বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ১০:১১ পূর্বাহ্ন

সাঁথিয়ায় কাটার সময় স্থান বদল করেছে দু’টি নারকেল গাছ!

মনসুর আলম খোকন, সাঁথিয়া, পাবনা : পুকুরপাড়ে পাশাপশি সুবিশাল দুইটি নারকেল গাছ কাটার সময় গাছ দু’টি স্বস্থান থেকে ২৫ ফিট দূরে সরে গিয়ে পুকুরের মাঝখানে গভীর পানির মধ্যে দাঁড়িয়ে রয়েছে।

এ দৃশ্য দেখার জন্য প্রতিদিন হাজার হাজার উৎসুক জনতা ভিড় করছে সেখানে।

অনেকেই সরল বিশ্বাসে উক্ত পুকুরের পানি ও স্থানচ্যুত গাছের শেকড় নিয়ে যাচ্ছে।

বিস্ময়কর এ ঘটনাটি ঘটেছে পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার নন্দনপুর ইউনিয়নের শোলাবাড়িয়া বাচ্চাপুর গ্রামে প্রয়াত চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের পুকুরে।

সরেজমিন সেখানে গিয়ে দেখা যায়, নন্দনপুর ইউনিয়নের প্রয়াত চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের ওই পুকুরের পাড় থেকে আনুমানিক ২০/২৫ ফিট দূরে পশ্চিমদিকে পুকুরের মাঝখানে সুবিশাল দু’টি নারকেল গাছ পাশাপাশি দন্ডায়মান রয়েছে।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রয়াত চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের ছেলে সাবেক চেয়ারম্যান ফজলুল হক লিপলু গত ২৮ অক্টোবর সকালে গাছ দু’টি কেটে ফেলার জন্য দুইজন কামলা নিযুক্ত করেন।

কামলারা গাছ কাটা শুরু করলে গাছদু’টি হঠাৎ স্থানচ্যুত হয়ে বিকট শব্দ করে পুকুরের মাঝখানে সরে গিয়ে দাঁড়িয়ে যায়। এ ঘটনায় এলাকাবাসী হতভম্ব হয়ে যায়।

এ ব্যাপারে সাঁথিয়া উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ফারুক হোসেন চৌধুরীর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনি পরীক্ষা করে দেখবেন। তবে এটা কোন দৈবঘটনা নয় বলে তিনি মনে করেন। মাটির স্ট্রাকচারগত কারণে এরকম হয়ে থাকে বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী শহীদুল্লাহর নিকট জানতে চাইলে তিনিও ঘটনাস্থলে গিয়ে এটি পরীক্ষানিরীক্ষা করবেন বলে জানান।

তবে এ ব্যাপারে রফিকুল ইসলাম খান নামে একজন ইঞ্জিনিয়ার জানান, তাল, খেজুর বা নারকেল গাছের গুচ্ছমূলের কারণে অনেক মাটি গোড়ায় ধরে রাখতে পারে।

পুকুরপাড়ের গাছদ্বয়ের নিচের মাটি বিভিন্ন কারণে একটু একটু করে ভেঙে পানির সাথে মিশে কাদায় পরিণত হয়েছে।গাছ কাটার সময় কয়েকজন মানুষ সেখানে একসাথে জড়ো হলে মাটি ভেঙে শেকড়সমেত মাটিসহ পুকুরের মাঝখানে গিয়ে পূর্বেও অবস্থায় বসে যায়।

এ ব্যাপারে উক্ত পুকুরের মালিক সাবেক চেয়ারম্যান ফজলুল হক লিপলুকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি জানান, পুকুরটিতে পাঙ্গাস মাছ আবাদ করার ফলে পুকুরের চারপাশের মাটি ধ্বসে যেতে শুরু করে।

তাই তিনি গাছ দু’টি কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত নেন এবং দুইজন কামলাকে গাছ কাটার দায়িত্ব দেন। এটিকে তিনি কোন দৈব বা অলৌকিক কিছু মনে করেননা বলে অভিমত ব্যক্ত করেন তিনি।

এদিকে উৎসুক লোকজন দূরদূরান্ত থেকে প্রতিদিনি ছুটে আসছে এ অলৌকিক দৃশ্য অবলোকন করার জন্য। সেখানে অনেক নারী-পুরুষকে পুকুরের পানি ও গাছের শেকড় নিতে দেখা গেছে।


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৪:৫৫
    সূর্যোদয়ভোর ০৬:১৬
    যোহরদুপুর ১১:৪৪
    আছরবিকাল ১৫:৩৬
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৭:১২
    এশা রাত ১৮:৪২
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!