বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ০৯:২১ অপরাহ্ন

পাবনায় এক যুবককে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেছে পুলিশ!

পাবনা প্রতিনিধি : অর্থের বিনিময়ে প্রতিপক্ষের পক্ষ নিয়ে এক যুবককে ফেনসিডিল দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে এলাকাবাসীর বিক্ষোভের মুখে ফেঁসে গেছে পাবনার ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশ।

সবুজ আলী (১৮) নামের এক যুবকের সেলুনে ফেনসিডিল রেখে তাকে আটক করে হয়রানি করার অভিযোগ উঠেছে এক পুলিশ কর্মকর্তা ও তার সোর্সের বিরুদ্ধে।

ঘটনাটি ঘটেছে ভাঙ্গুড়া উপজেলার অষ্টমণিষা ইউনিয়নের ছোট বিষাকোল গ্রামে গত শনিবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) রাত ৮টার দিকে।

সবুজকে আটকের চার ঘণ্টা পর এলাকাবাসীর বিক্ষোভের মুখে থানা থেকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছে ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশ।

হয়রানির শিকার সবুজ উপজেলার অষ্টমণিষা ইউনিয়নের ছোট বিষাকোল গ্রামের আকমল আলীর ছেলে।

এদিকে হয়রানিকারী পুলিশ কর্মকর্তার নাম সাজেদুর রহমান। তিনি ভাঙ্গুড়া থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, উপজেলার ছোট বিশাকোল বাজারে পাউবোর ৫ কাঠা জায়গা নিয়ে ওই গ্রামের জসিম উদ্দিন ও আকমল আলী গ্রুপের মধ্যে গত এক বছর ধরে দ্বন্দ্ব চলছে।

এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে একাধিকবার রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে। আদালতে উভয় পক্ষের একাধিক মামলাও চলমান রয়েছে।

বর্তমানে প্রতিপক্ষের মামলায় সবুজের পিতা আকমল আলী পাবনা কারাগারে রয়েছেন।

এ ঘটনায় পুলিশ ও তাদের সোর্স অর্থের বিনিময়ে প্রতিপক্ষ জসিম উদ্দিনের পক্ষ নিয়ে আকমলের ছেলে সবুজকে ফাঁসাতে গিয়ে নিজেরাই ফেঁসে গেছেন।।

কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, শনিবার রাত ৮টার দিকে সবুজ ছোট বিশাকোল বাজারে তার সেলুনে (চুল কাটার দোকান) বসে এক ব্যক্তির চুল কাটছিলেন।

এ সময় ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশের ওই এএসআই সাজেদুর রহমানসহ চার/পাঁচজন পুলিশ সদস্য এবং পুলিশের সোর্স রফিকুল ইসলাম সেলুনে ঢুকে সবুজকে থানায় নিয়ে যেতে চায়।

সবুজ যেতে না চাইলে পুলিশের সোর্স রফিকুল ইসলাম সবুজের সেলুনের ড্রয়ারে ফেনসিডিলের বোতল রেখে দেয়। পরে পুলিশ তাকে ফেনসিডিল রাখার দায়ে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

এদিকে সবুজকে আটকের কিছুক্ষণ পরেই ওই গ্রামের শতাধিক মানুষ মিছিল করতে করতে থানায় গিয়ে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে।

পরিস্থিতি বেগতিক দেখে পুলিশ কর্মকর্তারা সবুজকে ছেড়ে দেওয়ার আশ্বাস দিলে বিক্ষোভকারীরা শান্ত হয়।

পরে রাত ১২টার দিকে পুলিশ সবুজকে তার পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করে।

অভিযোগের বিষয়ে এএসআই সাজেদুর রহমান বলেন, প্রতিপক্ষের পক্ষ নিয়ে রফিকুল নামে তার এক সোর্স সবুজকে ফেনসিডিলের বোতল দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করেছিল। এতে সাময়িক ভুলবোঝাবুঝির কারণে তাকে আটক করা হয়েছিল। পরে সত্য উদ্‌ঘাটন হলে সবুজকে ছেড়ে দেওয়া হয় এবং রফিকুলকে আটক করা হয়।

ভাঙ্গুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদ রানা জানান, ‘জমিজমা দখল সংক্রান্ত ব্যাপারে পুর্বশত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের দেওয়া ভূল তথ্যে সবুজ নামে এক যুবককে থানায় নিয়ে আসা হয়েছিল। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।’.


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৪:১৫
    সূর্যোদয়ভোর ০৫:৩৫
    যোহরদুপুর ১১:৫৮
    আছরবিকাল ১৬:৩১
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৮:২১
    এশা রাত ১৯:৫১
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!