সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৬:১৮ অপরাহ্ন

শানুর প্রথম ছবি প্রথম প্রেম

শানারেই দেবী শানু, মিডিয়ায় কাজ করার এক যুগেরও বেশি সময় পার করছেন। ছোটবেলা থেকেই সংস্কৃতির বিভিন্ন শাখার সঙ্গে সংযুক্ত তিনি।

নাচ, গান, বিতর্ক কিংবা অভিনয়- সব জায়গাতেই ছিল তার বিচরণ। অভিনয়ের পাশাপাশি রয়েছে লেখালেখির চর্চা। আবৃত্তিও করেন বেশ।

২০০৫ সালে লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার নির্বাচিত হওয়ার মধ্য দিয়ে অভিনয় শুরু করেন শানু। এরপর বিজ্ঞাপন ও নাটকে ছিল তার সরব বিচরণ।

‘ছিল’ এ কারণেই যে, নিজের কাজের ব্যস্ততা যখন ‘দম ফেলার ফুসরত নেই’ অবস্থা ঠিক তখন হঠাৎ করেই কাজের পরিমাণ কমিয়ে দেন। সেই কমিয়ে দেয়া থেকে একেবারে না-ই হয়ে যান।

অবশেষে গেল বছর থেকে আবারও নিয়মিত কাজ শুরু করেন এ অভিনেত্রী। ফিরতি যাত্রাটাও হয়েছে বেশ। দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন পূরণ হয়েছে তার ফিরতি যাত্রার মধ্য দিয়ে। প্রথমবারের মতো অভিনয় করেছেন ছবিতে। নাম ‘মিস্টার বাংলাদেশ’। এটি নির্মাণ করেছেন আবু আকতারুল ইমান।

এ ছবির মূল প্রতিপাদ্য বিষয় সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ। ছবির গল্পে শানুকে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের একজন ডাক্তারের ভূমিকায় অভিনয় করতে দেখা যাবে। ১৬ নভেম্বর মুক্তি পাবে ছবিটি। এ ছবি নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত শানু।

নিজের অভিনীত প্রথম ছবি নিয়ে তিনি বলেন, ‘যেহেতু মিস্টার বাংলাদেশে আমার প্রথম ছবি তাই এটি মুক্তির অধীর আগ্রহে আছি। নিজেকে বড় পর্দায় দেখার সেই মাহেন্দ্রক্ষণ এগিয়ে আসছে।

সত্যি বলতে কী প্রথম যে কোনো কিছুর প্রতি মানুষের ভালোলাগা, ভালোবাসা থাকে একটু অন্যরকম। যেমন প্রথম প্রেম, প্রথম সন্তান এসব ক্ষেত্রে অনুভূতি ভাষায় প্রকাশের মতো থাকে না। প্রথম কবিতার বই নীল ফড়িংয়ের কাব্য প্রকাশের আগেও আমার এমন অনুভূতি হয়েছিল।

তাই প্রথম ছবি মিস্টার বাংলাদেশের ক্ষেত্রেও আমার সেই ভালোলাগা, ভালোবাসা কাজ করছে। খুব চমৎকার একটি ছবি হয়েছে। দর্শকের কাছে অনুরোধ থাকবে আপনারা হলে গিয়ে সিনেমাটি উপভোগ করবেন।’

এই যে স্বপ্ন পূরণের সোপান সেটা কিন্তু একদিনেই তৈরি হয়নি। সেই গল্প জানতে চাইলে শানারেই দেবী শানুর চোখ দুটি কিছুটা উজ্জ্বল হয়ে ওঠে। বলতে শুরু করেন সে গল্প।

তার ভাষ্যে, ‘আমার স্বপ্নের প্রথম ধাপটি ছিল লাক্স-আনন্দধারা মিস ফটোজেনিকে অংশগ্রহণ। ওই প্রতিযোগিতায় সেরা দশের একজন হই। এ অর্জনটা একেবারেই অনাকাক্সিক্ষত ছিল। এরপর আমার স্বপ্নগুলো আরও উৎসাহিত হয়ে মূলধারার মিডিয়ায় পাখা মেলতে শুরু করেছিল। কিন্তু বাবা কিছুটা বাদ সাধলেন।

বললেন, উচ্চ মাধ্যমিক শেষ হোক, তুমি আরও বড় হও, তারপর তোমার স্বপ্নপূরণ। অবশেষে বাবার বাধ্যগত হলাম, আমার শহর সিলেটেই থেকে গেলাম। এরই মধ্যে বাংলাদেশ বেতার সিলেট কেন্দ্রের তালিকাভুক্ত শিল্পী হলাম। মঞ্চেও কিছু ভালো কাজ করছিলাম। ২০০৪ সালে এলো একটি দারুণ সুযোগ।

সিলেটের আঞ্চলিক ভাষায় নির্মিত শাকুর মজিদের ‘বৈরাতী’তে অভিনয় করলাম। এরপর ২০০৫ সাল। আমার স্বপ্ন পূরণের আরেকটি বছর। চ্যানেল আই সুপারস্টার আমাকে আমার স্বপ্নের পথে চলার দ্বার উন্মুক্ত করে দিল।

এরপর তো আমার স্বপ্নগুলো পাখা মেলে মূলধারার মিডিয়ায় চলে এসেছে। সেরা সুন্দরী হওয়ার পর থেকে গুণী নির্মাতাদের সঙ্গে কাজ করেছি। এখনও করছি। আরও অনেক ভালো কাজ করে যেতে চাই।’

এদিক শানু অভিনীত ‘সাত ভাই চম্পা’ ধারাবাহিকটি চ্যানেল আইতে নিয়মিত প্রচার হচ্ছে। বিটিভিতে প্রচারের জন্য জুয়েল শরীফের নির্দেশনায় স্বাস্থ্য সচেতনতাবিষয়ক ধারাবাহিক নাটক ‘আলীর অষ্টখণ্ড’সহ সাগর জাহানের নতুন ধারাবাহিক ‘সোনার খাঁচা’র কাজও করছেন এ অভিনেত্রী।


বিজয় নিশান উড়ছে ঐ…

© All rights reserved 2018 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!