রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:২৭ অপরাহ্ন

পহেলা বৈশাখ সামনে রেখে পাবনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন মৃৎশিল্পীরা

নিজস্ব প্রতিনিধি : মানুষ একসময় জীবনের প্রয়োজনের তাগিদে আঁকড়ে ধরেছিল মাটিকে। সংসারের নিত্যপ্রয়োজনীয় চাহিদা মেটাতে মাটির ভূমিকা ছিল অপরিসীম।

সেই মাটিকে কাজে লাগিয়ে বাংলা নববর্ষকে ঘিরে নির্ঘুম ব্যস্ত সময় পার করছেন পাবনার মৃৎশিল্পীরা। পহেলা বৈশাখ বাঙালির নববর্ষ। এ নববর্ষে উপজেলার বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানে বসে বর্ষবরণ মেলা।

সেই মেলায় চাহিদা থাকে নানা রকমের খেলনা, মাটির জিনিসপত্রের।

মেলাকে দৃষ্টিনন্দন করতে মৃৎশিল্পীরা নিজের হাতে নিপুণ কারুকাজে মাটি দিয়ে তৈরি করেন শিশুদের জন্য রকমারি পুতুল, ফুলদানি, রকমারি ফল, হাঁড়ি, কড়াই, ব্যাংক, বাসন, থালা, বাটি, হাতি, ঘোড়া, বাঘ, টিয়া, ময়না, ময়ূর, মোরগ, খরগোশ, হাঁস, কলস, ঘটি, মুড়িভাজার ঝাঞ্জুর, চুলা, ফুলের টবসহ মাটির বিভিন্ন তৈজসপত্র।

পাবনা পৌর এলাকার পালপাড়ার মৃৎশিল্পীরা বিভিন্ন উৎসবসহ মাটির জিনিসপত্র তৈরি করে জীবিকা নির্বাহ করে।

বাংলা বর্ষবরণে জেলার বিভিন্ন স্থানের মেলায় মাটির অধিকাংশ সামগ্রী সরবরাহ করে থাকেন এ মৃৎশিল্পীরা। তাই এখানে পুরুষ মৃৎশিল্পীরা পাশাপাশি নারীরাও সমানতালে কাজ করে যাচ্ছেন।

বৈশাখী মেলা উপলক্ষে নারী শিল্পীরা নিজের হাতে নিপুণ কারুকাজে মাটি দিয়ে তৈরি করছেন শিশুদের নানা খেলনা।

পালপাড়ার উপেন্দ্র চন্দ্র পাল বলেন, পৈতৃক পেশা এই মাটির কাজ আমরা ধরে রেখেছি। পণ্যের রঙ ও নকশার কাজ নিজেরাই করে থাকি।

বাঙালির ঐতিহ্যবাহী মৃৎশিল্পের একসময় বিপুল কদর থাকলেও বছরের অন্যান্য দিনে তারা বেশ দুরবস্থায় থাকেন।

শুধু মেলা এলেই কেবল কর্মমুখর হয়ে ওঠে চিরচেনা ঐতিহ্যময় প্রাচীন এই মৃৎশিল্পসমৃদ্ধ পালপাড়া।


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৪:২৯
    সূর্যোদয়ভোর ০৫:৪৭
    যোহরদুপুর ১১:৫১
    আছরবিকাল ১৬:১৪
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৭:৫৫
    এশা রাত ১৯:২৫
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!