শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯, ০৮:২৪ পূর্বাহ্ন

প্রশাসন ভেঙে দেওয়ার পরেও পাবনায় আবারও ইট ভাটা চালুর পাঁয়তারা!

সুজানগর প্রতিনিধি : গত জানুয়ারি মাসের মাঝামাঝি সময়ে সুজানগরের কামারদুলিয়া গ্রামের কে এস বি ব্রিকস্ নামক একটি ইটের ভাটা উপজেলা প্রশাসন ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়।

ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী (ইউএনও) সুজিৎ দেবনাথ জানান হাইকোর্টের আদেশ ও প্রয়োজনীয় লাইন্সে না থাকায় কে এস বি ব্রিকস্রে কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয়।

শুধু কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া নয়, প্রশাসনের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে তাদের নির্দেশে ভেঙে দেওয়া হয় চুল্লি ও ইট তৈরির প্রয়োজনীয় উপকরণ। চুল্লির আশেপাশে থাকা ইটও বুলড্রোজার এনে ভেঙে দেওয়া হয় ঐ সময়ে।

এই ভাটার ১ শ গজের মধ্যে থাকা সরকার অনুমোদিত বোর‌্যাকস্ গ্রামীণ মডেল নার্সারীর লাখ লাখ চারা নষ্ট হচ্ছে বলে অভিযোগ ছিলো ভূক্তভোগীদের।

এছাড়াও এই ইটভাটার ২৫ গজের ভেতরে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১৫ গজের ভেতরে ঘনবসতি, ৩ ফসলি কৃষি জমি রয়েছে। এলজিইডির রাস্তার সাথে অবস্থিত এই ইট ভাটাটি।

এবিষয়ে কামারদুলিয়া গ্রামের মরহুম ইসলাম শেখের ছেলে বারেক শেখ গেল ২ জানুয়ারি জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আকর্ষন করে আবেদন করলে সেই আবেদনে জেলা প্রশাসক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রয়োজনীয় কার্যকরি ব্যবস্থা নিতে বলেন।

একইদিন পুলিশ সুপারের কাছে আবেদনের প্রেক্ষিতে পুলিশ সুপার সুজানগর থানার ওসিকে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে আবেদনে সুপারিশ করেন।

এদিকে বোর‌্যাকস গ্রামীণ মডেল নার্সারী ও খামারের মালিক কামারদুলিয়া গ্রামের আব্দুল করিম শেখের ছেলে কামরুল হাসান জানান, তার নার্সারী ও খামারটি বিশ বিঘা জমির ওপরে প্রতিষ্ঠিত।

নার্সারীর একদম সংলগ্ন স্থানে স্থানীয় কুরবান আলী ইটভাটা নির্মাণের কাজ শুরু করেন। শুরুর প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসককে অবহিত করলে তিনি তাৎক্ষনিক মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ভাটাটি বন্ধ করে দেন।

এর কিছুদিন পরেই ভাটাটির নির্মাণ কাজ আবারো শুরু করা হয়। এখবর জেনে জেলা প্রশাসক তাৎক্ষনিক মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ১ লাখ টাকা জরিমানা করেন এবং ফায়ার সার্ভিসের মাধ্যমে পানি দিয়ে ভিজিয়ে ভাটার কার্যক্রম বন্ধ করে দেন।

কিছুদিন আগে বুলড্রোজার সাথে এনে প্রশাসনিক কর্মকর্তারা এটি ভেঙেও দেন।

কিন্তু গত চারদিন আগে পুনরায় আবার কাজ শুরু করেছে ইট ভাটা মালিক কুরবান আলী।

প্রশাসনের এমন কঠোর উদ্যোগের পরেও কিভাবে পুনরায় আবারো ভাটার কাজ শুরু হলো,তা বুঝতে পারছেন না তিনিসহ এলাকার সাধারন মানুষ। তারা এবিষয়ে প্রশাসনের নজরদারী প্রত্যাশা করছেন।

এদিকে ৯৯ নং কামারদুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও একই গ্রামের কানু মৃধার ছেলে হান্নান মৃধা জানান, এখান ভাটা হওয়ার কারনে তাদের অনেক সমস্যা পোহাতে হয়।

বিদ্যালয়ের ২৫ গজের মধ্যে এই ভাটা বন্ধের দাবিতে তারাসহ শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে।

এরই প্রেক্ষিতে জনবান্ধব জেলা প্রশাসক ভাটাটি বন্ধ করে দিয়েছিলেন। কিন্তু এখনও তার কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন ভাটা মালিক।

এদিকে এবিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তরের বগুড়াস্থ বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক মো. আশরাফুজ্জামান জানিয়েছেন, পরিবেশগত ছাড়পত্রের বিষয়ক কমিটির ৮২ তম সভায় কার্যবিবরনীর সিদ্ধান্ত মোতাবেক ইট ভাটাটির ১/২ কি: মি: ব্যাসার্ধের মধ্যে এলজিইডির নির্মিত রাস্তা থাকার কারনে ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রন আইন অনুযায়ী ইট ভাটার অবস্থান গ্রহনযোগ্য নয় বিধায় সুজানগরের কামারদুলিয়ার মেসার্স কে এস বি ব্রিকস এর অনুকুলে ছাড়পত্রের আবেদন মঞ্জুর করা হয়নি।
ফলে বিদ্যমান স্থানে ইট ভাটার কোন প্রকার কার্যক্রম পরিচালনা না করার জন্যও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এবিষয়ে তাঁতীবন্দ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন মৃধা বলেন ঘটনাটি সত্য এবং অভিযোগকারীর অভিযোগও সত্য। এখানে ভাটা থাকার কারনে জনস্বার্থ ও জনস্বাস্থ্য হুমকির মুখ রয়েছে। একপাশে বিদ্যালয় অপরপাশে এলাকার স্বনামেখ্যাত একটি নার্সারী। যা উপযোগী পরিবেশ নয়।

আর এই নার্সারী বেশ কয়েকবার পুরস্কৃত হয়ে এলাকার সুনাম বৃদ্ধি করেছে। ফলে এই নার্সারীর স্বার্থ সংরক্ষন করাসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য উপযোগী পরিবেশের বৃহত্তর স্বার্থে প্রশাসনের এবিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া দরকার।

এবিষয়ে জানতে চাওয়া হলে জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন বলেন, জেলা প্রশাসন জনস্বার্থে কয়েকদিন আগে ইট ভাটাতে অভিযান চালিয়েছে এবং ভেঙে দিয়ে বন্ধ করে দিয়েছে কার্যক্রম।

পুনরায় চালুর বিষয়ে প্রয়োজনে আবারো তদন্ত করে দেখা যাবে যে ইট ভাটা মালিক কোন বিধির বলে কার্যক্রম চালানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন।

জেলা প্রশাসন সাধারন মানুষের কল্যাণে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৪:৪৪
    সূর্যোদয়ভোর ০৬:০১
    যোহরদুপুর ১২:০৫
    আছরবিকাল ১৬:২৮
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৮:১০
    এশা রাত ১৯:৪০
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!