রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০২:০৮ পূর্বাহ্ন

ক্রিকেট, নির্বাচন ও রাজনীতিতে আসা নিয়ে যা বললেন মাশরাফি

জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা এখন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নড়াইল-২ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী।

সে কারণে এখনই খেলা ছেড়ে দিচ্ছেন কি না সে প্রশ্নের স্পষ্ট জবাব মাশরাফি দিলেও ভক্ত ও ক্রিড়ামোদীদের মনে সেই শংকায় জেগে উঠেছে।

যদিও ইতিমধ্যে মাশরাফি বলেছেন, আগামী বিশ্বকাপের আগে ২২ গজ ছাড়ছেন না। জানিয়েছেন, আগামী ৯ তারিখ থেকে শুরু হতে যাওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজেও অধিনায়কত্ব করছেন তিনি।

এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ শুরুর তিনদিন আগেই মাশরাফি মুখোমুখি হলেন সাংবাদিকদের।

নিজের রাজনীতিতে আসা, নির্বাচন এবং আগামী দিনে নিজেকে কীভাবে ক্রিকেটের সঙ্গে জড়িয়ে রাখবেন সে বিষয়ে সাংবাদিকদের করা প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন নড়াইল এক্সপ্রেস।

প্রশ্নের শুরুতেই মাশরাফি জানান, রাজনীতিতে এখনও পুরোপুরি জড়িত নন তিনি। ১৪ তারিখে সিরিজ শেষ হলেই রাজনীতির মাঠে মনোযোগী হবেন।

এর আগ পর্যন্ত লাল-সবুজ জার্সিতেই সব মনযোগ দিয়ে রাখতে চান এই টাইগার লিডার।

খেলার মাঠ ছেড়ে রাজনীতিতে কেন আসা হলো এই প্রশ্নে মাশরাফি জানান, বিশ্বকাপ শেষে ক্রিকেটকে বিদায় জানাতে পারেন। সেই সময়গুলোতে মানুষের সেবা করার একটা সুযোগ পাবেন তিনি।

আর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নড়াইলবাসীদের জন্য কাজ করার সেই সুযোগ করে দিয়েছেন তাকে।

সেটাকেই কাজে লাগাতে এই নির্বাচনে আসা বলে জানালেন তিনি।

হতে পারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আগামী সিরিজটা মাশরাফির দেশের মাটিতে শেষ সিরিজ।

বিষয়টি কীভাবে দেখছেন তিনি প্রশ্নে মাশরাফি জানান, নির্বাচনে আসার আগেও প্রত্যেকটা সিরিজ আমার কাছে যেমন ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এই ওয়ানডে সিরিজও সেরকমই।

এবং অবশ্যই সিরিজটা জিততে চান বলে জানান মাশরাফি।

মাশরাফিকে প্রশ্ন করা হয়েছিল আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্যসব রাজনৈতিক দলগুলোর আপনার প্রতি যে মন্তব্য করেছে সেগুলো শুনে আপনার মনোকষ্ট হয়?

জবাবে মাশরাফি বলেন, যারা মন্তব্য করছে বা করবে, তারা তো আর আমার নিয়ন্ত্রণে নেই বা তাদের তো আমি কিছু বলতে পারবো না। তবে আমার শ্রদ্ধা অবশ্যই তাদের ওপর আছে।

আমি মনে করি প্রত্যেকের এই মানসিকতা থাকা উচিত যে, যে যার দল করে সে তার মতো করে দেশের জন্য কাজ করবে।

নড়াইল এক্সপ্রেস হিসেবে মাশরাফির কোনো হেটার্স নেই এ কথা একবাক্যে স্বীকার্য।

কিন্তু রাজনীতিবিদ মাশরাফি হিসেবে এলাকার মানুষের কেমন সমর্থন পাচ্ছেন? এমন প্রশ্নে মাশরাফি হেসে জানান, আলহামদুলিল্লাহ ভালো সাপোর্ট পাচ্ছি। যতটুকু কথা হয়েছে, বলেছি, সবাই সাপোর্ট করছে।


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৫:১২
    সূর্যোদয়ভোর ০৬:৩০
    যোহরদুপুর ১২:১২
    আছরবিকাল ১৬:১৮
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৭:৫৫
    এশা রাত ১৯:২৫
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!