শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৮, ০৩:৪১ অপরাহ্ন

পাবনায় অদৃশ্য সাপের ভিত্তিহীন খবরে হাতে বাঁধছে লাল সুতা!

 

স্টাফ রিপোর্টার : একটি ‘অদৃশ্য সাপ’কামড় দিয়ে চলে যাচ্ছে তখন কিছু বোঝা যাচ্ছেনা। কিছুক্ষণ পরে শরীরে জ্বালা-পোড়া শুরু হচ্ছে তারও পরে শরীরে ছোবলের দাগ ও রক্ত দেখা যাচ্ছে এমন একটা কথা ছড়িয়ে পড়েছে পাবনা ও নাটোর জেলায়।

এতে আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে এই দুই জেলার মানুষ।

তবে এখন পর্যন্ত কেউ সাপ বা পোকা দেখতে পায়নি বলে খবরে প্রকাশ।

প্রায় শতাধিকের বেশি মানুষ এই অদৃশ্য সাপের ছোবলের শিকার হয়েছে বলে জানা গেলেও এমন একজন মানুষকেও খুঁজে পাওয়া যায়নি যিনি এমন ছোবলের শিকার হয়েছেন।

তবে গত দুদিন ধরে এ খবর চাওর হলে গোটা পাবনা ও নাটোরে সাপের ছোবল থেকে রক্ষা পেতে প্রায় ছেলে মেয়ে শিশুরা হাতে বাঁধছে লাল সুতা।

কেউ কেউ কোরআন শরীফের বিভিন্ন আয়াত লিখে তাবিজ বানিয়ে ব্যবহার করছে।

তবে দাশুরিয়ার আনন্দবাজার এলাকার বকুল সরকারের দাবী, তার পরিবারে দুই সদস্য অসুস্থ হয়ে পড়লে পড়ে ওঝা নিয়ে এসে বিষ তোলার পর এখন তারা সুস্থ।

এ ব্যাপারে উপ সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার হাসান উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এইটা ভিত্তিহীন একটি খবর। বাস্তবে এরকম অদৃশ্য কোনো সাপ নেই। তাই ভয় পাওয়ার কিছুই নেই।

এ ধরনের ঘটনা মাস হিস্টিরিয়া হতে পারে। মানে ভয় বা আতঙ্ক অতি দ্রুত একজন থেকে আরেকজনে ছড়িয়ে পড়ছে। আমরা সরেজমিন গিয়ে দেখেছি, এ ঘটনায় কেউ মারা যায়নি।

তিনি আরও বলেন, বাস্তবে খোঁজ নিয়ে দেখেন কাউকে সাপে কাটেনি- সাপে কাটার কোনো দাগও নাই।

অনেক সময় দেখা যায় কোনো স্কুল বা কলেজে কোনো কারণ ছাড়াই একসঙ্গে অনেক স্টুডেন্ট জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।

আসলে কোনো রোগের কারণে তাদের এমন হয় না। ভয় বা আতঙ্ক দ্রুত একজন স্টুডেন্ট থেকে আরেকজনে ছড়িয়ে পড়ে, ফলে তাদের একই রকম শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন লক্ষণ দেখা যায়। এটাই মাস হিস্টিরিয়া।

কয়েকবছর আগে বর্ষার সময় এমন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছিল। পরবর্তীতে দেখা গেলো সাপ নয়। ঢোলকমলি ফুলের ভেতর এক ধরনের পোকা থাকে সেই পোকার কামড় এবং তা থেকে আতঙ্কের কারণে এমন হয়েছিল।

তখন পাবনাসহ আশপাশের জেলাগুলোতে ঢোলকমলি কাটা শুরু হয়েছিল। এটা আতঙ্ক ছাড়া আর কিছু নয় বলে জানান উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার।

 

 


© All rights reserved 2018 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!