বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫:৫৭ পূর্বাহ্ন

মিথ্যার ঘরবসতি সেখানে

প্রথম আলো। নামটি শুনলে সবার প্রথমেই যে দৃশ্যটি সকলের চোখে ভাসে, সেটি হচ্ছে, লাখো ধর্মপ্রাণ মুসলমানের সামনে এর সম্পাদকের হাতজোড় করে ক্ষমা চাওয়ার ঘটনা। বায়তুল মোকাররমে সেদিন লাখো জনতার ক্ষোভের আগুন নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে প্রশমিত করেছিলেন মতিউর রহমান। মহানবী (সঃ) কে নিয়ে ব্যাঙ্গ করার অভিযোগে সেদিন ফুঁসে উঠেছিলো কোটি জনতা। সেই থেকেই প্রথম আলোকে যেকোন ধর্মের শত্রু হিসেবেই গণ্য করে দেশবাসী।

তবে, কেবল ধর্মের বিরুদ্ধেই অবস্থান নয়, পত্রিকাটি শুরু থেকেই দেশবিরোধী অবস্থান নেয় কৌশলে। স্বীয় স্বার্থ হাসিল ও এজেন্ডা বাস্তবায়নে যখন যা করা প্রয়োজন, তারা তা করে যাচ্ছে।

মূলত আওয়ামী লীগ বিরোধী সকল শক্তির অন্যতম মুখপাত্র এই ‘প্রথম আলো’। জন্মলগ্ন থেকেই পত্রিকাটি আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে নানান প্রোপাগান্ডা ও নির্লজ্জ মিথ্যাচার নিয়ে হাজির হয়েছে।
বহুল আলোচিত ওয়ান ইলেভেনের সময়কালেও পত্রিকাটি আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ক্রমাগত অপপ্রচার চালাতে থাকে। এমনকি জননেত্রী শেখ হাসিনার জড়িয়ে ফাঁদতে থাকে একের পর এক মিথ্যা ও বানোয়াট গল্প। যদিও জনসাধারণের কাছে সেসব আষাঢ়ে গল্প বিশ্বাসযোগ্য হয়নি মোটেই। পরবর্তীতে প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান মিথ্যা সংবাদ প্রচারের দায়ও স্বীকার করে নিয়েছেন।
অবশ্য এর দায় তিনি চাপিয়েছেন দেশি-বিদেশী শক্তির ওপর। তবে প্রথম আলো এবং মতিউর রহমান গং যে পশ্চিমা প্রতিভূদের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করে, তার প্রমাণ তারা দিয়েছে বহুবার। পশ্চিমা প্রতিভূদের স্বার্থরক্ষায় প্রথম আলো ও মতি গং বরাবরই সোচ্চার।
আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে ঘৃণ্য এক মিশন নিয়ে হাজির হয়েছে তারা। তাদের সাথে যথারীতি যোগ দিয়েছে বিএনপি-জামায়াত ঘরানার কিছু পত্রিকা।

অনুসন্ধানে দেখা যায়, প্রথম আলোর ০৩ ডিসেম্বর,২০১৮ এর ছাপা সংখ্যায় প্রধান শিরোনাম করা হয়েছে ‘বিএনপির বাদ ১৪১, আ. লীগের ৩’। মূলত যাচাই বাছাইয়ের পরে নির্বাচন কমিশন দ্বারা মনোনয়নপত্র বাতিলের সংখ্যা তুলে ধরা হয়েছে এখানে। কিন্তু জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে প্রথম আলো এখানে আ. লীগের বাতিলকৃত মনোনয়নপত্রের সংখ্যা উল্লেখ করেছে মাত্র ৩টি। প্রথম আলোর সাথে একই সুরে সুর মিলিয়েছে বিএনপি জামায়াত ঘরানার মানবজমিন,নয়া দিগন্ত,ইনকিলাব।

কিন্তু নির্বাচন কমিশন হতে সরবরাহ করা তথ্যে দেখা যায়, আওয়ামী লীগের মোট ৯৬ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। প্রদেয় সকল তথ্য একাধিকবার যাচাই বাছাইয়ের পরেই কমিশন এ সিদ্ধান্ত নেয়। বাদ পড়া প্রার্থীদের জন্য আপিল করার সুযোগও উন্মুক্ত রয়েছে।

এদিকে, তুলনামূলকভাবে বিএনপির মনোনয়নপত্র বেশি বাতিল হবার কারণ অনুসন্ধানে দেখা যায়, বিএনপির মোট ৬৯৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক চিহ্নিত দণ্ডিত, দুর্নীতিবাজ, ফৌজদারী মামলার আসামীও রয়েছেন। বিএনপির হাইকমান্ড জেনেশুনেই এসব বিতর্কিত লোকদেরকে মনোনয়নপত্র দিয়েছিলো, যাতে নির্বাচন কমিশনকে বিতর্কিত করার নতুন বাহানা পাওয়া যায়। রাজনীতি সচেতনেরা বলছেন, এই উদ্দেশ্যেকে সামনে রেখেই বিএনপির হাইকমান্ড সব আসনে ২-৩ জন করে প্রার্থী দিয়েছে।

অন্যদিকে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোট ৩০০ আসনে মনোনয়নপত্র দেয় ৩৪৭ জনকে। ফলে তুলনামূলকভাবে মনোনয়নপত্র বাতিলের হারও কম।

কিন্তু ভুয়া ও উদ্দেশ্যমুলক সংবাদ প্রচার করে প্রথম আলো ও বিএনপি জামায়াত ঘরানার পত্রিকাগুলো চায় স্বার্থ হাসিল করতে। গণমাধ্যম বিশ্লেষকেরা একে দেখছেন ‘তথ্যসন্ত্রাস’ হিসেবে। তারা বলছেন, একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানকে কেন্দ্র করে এরকম নির্লজ্জ মিথ্যাচার মোটেই কাম্য নয়। তারা একে গণমাধ্যমের জন্য হুমকিস্বরূপ বিবেচনা করছেন।

যদিও এর আগে অসংখ্য কলঙ্কজনক অধ্যায়ের হোতা এই মতি গং। দশম জাতীয় নির্বাচনের পর উদ্দেশ্যমূলকভাবে সাম্প্রদায়িকতার বিষ ঢেলে দিয়ে অসংখ্য হিন্দু পরিবারকে ভিটেছাড়া করেছে তারা। সাভার ট্রাজেডির মাত্র ২ দিন পরেই নাচ গানের বিশাল আয়োজন করায় আজও প্রথম আলোকে ধিক জানায় বিশ্ববাসী। আরো একবার খুলে যায় প্রথম আলোর সুশীলতার মুখোশ।

শুধু তাই নয়, ২০১৫ সালে প্রথম আলো গাজীপুরে এ্যাপেক্স কারখানায় শ্রমিকের সন্তান প্রসব নিয়ে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করে। পরে আদালতের রায়ে তাদের লাখ টাকার জরিমানা গুনতে হয়। মানুষ আজ প্রথম আলোকে ‘মিথ্যার ঘরবসতি’ হিসেবেই জানে, যারা স্বার্থের জন্য সব করতে পারে।

তাই দেশবিরোধী এই শক্তিটিকে রুখে দেয়ার দাবি জানিয়েছে সাধারণ জনতা।

  • 2
    Shares


বিজয় নিশান উড়ছে ঐ…

© All rights reserved 2018 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!