সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯, ০৩:১৩ পূর্বাহ্ন

শীতের অতিথি পাখির বিচরণে মুখরিত পাবনা

 

বার্তাকক্ষ : পাবনা শহরের ঘণবসতিপূর্ণ বড় বড় দালান-কোঠার মাঝের ছোট্ট জলাশয়ে নির্ভয়ে ঘুরছে এক ঝাঁক পাখি। কেউ সাঁতার কাটছে, কেউ খুনসুঁটিতে মেতেছে।

একটু পর পর কিছু পাখি উড়ে জায়গা পরিবর্তন করছে। সামান্য শব্দ হলেই উড়ে যাচ্ছে দল বেঁধে। ওদের কিচিরমিচির শব্দে মুখরিত পুরো এলাকা।

যান্ত্রিক শহরে এখন এই নতুন অতিথিদের কোলাহলে ঘুম ভাঙে স্থানীয় বাসিন্দাদের।

শীতকালে বাংলাদেশে যে সকল পাখি দেখা যায় তার মধ্যে ‘পাতি সরালি’ অন্যতম। এটি ছোট সরালি বা গেছো হাঁস নামেও স্থানীয়ভাবে পরিচিত।

পাতি সরালির কিচিরমিচির শব্দে মুখরিত এখন পাবনা শহরের ময়নামতি এলাকার বিল জলাশয়। চারপাশে দৃষ্টি ফেললেই দেখা মেলে ঝাঁকে ঝাঁকে পাতি সরালির উড়াউড়ি, ছুটোছুটি, খুনসুটি আর মনের সুখে সাঁতার খেলার মনকাড়া দৃশ্য।

পাতি সরালি পাখিটির ইংরেজি নাম Lesser Whistling Duck এবং বৈজ্ঞানিক নাম Dendrocygna javanica. এটি মূলত দেশি বা আবাসিক পাখি।

তবে শীতকালে লোকালয়ে দলবদ্ধভাবে এদের দেখা মেলে। এজন্য অনেকেই একে পরিযায়ী পাখি ভেবে ভুল করেন।

দেশি পাখি হলেও শীতকালে ভারত, দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া থেকে উড়ে এসে এদেশে আবাস গড়ে তোলে এই পাতি সরালি ।

পাখিটির মাথা, গলা ও বুক বাদামি, কালো পা এবং ঠোঁট ধূসর-কালচে রঙের। পিঠে হালকা বাদামির ওপর নকশা আঁকা ও লেজের তলা সাদা। পুরুষ ও স্ত্রী পাখি দেখতে একই রকম।

প্রজনন মৌসুমসহ অন্য সময় এরা জুটি বেঁধে পৃথকভাবে দুর্গম বিল-হাওরে বসবাস করে। তাই শীত ছাড়া এদের একত্রে বেশি সংখ্যায় দেখা যায় না।

পাতি সরালির ওজন প্রায় ৫০০ গ্রাম, দৈর্ঘ্য ৪৫ সেন্টিমিটার। সাধারণত এদের ডানা ১৮.৭ সেন্টিমিটার, ঠোঁট ৪ সেন্টিমিটার এবং লেজ ৫.৪ সেন্টিমিটার হয়ে থাকে।

 

 


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৪:৪০
    সূর্যোদয়ভোর ০৫:৫৮
    যোহরদুপুর ১২:০৫
    আছরবিকাল ১৬:২৯
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৮:১১
    এশা রাত ১৯:৪১
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!