বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:৫২ অপরাহ্ন

সুজানগরে এসিল্যান্ডের স্বাক্ষর জাল করে জমি খারিজ!

বার্তা সংস্থা পিপ, পাবনা : পাবনার সুজানগর উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) মোছাঃ রানুয়ারা খাতুন সহ অন্য কর্মকর্তাদের স্বাক্ষর জালিয়াতি করে জমির নামজারী/খারিজ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে আব্দুল কাদের নামক এক দলিল লেখকের বিরুদ্ধে।

আজ বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সাতবাড়ীয়া ইউনিয়ন ভূমি অফিসে স্থানীয় ভাটপাড়া গ্রামের জহুরুল হক নামক এক ব্যক্তি উক্ত নামজারী/খারিজের কপি নিয়ে দাখিলা/চেক কাটতে গেলে জাল নামজারী কপি বলে সনাক্ত করেন ইউনিয়ন ভূমি সহকারি কর্মকর্তা আবু বকর।

জমির মালিক জহুরুল হক জানান আমার সাড়ে ৪৫ শতক জমি নামজারী/খারিজ করে দেবার কথা বলে পাঁচ হাজার টাকা নেয় উক্ত কাদের।

এবং সেই অনুযায়ী গত বছরের ডিসেম্বর মাসের ১৫ তারিখে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের স্বাক্ষরযুক্ত জমির খারিজ কপি আমাকে প্রদান করে সে।

এরপর আমি কিছু জমি বিক্রি করার জন্য সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন ভূমি অফিসে বুধবার নামজারী কপি নিয়ে দাখিলা/চেক কাটার জন্য গেলে নামজারী কপিটি জাল বলে জানায় কর্মকর্তারা।

অভিযুক্ত দলিল লেখক আব্দুল কাদের উপজেলার হাটখালী গ্রামের মৃত ইসমাইল হোসেনের ছেলে এবং সে হাটখালী ইউনিয়ন বিএনপির বর্তমানে যুগ্ন আহবায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন বলে জানায় ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক নায়েব আলী বিশ্বাস।

সাতবাড়ীয়া ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আবু বকর জানান জহুরুল হক তার নামে ২৪৫৭/১৮-১৯, হিসাব নং ৬৮০ নামজারী কেস নিয়ে আমার কাছে দাখিলা/চেক কাটতে আসে।

এ সময় আমার নাম আবু বকর হলেও খারিজ কপিতে যে সিল ব্যবহার করা হয়েছে সেখানে আবু বক্কার উল্লেখ করায় আমার সন্দেহ হয়। এ সময় অফিসের নথিপত্রে দেখাযায় ৬৮০ নং এর যে খতিয়ান সেটি আমিরুল ইসলাম গং এর নামে।

এ ছাড়া উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার মিজানুর রহমান এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোছাঃ রানুয়ারা খাতুনের যে স্বাক্ষর দেওয়া হয়েছে সেটিও তাদের প্রকৃত স্বাক্ষরের সাথে মিল না থাকায় বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গে আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগতি করি।

সুজানগর উপজেলা দলিল লেখক সমিতির সভাপতি আলহাজ ইসমাইল হোসেন বলেন অভিযুক্ত দলিল লেখক আব্দুল কাদেরের লাইসেন্স/সনদ নং ৮০, আর এ ধরণের জালিয়াতি করায় তার লাইসেন্স বাতিলের জন্য সমিতির পক্ষ থেকে আমরা সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ আবেদন করবো।

সুজানগর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহজাহান আলী ও সাধারণ সম্পাদক এম এ আলিম রিপন বলেন যারাই এ ধরণের ঘটনার সাথে জড়িত থাকবে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহন করলে এ ধরণের জালিয়াতি আর কেউ করার সাহস পাবেনা।

সুজানগর উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) মোছাঃ রানুয়ারা খাতুন জানান জাল নামজারীতে আমার স্বাক্ষরের নিচে ২১/১২/২০১৮ যে তারিখ উল্লেখ করা হয়েছে সে দিনটি ছিল শুক্রবার।

তিনি আরো জানান জালিয়াতির বিষয়টি জানার পরপরই সাতবাড়ীয়া ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আবু বকর বাদী হয়ে জালিয়াতের অভিযোগে দলিল লেখক আব্দুল কাদের এর নামে একটি মামলা করেছেন।

সুজানগর থানা পুলিশ জানান, অভিযুক্ত ব্যক্তিকে ধরতে পুলিশ অভিযান অব্যহত রেখেছে।

সুজানগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজিৎ দেবনাথ জানান জালিয়াতের এ ঘটনায় কাদেরের সাথে অন্য কেউ জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধেও আইনানুগ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


    পাবনায় নামাজের সময়সূচি
    ওয়াক্তসময়
    সুবহে সাদিকভোর ০৫:০৮
    সূর্যোদয়ভোর ০৬:৩১
    যোহরদুপুর ১১:৫২
    আছরবিকাল ১৫:৩৭
    মাগরিবসন্ধ্যা ১৭:১৩
    এশা রাত ১৮:৪৩
© All rights reserved 2019 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!