সোমবার, ২০ মে ২০১৯, ০৫:০৩ অপরাহ্ন

পাবনার ঐতিহ্যবাহী হার্ডিঞ্জ ব্রিজ উদ্বোধনের ১০৩ বছর আজ

ফাইল- ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক : পাবনার পাকশী পদ্মা নদীর ওপর স্থাপিত মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবহনকারী ঐতিহ্যবাহী হার্ডিঞ্জ ব্রিজ চালুর ১০৩ বছর পূর্তি আজ রোববার।

১৯১৫ খ্রিস্টাব্দের ৪ মার্চ আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রীবাহী রেল চালুর মাধ্যমে এ সেতু উদ্বোধন করা হয়।

শৈল্পিক কারুকাজের দৃষ্টিনন্দন হার্ডিঞ্জ ব্রিজ বাংলাদেশের গৌরব আর অহঙ্কারের প্রতীক। বৃটিশ স্থাপত্যশৈলীর অনন্য নিদর্শন ও এশিয়ার অন্যতম এই রেলওয়ে সেতুর ১০৩ বছর পূর্তিতে আনন্দিত পাবনাবাসী।

ঈশ্বরদী থেকে ৫ মাইল দক্ষিণে এবং সাঁড়াঘাট স্টেশন থেকে ৩-৪ মাইল পূর্ব-দক্ষিণে পাকশী নামক স্থানে তৎকালীন পাবনা ও নদীয়া জেলার মধ্যে বিস্তৃত পদ্মা নদীর ওপর নির্মিত এই প্রসিদ্ধ রেলসেতুটি পুরোনো কাগজপত্রে ‘লোয়ার গ্যাঞ্জেস ব্রিজ, সাঁড়া’ নামেই পরিচিত হলেও পরে তা হার্ডিঞ্জ রেলসেতু হিসেবেই ব্যাপক খ্যাতি অর্জন করে।

১৯১০ খ্রিষ্টাব্দে ২৪ হাজার লোকবল দিয়ে পদ্মা নদীর উপর রেলসেতুর নির্মাণকাজ শুরু করা হয়।
আর ৪ কোটি ৭৫ লক্ষ ৫০ হাজার ভারতীয় রুপী ব্যয়ে সেতুর নির্মাণ শেষ হয় ১৯১৫ খ্রিষ্টাব্দে।

১ দশমিক ৮১ কিলোমিটার দৈর্ঘর রেলসেতুটির অর্ধেক অংশ পাবনার পাকশী অংশে এবং বাকি অংশ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা অংশের মধ্যে অবস্থিত।

১৯১৫ খ্রিস্টাব্দের ৪ মার্চ আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রীবাহী রেল চালুর মাধ্যমে এ সেতু উদ্বোধন করেন তৎকালীন ভারতের গভর্নর জেনারেল ভাইসরয় লর্ড চার্লস হার্ডিঞ্জ।

তার নামেই এ সেতুর নামকরণ করা হয় হার্ডিঞ্জ ব্রিজ। সেতুটি নির্মাণের প্রধান প্রকৌশলী ছিলেন বৃটিশ প্রকৌশলী মি. রবার্ট গেইল্স।

এই রেলব্রিজের ভারবহন ক্ষমতা ১ হাজার ৯২৭ টন।

সেতুটি খুলনা থেকে পার্বতীপুর পর্যন্ত ব্রডগেজ রেলপথকে সংযুক্ত করেছে। শৈল্পিক কারুকার্য খচিত ঐতিহ্যময় হার্ডিঞ্জ ব্রিজ ১০৩ বছর ধরে আকৃষ্ট ও মুগ্ধ করে চলেছে পর্যটকদের মন।
একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় সেতুটির ১২ নম্বর স্প্যানটি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হলে ১১ মাস ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল।

১৯৭২ খ্রিস্টাব্দের অক্টোবরে সংস্কারের মাধ্যমে তা পুনরায় চালু করা হয়।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৩:৪৮
    সূর্যোদয়ভোর ০৫:১৪
    যোহরদুপুর ১১:৫৫
    আছরবিকাল ১৬:৩৪
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৮:৩৬
    এশা রাত ২০:০৬

পাবনা এলাকার সেহেরি ও ইফতারের সময়সূচি

© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!