শুক্রবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৮, ০৭:৪০ পূর্বাহ্ন

রংপুরে ছাত্রদল নেতার ছুরিকাঘাতে ছাত্রলীগ কর্মী খুন

পাওনা টাকা ফেরত চাওয়ায় রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলায় ছাত্রদলের পৌরসভা শাখার আইনবিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ শাহের (২৩) ছুরিকাঘাতে রেজাউল ইসলাম (১৭) নামে ছাত্রলীগের এক কর্মী খুন হয়েছেন।

সোমবার রাত ১১টার দিকে উপজেলার পৌর শহরের স্টেশন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় চারজনের বিরুদ্ধে রেলওয়ে থানায় মামলা করা হয়েছে। ঘটনার পর ফিরোজের বড় ভাই ইলিয়াস আলীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রেজাউল ইসলাম উপজেলার কালুপাড়া ইউনিয়নের শংকরপুর মধ্যপাড়ার আবদুল মজিদ মিয়ার ছোট ছেলে। সে পৌর শহরের কলেজিয়েট স্কুলের ছাত্র ছিল।

এলাকাবাসী ও স্বজনদের সূত্রে জানা গেছে, নিহত রেজাউল ইসলামের বড় ভাই হাবিবুরের কাছ থেকে উপজেলার পৌর শহরের কলেজিয়েট স্কুলসংলগ্ন বটপাড়া এলাকার মৃত ইসলাম উদ্দিনের ছেলে ফিরোজ শাহ ক্লিনিক করার কথা বলে ৩০ হাজার টাকা ধার নিয়েছিল। একাধিকবার ওই টাকা ফেরত দেয়ার আশ্বাস দিলেও টাকা ফেরত না দিয়ে টালবাহানা ও ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছিল ফিরোজ শাহ।

এরই মধ্যে তাদের কয়েক দফা এ নিয়ে বাগ্বিতণ্ডা হয়। ঘটনার দিন সকালেও ফিরোজের সঙ্গে হাবিবুর ও রেজাউলের এক দফা বাগ্বিতণ্ডা হয়।

অপরদিকে ঘটনার দিনই রেজাউলের মা অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাকে ভর্তি করা হয়। রেজাউল দিনভর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মায়ের পাশে ছিল। ওই দিন রাত সাড়ে ১০টার দিকে সে মাকে সেখানে রেখে একা বাড়ি ফিরছিল।

অপরদিকে ফিরোজ প্রস্তুতি নিয়ে অপেক্ষা করছিল স্টেশন এলাকায়। রেজাউল স্টেশন এলাকায় পৌঁছাতেই তার ওপর হামলা চালায় ফিরোজ ও তার সঙ্গীরা। এ সময় সম্রাট নামে একজন রেজাউলকে জাপটে ধরলে ফিরোজ রেজাউলের বুকের বাম পাশে ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করে।

রেজাউলের চিৎকারে লোকজন ছুটে এলে ফিরোজ ও তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়। তখন রেজাউলকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

খবর পেয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী ডিউক, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক হাসান তবিকুর চৌধুরী পলিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান টুটুল চৌধুরী, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াৎ হোসেন শাহানসহ স্থানীয় বিভিন্ন নেতারা হাসপাতালে রেজাউলের লাশ দেখতে যান।

রেজাউলের চাচা মোতালেব মিয়া জানান, তার ভাতিজাকে পরিকল্পিতভাবে খুন করেছে ফিরোজ ও তার সহযোগীরা। তিনি ঘাতকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

জানা গেছে, ফিরোজের নামে বদরগঞ্জ থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

কর্তব্যরত চিকিৎসক ইফতেখারুল আলম মারুফ জানান, ছুরি হৃৎপিণ্ড ভেদ করে চলে যাওয়ায় ঘটনাস্থলেই রেজাউলের মৃত্যু হয়েছে।

বদরগঞ্জ থানার ওসি আনিছুর রহমান জানান, ঘটনার পর একজনকে গ্রেফতার করা হয়। যেহেতু ঘটনাস্থল রেলওয়ে স্টেশন এলাকায়, তাই লাশ বাংলাদেশ রেলওয়ে পুলিশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠায়।


© All rights reserved 2018 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!