শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯, ০১:৪৫ অপরাহ্ন

পর্নোগ্রাফি নেশায় কী আসক্ত হয়ে যাচ্ছে সন্তান?

প্রযুক্তি আমাদের জন্য সুফল ও কুফল দুইট দিকই রয়েছে। এখন প্রশ্ন হলো আপনি কোনটা নেবেন।সাবধান আপনার সন্তান যেন কোনোভাইবেই প্রযুক্তির অপব্যবহার না করে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

এমনিতেই বয়ঃসন্ধিতে পৌঁছনোর পর শারীরিক নানা পরিবর্তনের সঙ্গে মানসিক পরিবর্তনের শিকার হয় কিশোর-কিশোরীরা। আর তখনই পর্নোগ্রাফির নেশার শিকার হতেই পারে তারা, কখনও নিছকই কৌতূহলের বশে আবার কখনও অজান্তেই।

আসুন জেনে নেই পর্নোগ্রাফির নেশা থেকে সন্তানকে দূরে রাখকেন যেভাবে-

বন্ধুত্বের কৌশলেই সন্তানের মোবাইল ও ল্যাপটপে নজর রাখুন

বরাবরই তার সঙ্গে বন্ধুত্বের সম্পর্ক রাখুন, অভিভাবকদের মধ্যে অন্তত কেউ একজন এতটাই সহজ হয়ে মিশুন, যাতে বাইরে থেকে কিছু শুনে এলে বা বন্ধুদের থেকে কিছু জানলে তা সে জানাতে পারে আপনাদের।

পর্নোগ্রাফি কী, এই নেশা কেন ক্ষতি করতে পারে, কেনই বা পর্নোগ্রাফিতে শিশুদের অংশ নেওয়া সারা বিশ্বে নিষিদ্ধ— এসব কথা বয়ঃসন্ধিতে পৌঁছনোর পর থেকেই গল্পের ছলে তাকে বোঝানোর চেষ্টা করুন।

সন্তানের বন্ধু হয়ে উঠুন

মোবাইল বা ল্যাপটপ ব্যবহারের সময়ও যাতে খুব একটা গোপনীয়তা তারা অবলম্বন করতে না পারে, সে দিকে খেয়াল রাখুন।নজরদারি চালান, তবে তাকে অবিশ্বাস করছেন তা বুঝতে দেবেন না। বরং তার পাশের সঙ্গী, বন্ধু ও মেলামেশার পরিসরের সকলকেই কমবেশি চিনে রাখুন।

সন্তানের মুখে খারাপ শব্দ

সন্তানের মুখে হঠাৎই কোনও খারাপ শব্দ শুনলে তা লে কোথা থেকে শিখলো তা জানতে চান, শাসন নয়, বন্ধুত্বই এই কৌশলের অন্যতম চাবিকাঠি।

পর্ন ছবি বা ভিডিও

নিজেরাও সন্তানের সামনে পর্ন ছবি বা ভিডিও নিয়ে আগ্রহ দেখানো বা আলোচনার বিষয় থেকে দূরে থাকুন।

মনোরোগ বিশেষজ্ঞ

কোনোভাবে সন্তান এ নেশার কবলে পড়েছে বুঝতে পারলে আর দেরি করবেন না। দ্রুত মনোরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


© All rights reserved 2018 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!