বৃহস্পতিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০১৯, ০৪:৪১ অপরাহ্ন

যত্নে থাকুক শিশুর দাঁত

ছোট্ট শিশুর প্রথম দাঁত ওঠার সময়টি গুরুত্বপূর্ণ। তাই এ সময় যত্ন ও সতর্কতা খুবই জরুরি। সঠিক পরিচর্যার ফলে শিশুর সুন্দর ও রোগমুক্ত দাঁতের নিশ্চয়তা তৈরি হয়। তাই দাঁত ওঠার আগে থেকেই শিশুর মুখ ও ভবিষ্যৎ দাঁতের ক্ষেত্রে যত্নবান হতে হবে। শিশুদের দাঁত ওঠার প্রাথমিক সময়সীমা হচ্ছে ০-১২ মাস। তবে সাধারণভাবে গড়ে ছয় মাস বয়সের মাঝেই অধিকাংশ শিশুর দাঁত উঠে যায়। শিশু যখন মায়ের জরায়ুতে অবস্থান করে, তখন থেকেই তার দাঁত গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যায়। তাই মায়ের খাবারের বিষয়ে হতে হবে সচেতন। কেননা মায়ের খাবারের ভিটামিন ও খনিজ উপাদান (ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস) গর্ভস্থ্য শিশুর ভবিষ্যৎ দাঁত গঠনে ভূমিকা রাখে। এ সময়ে হাতের শিশুর মুখ ও মাড়ি নিয়মিত পরিস্কার রাখুন। নতুন দাঁত ওঠার আগে মাড়ির সেই জায়গায় ছোট গর্ত তৈরি হতে পারে। এখানে ব্যাকটেরিয়া লুকিয়ে থাকতে পারে ও রোগ সংক্রমণ করতে পারে। যখন শিশুর ছোট দাঁত উঠতে শুরু করবে, নিয়মিত পরিস্কার কাপড় দিয়ে বা পানিতে ভেজানো নরম টুথব্রাশের সাহায্যে শিশুর দাঁত পরিস্কার করুন। এটা প্রতিদিন সকালে খাবারের আগে ও রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে পরিস্কার করুন, যাতে আপনার শিশু দাঁত ব্রাশ করার অভ্যাসটিতে অভ্যস্ত হয়ে যায়। প্রথম থেকেই দন্ত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। শিশুর বয়স যখন ছয় মাস থেকে এক বছর তার মুখে বেশ কয়েকটি দাঁত উঠে যাওয়ার কথা। সাধারণভাবে অন্তত আটটি দাঁত। শিশুর যে কয়টি দাঁত উঠুক না কেন, সেগুলোর অবস্থান কীভাবে রয়েছে তা লক্ষ্য করুন। অর্থাৎ শিশুর দাঁত ফাঁকা ফাঁকা বা ঘন সন্নিবেশিত কি-না। দাঁত ও মাড়ি পরিস্কার করে দিন। যদি ১৮ মাস বয়সেও আপনার শিশুর দাঁত না দেখা যায়, তবে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। এ সময় শিশুর জন্য নরম টুথব্রাশ ব্যবহার করা শুরু করুন। শিশুকে দাঁত ব্রাশ করতে সহযোগিতা করুন।

লেখা :ফারজানা নীলা


© All rights reserved 2018 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!