ২টি উপন্যাস রয়েছে। এদেশে ‘শ্যামল রঙ রমণীর সুনাম শুনেছি, কুতুবপুরের হাসনাহেনা, খান ম্যানসনের মেয়ে প্রভৃতি তার উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ।

পঞ্চাশ দশকের অন্যতম প্রধান কবি ও বাংলা একাডেমীর পুরস্কার প্রাপ্ত প্রফেসর ওমর আলী পাবনা সদর উপজেলার পদ্মানদী তীরবর্তি নিভৃত পল্লী চরআশুতোষপুর গ্রামের নিজ বাড়ীতে দীর্ঘদিন গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ছিলেন।

২০১২ সালের ২৩ মার্চ তিনি স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে গুরুতর অসুস্থ হন আর তখন থেকেই তিনি বাড়ীতে বিছানায় শয্যাশায়ী ছিলেন।

 

 


© All rights reserved 2018 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!