বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ০৯:১২ পূর্বাহ্ন

জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে সাদা মনের কালা দা

রনি ইমরান : ব্রজ গোপাল সাহা ওরফে কালা দা। পাবনা বাসীর চিরচেনা প্রিয় সাদা মনের মানুষ।
এ্যাথলেটিক্সে অলিম্পিকের মশাল হাতে নিয়ে পাবনাবাসীর মুখ উজ্জল করেছিলেন ক্রীড়াঙ্গণের তারকা এই কালাদা।

যিনি মানুষকে দু’হাত ভরে শুধু দিয়েছেন, দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিদেশেও তার অসংখ্য শিষ্য।
কালা দার হাতে গড়া আলোকিত মানুষ আজ অনেক জায়গায় প্রতিষ্ঠিত আর এদিকে সাদা মনের কালা দার পাশে কেউ নেই আজ!

জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে পাবনা জেনারেল হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে আছেন কালা দা।

জানা যায়, গত রোববার দূর্ঘটনায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে পাবনা সদর হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি।

কোন এক অটো চালক তাকে হাসপাতালে রেখে চলে যায়।

গতকালকে ভর্তি হওয়ার পর কালা দাকে হাসপাতালের চিকিৎসকরা বারান্দা থেকে রেফার্ড করে পেইং বেডে রেখেছেন। যথাসাধ্য সেবা প্রদান করছেন, তারাই এখন কালাদার নিকট আত্মীয়।

এছাড়া কালাদাকে দেখার আর কেউ নেই।

হাসপাতালের ইন্টার্নি চিকিৎসক মাহফুজ নয়ন জানান, এ মানুষটাকে আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি। হাসপাতালে আসার পর থেকেই আমরা তার যথাযথ সেবা প্রদান করে যাচ্ছি।

কালা দা মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ার কারণে কাউকে তেমন চিনতে পারছেন না। তার মাথায় আঘাতটা নির্ণয়ের জন্য দ্রুত তাকে সিটি স্ক্যান করাতে হবে।

এছাড়া তার ঔষুধ ও চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করার মত তো কেউ এগিয়ে আসেনি। হাসপাতালে কেউ খোজখবরও নিতে আসেনি।

সাদা মনের কালা দা একসময় পাবনা মানসিক হাসপাতালে চাকরি করতেন। মানসিক হাসপাতাল থেকে একজন স্টাফ সর্বক্ষণ তার খোঁজখবর রাখছেন।

ভাল কাজের জন্য তাকে ‘সাদা মনের মানুষ’ ঘোষনা করেছিলো বাংলাদেশের প্রথম শেণির দৈনিক প্রথম আলো।

কালা দার পরিবার অনেক আগেই ভারতে পাড়ি জমিয়েছেন কিন্তু কালা দা যাননি, তিনি বলেছেন এই শহর আমার শহর। আমার ঠিকানা এই চির চেনা শহর ছেড়ে আমি কোথাও যাব না।

কালা দার এমন অবস্থায় তার পাশে থাকা ও সহযোগতাটাই তার জন্য এখন খুবই জরুরী হয়ে পড়েছে।

 


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৩:৫৪
    সূর্যোদয়ভোর ০৫:২২
    যোহরদুপুর ১২:০৫
    আছরবিকাল ১৬:৪৪
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৮:৪৭
    এশা রাত ২০:১৭
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!