শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৮, ০৩:১৫ অপরাহ্ন

পাবনায় তাফসির মাহফিলে আমির হামজাকে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা

ছবি- সংগৃহীত

 

চাটমোহর প্রতিনিধি : প্রধান বক্তা আমির হামজা হওয়ায় তাকে বাদ দিয়ে পাবনার চাটমোহরে পূর্ব নির্ধারিত তাফসিরুল কোরআন মাহফিল সম্পন্ন করার নির্দেশ দিয়েছে চাটমোহর থানা পুলিশ।

তবে আয়োজক কমিটি আকস্মিক মাহফিলটিই বন্ধ করে দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

আজ শনিবার (০৬ অক্টোবর) উপজেলার হেংলী ও মূলগ্রাম চাঁদের বাজার এলাকার চাঁদের বাজার জামে মসজিদের উন্নতি কল্পে পূর্ব নির্ধারিত তাফসিরুল কোরআন মাহফিলটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

গত বৃহস্পতিবার (০৪ অক্টোবর) রাতে চাটমোহর থানা থেকে উক্ত জালসা কমিটির সদস্যদের ডেকে নিয়ে লিখিতভাবে মাহফিলের প্রধান বক্তাকে প্রত্যাহারের নির্দেশ প্রদান করা হয়।

তবে পুলিশ বলছে, মাহফিল বন্ধের কোনো নির্দেশ দেয়া হয়নি, শুধু বিতর্কিত প্রধান বক্তা আমির হামজাকে বাদ দিয়ে তাফসির মাহফিল সম্পন্ন করার কথা বলা হয়েছে।

আজকের এ মাহফিলকে কেন্দ্র করে গত বেশ কয়েকদিন ধরে চাটমোহর উপজেলার সর্বত্র ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালায় আয়োজক কমিটি।
মাহফিলের অনুমতি সাপেক্ষে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মকবুল হোসেনের।

বিশেষ অতিথির তালিকায় ছিলেন র‌্যাব পরিচালক রংপুর বিভাগ (অতিরিক্ত ডিআইজি) মো. মোজাম্মেল হকসহ চাটমোহর উপজেলার শীর্ষ স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতৃবৃন্দ।

এর পরেও মাহফিলের প্রধান বক্তাকে বিতর্কিত বক্তা উল্লেখ করে মাহফিলে তাকে না রাখার নির্দেশ প্রদান করে থানা পুলিশ।

এমন নির্দেশনার পরে প্রধান বক্তাকে বাদ দিয়ে মাহফিল করতে গেলে জনগণ মানবে না বলে আয়োজক কমিটি মাহফিলটি বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয় বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে হেংলী জামে মসজিদের সভাপতি মোহাম্মদ আলী সরকার বলেন, চাঁদের বাজার জামে মসজিদের উন্নতি কল্পে তাফসির মাহফিলটি আয়োজন করা হয়।

মাহফিলে জালসার প্রধান বক্তা আমির হামজা বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় বক্তা হওয়ায় তাকে প্রধান বক্তা হিসেবে সবার সম্মতি নিয়েই করা হয়েছিলো।

কিন্তু দুঃখের বিষয় অতি অল্প সময় আগে প্রশাসন তাকে বাদ দিয়ে মাহফিল করতে বলে। কিন্তু এটা তো সম্ভব না। মাহফিলের প্রধান বক্তা ব্যাতিত কিভাবে মাহফিল সম্পন্ন হয়? তাই আমরা মাহফিল বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছি।

এদিকে মাহফিল নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি অস্বীকার করে চাটমোহর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. বদরুদ্দোজা বলেন, মাহফিলের প্রধান বক্তা আমির হামজা প্রায় সকল মাহফিলে রাষ্ট্রদ্রোহী বক্তব্য প্রদান করেন।

তাকে সেখানে রাখলে ওই এলাকায় আইনশৃঙ্খলা অবনতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে আয়োজক কমিটিকে ওই বিতর্কিত বক্তাকে বাদ দিয়ে মাহফিল সম্পন্ন করতে বলা হয়েছে।

 

 


© All rights reserved 2018 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!