বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ০২:২৯ পূর্বাহ্ন

বিদ্যুৎ বিভাগের প্রকল্প : ৩ বছরে ২৯৬১ জনের বিদেশ সফর

বিদ্যুৎ বিভাগের চলমান প্রকল্প থেকে বিগত তিন বছরে মোট ২ হাজার ৯৬১ জন কর্মকর্তা বিদেশ সফর করেছেন বলে জানিয়েছে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়। এসব সফরে যাতে স্বচ্ছতা থাকে সে বিষয়ে নজর রাখার জন্য বলেছে সংসদীয় কমিটি। অযথা কেউ যেন বিদেশ সফর করতে না পারে সে বিষয়ে সতর্ক করেছে কমিটি।

বৃহস্পতিবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ৮ম বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। এর আগের বৈঠকে কমিটি বিদেশ সফর সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চেয়েছিল।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মো. শহীদুজ্জামান সরকার জাগো নিউজকে বলেন, কমিটি সতর্ক করে দিয়েছে বিদেশ সফর নিয়ে কোনো অস্বচ্ছতা যেন না থাকে। একই ব্যক্তি যেন বার বার বিদেশ সফরের সুযোগ না পায়। বিদেশ সফর হতে হবে অবশ্যই প্রয়োজনে। অপ্রয়োজনে কেউ বিদেশ গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, তার এ বক্তব্যের প্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয়ের সচিব জানান, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ে সব কিছু সুষ্ঠুভাবে চলছে। বিদেশে সফর নিয়ে কোথাও কোনো অনিয়ম হয়নি।

জানা যায়, বৈঠকে সিস্টেম লসের পরিমাণ সহনীয় মাত্রায় কমিয়ে আনার পাশাপাশি সিস্টেম লসের স্ট্যান্ডার্ন্ড নির্ধারণ করে দেয়ার সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। এছাড়া বিদ্যুতের অবৈধ সংযোগ ও চুরি রোধে মনিটরিং কার্যক্রম জোরদার করতে মন্ত্রণালয়কে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

এসময় মন্ত্রণালয় থেকে কমিটিকে জানানো হয়, গ্রামাঞ্চল এবং অফগ্রিড এলাকায় সোলার বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে ২১টি সোলার মিনিগ্রিড, ১ হাজার ৩৭৪টি সোলার ইরিগেশন পাম্প এবং ৫.৮ মিলিয়ন সোলার হোম সিস্টেম স্থাপন করা হয়েছে। আরো ৬টি সোলার মিনিগ্রিড এবং ২৩২টি সোলার ইরিগেশন পাম্প স্থাপনের প্রক্রিয়া চলমান।

এছাড়া যেসব অবিদ্যুতায়িত পকেটসমূহে গ্রিড বিদ্যুৎ পৌঁছানো সম্ভব হয়নি এমন ১ হাজার ৬৯টি অফগ্রিড গ্রাম চিহ্নিত করা হয়েছে, যার মধ্যে ৬২০টি গ্রামে জুন, ২০২০ সালের মধ্যে গ্রিডের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া সম্ভব হবে। এসময় কমিটি বাংলাদেশকে উন্নত দেশের কাতারে রূপান্তরিত করতে বাংলাদেশের সব স্থানে ২০২০ সালের মধ্যে শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় আনয়নের জন্য মন্ত্রণালয়কে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করে।

কমিটির সভাপতি মো. শহীদুজ্জামান সরকারের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য ও বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, মো. আবু জাহির, মো. আছলাম হোসেন সওদাগর, মোছা. খালেদা খানম এবং বেগম নার্গিস রহমান অংশ নেন।

বৈঠকে বিদ্যুৎ বিভাগের সিনিয়র সচিব ড. আহমদ কায়কাউসসহ বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় এবং সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৫:০৭
    সূর্যোদয়ভোর ০৬:৩০
    যোহরদুপুর ১১:৫১
    আছরবিকাল ১৫:৩৭
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৭:১৩
    এশা রাত ১৮:৪৩
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!