মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯, ০৬:৩২ অপরাহ্ন

বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে এখনও সংশয় কাটেনি

তাবলীগের দুই পক্ষের বিপরীতমুখী দৃঢ় অবস্থানের কারণে ২০১৯ সালের বিশ্ব ইজতেমার নিয়ে এখনও সংশয় কাটেনি। ইজতেমার আয়োজন নিয়ে সোমবার বিকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের সঙ্গে বৈঠকে যোগ দেয়নি তাবলিগের সা’দ বিরোধী অংশের মুরব্বীরা।

সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে তাবলিগ জামাতের মাওলানা সাদপন্থী অনুসারীরা ছাড়াও বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর প্রতিনিধিরা অংশ নেন। এতে উপস্থিত ছিলেন ধর্মপ্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ।

বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘আমরা শেষ চেষ্টা করছি, তাদের দু’পক্ষকে একত্র করে ইজতেমাটা যাতে সুন্দরভাবে বাংলাদেশে চালু থাকে। এই ইজতেমা যাতে একসঙ্গে করতে পারেন তারা, সে চেষ্টাটাই আমরা করে যাচ্ছি। একপক্ষের লোক আসেনি, তারা বলছে সময়মতো তারা নোটিশটি পায়নি, তাই তারা আসতে পারেনি।’

দুইভাগে বিভক্ত তাবলিগ জামাত এ বছরের বিশ্ব ইজতেমা একসঙ্গে করবে না আলাদাভাবে করবে তা আগামী বুধবারের বৈঠকে নির্ধারিত হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

ইজতেমা একসঙ্গে হবে না আলাদা – এ বিষয়ে সরকারের দৃষ্টিভঙ্গি জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা কিন্তু তাদের ওপর কোনো কিছু চাপিয়ে দিচ্ছি না। তারা বসে সিদ্ধান্ত নেবেন, একসঙ্গে করবেন কি করবেন না।’

বৈঠকে মাওলানা সা’দের অনুসারী তাবলিগি মুরব্বী সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলামের নেতৃত্বে খান শাহাবুদ্দীন নাসিম,মাওলানা মোশাররফ ও মাওলানা আশরাফ আলি অংশগ্রহণ করেন।

বৈঠকে অংশগ্রহণ না করার ব্যাপারে তাবলিগের সা’দ বিরোধী অংশের মুরব্বী মাওলানা ওমর ফারুকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। পরে সা’দবিরোধী ইঞ্জিনিয়ার মাহফুজ হান্নান বলেন, ‘এত অল্পসময়ের নোটিসে অংশগ্রহণ করা আমাদের মুরব্বীদের জন্য একটু কঠিন ছিল। তাই আমরা সময় চেয়েছি। তাছাড়া সাদ অনুসারীরা দেওবন্দ যাওয়ার বিষয়ে বিভিন্ন মিথ্যা ছড়াচ্ছে। ’

বুধবারের বৈঠকে মাওলানা জুবায়েরপন্থীরা অংশ নেবেন কি না জানতে চাইলে মাহফুজ হান্নান বলেন, ‘এখনো নিশ্চিত নয়। আমাদের মুরব্বীরা সিদ্ধান্ত নিয়ে জানাবেন। ‘

এদিকে তাবলিগের চলমান সংকট নিরসন ও আসন্ন বিশ্ব ইজতেমা সফলের লক্ষ্যে ধর্মপ্রতিমন্ত্রী শেখ আবদুল্লাহর নেতৃত্বে বাংলাদেশের একটি প্রতিনিধি দল ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দ যাওয়ার কথা থাকলেও এখন তা অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে।

১৫ থেকে ২২ জানুয়ারির মধ্যে দেওবন্দ যাওয়ার কথা থাকলেও কবে যাওয়া হবে এখনো তা নিশ্চিত নয়।

এ বিষয়ে ধর্মসচিব আনিসুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, এখনো নিশ্চিতভাবে বলা যাচ্ছে না, আশা করি দু একদিনের মধ্যেই বিষয়টি পরিষ্কার হবে।


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৪:১৪
    সূর্যোদয়ভোর ০৫:৩৬
    যোহরদুপুর ১২:০২
    আছরবিকাল ১৬:৩৬
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৮:২৮
    এশা রাত ১৯:৫৮
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!