বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ১০:১৬ অপরাহ্ন

সাড়ে ৭ শতাংশ ভ্যাটের খড়্গ ই-কমার্সের ওপর

এবারের বাজেটে ই-কমার্স থেকে ভ্যাট অব্যাহতি তুলে নেয়া হয়েছে। এখন থেকে ই-কমার্স কেনাকাটায় সাড়ে ৭ শতাংশ ভ্যাট দিতে হবে।

১৩ জুন বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে বাজেট বক্তৃতায় সোশ্যাল মিডিয়া এস-কমার্স ও ভার্চুয়াল বিজনেসে ই-কমার্সকে অন্তর্ভুক্ত করে এ ভ্যাট আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে।

মূলত ফেসবুক-ইউটিউবসহ বিভিন্ন অনলাইন মাধ্যমের বিজ্ঞাপনকে ভ্যাটের আওতায় আনতে ‘সোশ্যাল মিডিয়া ও ভার্চুয়াল বিজনেজ’ এর সংজ্ঞা দেয়া হয়। সেখানে সাড়ে ৭ শতাংশ ভ্যাট আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে।

আর এ ভ্যাট দিতে হবে ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে যারা পণ্য বিক্রি করেন তাদেরও। অনলাইন কেনাকাটায় এ ক্যাটাগরি এস-কমার্স হিসেবে পরিচিত। দেশে এখন এমন লাখো ছোট ছোট উদ্যোক্তা রয়েছেন।

এমন ভ্যাট আরোপ দেখে উদ্যোক্তারা এতে বিস্মিত। যেখানে ই-কমার্স খাত আলাদা সেবা কোডে ভ্যাটের আওতা মুক্ত ছিল।

খাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘এ খাত বিকাশের পথে এটি আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত। তখনই এ ধরনের সিদ্ধান্ত ক্রেতাদের অনলাইন বিমুখ করবে।

এর আগে গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাবে অনলাইন কেনাকাটায় ৫ শতাংশ ভ্যাট বসানোর কথা বলা হয়েছিল। বাজেট পাসের সময় এ ভ্যাট আর রাখা হয়নি। পরে এটি ছাপার ভুল বলে জানিয়েছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান ও অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. মোশাররফ হোসেন ভুঁইয়া।

ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ই-ক্যাব) সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুল ওয়াহেদ তমাল বলেন, ‘ফেসবুক, ইউটিউব, গুগলকে ভ্যাটের আওতায় আনতে গিয়ে ই-কমার্সকেও ভার্চুয়াল বিজনেস হিসেবে ঢুকিয়ে দেয়া হয়েছে। এ খাত বিকাশে প্রধান অন্তরায় হবে এ ভ্যাটারোপ।’

ভ্যাট প্রত্যাহারের জন্য শনিবার একটি গোলটেবিল বৈঠক করে ই-ক্যাব। এছাড়া সংবাদ সম্মেলন করে সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণের মাধ্যমে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য অনুরোধ জানাবে বলেও জানান ই-ক্যাব সাধারণ সম্পাদক।

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আজকের ডিলের প্রতিষ্ঠাতা এবং বেসিস পরিচালক ফাহিম মাসরুর বলেন, সরকারের যেখানে সবচেয়ে বড় অগ্রাধিকার নতুন উদ্যোক্তা তৈরি ও তরুণদের কর্মস্থান, সেখানে এ ভ্যাট আরোপ সরকারের নিজস্ব নীতির পরিপন্থী। এছাড়া এটি সরকারের ডিজিটাল কমার্স নীতিমালা-২০১৮ এর পরিপন্থী বলেন তিনি।

ভারতের ই-কমার্সে প্রতিদিন ৫০ লাখ ডেলিভারি হয়। আর আমাদের হয় ৩০-৪০ হাজার। তাদের তুলনায় যেটি একশ’ ভাগের এক ভাগও না। এমন হলে সারা পৃথিবী এগিয়ে যাবে, আমরা পিছিয়ে পড়ব।

এতে দেশীয় ই-কমার্স একদমই শেষ হয়ে যাবে। খাতটি এখনও বিকশিত হয়নি। দেশীয় উদ্যোক্তাদের কেউ এখনও লাভের মুখ দেখা তো দূরের কথা উল্টা ক্ষতির চাপ নিয়ে খাতটিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে বলেছিলেন- ফাহিম মাসরুর।

ই-কমার্সে প্রস্তাবিত সাড়ে ৭ শতাংশ ভ্যাট বিষয়ে স্বনামধন্য ই-কমার্স সাইট প্রিয়শপ ডটকমের সিইও আশিকুল আলম খান বলেন, ই-কমার্সে মানুষ এমনিতেই ডেলিভারি চার্জকে বাড়তি বোঝা মনে করে। সেখানে এ সাড়ে ৭ শতাংশ ভ্যাটের বোঝা মানুষকে ই-কমার্স বিমুখ করবে। কেউ এখানে কেনাকাটা করতে আসবে না।

ফেসবুক-গুগল-ইউটিউবের বিজ্ঞাপনের ভ্যাটের সঙ্গে ই-কমার্সকে কীভাবে ঢুকিয়ে দেয়া হল তা বোধগম্য না। বিদেশি কোম্পানির আধিপত্যসহ নানা কারণে দেশীয় ই-কমার্স এখন কোণঠাসা। অনেকগুলো উদ্যোগ বন্ধ হয়ে গেছে। এ অবস্থায় এ ভ্যাটের খড়গ, আমরা শেষ হয়ে যাব, পথে বসে যাব- বলেছিলেন এ উদ্যোক্তা।


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৪:৩৯
    সূর্যোদয়ভোর ০৫:৫৬
    যোহরদুপুর ১১:৪৪
    আছরবিকাল ১৫:৫৪
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৭:৩১
    এশা রাত ১৯:০১
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!