সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০৫:০৪ পূর্বাহ্ন

বই প্রেমীদের ভিড়ে প্রাণবন্ত পাবনার বই মেলা

রনি ইমরান : পল্লী কবি জসিম উদ্দিন বলেছেন, বই জ্ঞানের প্রতীক, বই আনন্দের প্রতীক।

টমাস এডিসন বলেছেন, যদি সম্ভব হতো আর কিছু নয় মৃত্যুর পর আমি সঙ্গে করে কিছু বই নিয়ে যেতাম।

বই পড়ে আমরা শতাব্দী থেকে শতাব্দীর আগের পৃথিবী ঘুরে আসতে পারি। জ্ঞান-বিজ্ঞান, দর্শন, পৃথিবী গ্রহ নক্ষত্র সৃষ্টি রহস্য জানতে পারি।

পাবনা দোয়েল সেন্টারের মাঠে মাস ব্যাপী বই মেলার গতকাল ছিল দ্বিতীয় দিন। মাঘের বর্ণিল সন্ধ্যায় বই প্রেমীদের উপচে পড়া ভীড় ছিল মেলা প্রাঙ্গণে।

বলা যায় এই বই মেলা বই প্রেমীদের এক রকম মিলন মেলাও। মেলায় পাঠশালা স্টলে বই প্রেমিদের উপচে পড়া ভীর লক্ষণীয় ছিল।

বই প্রেমী শারমিন জানায়, বই আলোকিত মানুষ গড়ে দেয়। একটি ভাল বই ভালো বন্ধুর মত। পছন্দের বই খুজে পেয়ে আত্মহারা বই প্রেমীরা।

তারা বলছে বর্তমান নৈতিকতা ও সামাজিক অবক্ষয় রোধে বই পড়ার বিকল্প নেই।

বই প্রেমীরা ও লেখকরা মাস জুড়েই মেলা প্রাঙ্গণে ভীড় জমায়। মেলায় আমন্ত্রিত অতিথিরা তাদের বক্তব্যে প্রায়ই বলেন যুব সমাজকে বইয়ের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে।

বাজে আড্ডায় জীবনের চরম সর্বনাশ না ডেকে এনে নিয়মিত বই পড়তে হবে। বিশেষ করে শিশুরা যেন ছোট বেলা থেকেই বই প্রেমী হয়ে ওঠে সে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে।

৩১টি স্টলে পছন্দের বই খুজে নিতে ব্যস্ত বই প্রেমীরা।

মেলায় উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতীন খান জানিয়েছেন, এ বছর মেলার ভ্যেনু পরিবর্তন হলেও বেচা বিক্রিতে প্রভাব পড়বে না।

তা বই মেলায় উপচে পড়া ভীড় থেকেই বোঝা যায়।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শিবলী সাদিক জানান, ছাত্রলীগকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে এগুতে হবে, আলোকিত মানুষ হয়ে দেশের সেবা করতে হবে।

জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে এবারই প্রথম ‘মাতৃভূমি’ নামে স্টল নেয়া হয়েছে। ছাত্রলীগের এই স্টল নেয়ায় খুশি সকলেই।

মেলা ফেব্রুয়ারি মাস জুড়ে চলবে। প্রতিবারের মত এবারও বই প্রেমীদের ভীড়ে প্রাণবন্ত হয়ে উঠেছে মেলা।


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৫:১২
    সূর্যোদয়ভোর ০৬:৩০
    যোহরদুপুর ১২:১২
    আছরবিকাল ১৬:১৮
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৭:৫৫
    এশা রাত ১৯:২৫
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!