সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ০২:২২ পূর্বাহ্ন

সৌদিকে খাসোগির দেহাবশেষ ফিরিয়ে দিতে বলছে যুক্তরাষ্ট্র

জামাল খাসোগির দেহাবশেষ কোথায় তা প্রকাশ করতে সৌদি আরবের কাছে আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আর সেই সঙ্গে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর থেকে পরোক্ষভাবে এই আহ্বান জানানো হয়। সেই সঙ্গে হত্যাকাণ্ডে জড়িত ও এর নির্দেশদাতাদেরও বিচার করা হবে বলে আশ্বাস দেয়া হয়।

রিয়াদের প্রতি ওয়াশিংটনের এই আহ্বানের মধ্যে খাসোগি হত্যাকাণ্ড নিয়ে নতুন তথ্য সামনে এসেছে।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোগানের এক উপদেষ্টা বলেছেন, খাসোগির লাশ টুকরো টুকরো করার পর এসিড দিয়ে গলিয়ে ফেলা হয়।

সৌদি ইতিমধ্যে ইস্তাম্বুল কনস্যুলেটে খাসোগি হত্যার কথা স্বীকার করেছে। তবে এর দায় চাপিয়েছে ‘অজ্ঞাত দুর্বৃত্ত’দের ওপর। কিন্তু লাশ কোথায় তা এখনও পর্যন্ত জানাতে পারেনি।

এ বিষয়ে স্পষ্ট তথ্য জানতে চেয়েছে তুরস্ক ও জাতিসংঘ।

বৃহস্পতিবার এ ব্যাপারে এক বিবৃতি দিলেও সৌদি আরবের নাম মুখে আনেনি মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর। দফতরের মুখপাত্র রবার্ট প্যালাডিনো বলেন, ‘যারা হত্যাকাণ্ড চালিয়েছে ওয়াশিংটন শুধু তাদেরই বিচারের আওতায় আনবে না, যারা এর নেতৃত্বে ছিল তাদেরও ছাড় দেয়া হবে না।’

এ পর্যন্ত তথ্য-উপাত্ত অনুযায়ী, হত্যার নেপথে যুবরাজ মোহাম্মদের হাত থাকার অভিযোগ পাওয়া গেলেও রিয়াদের ওপর স্পষ্ট কোনো পদক্ষেপ নেয়নি ওয়াশিংটন।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পে বলেছেন, এ ব্যাপারে সৌদির ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হবে। এতে ‘আরও কয়েক সপ্তাহ’ সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন তিনি। বৃহস্পতিবার এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন।

এদিকে খাসোগি হত্যার ব্যাপারে নতুন তথ্য দিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগানের উপদেষ্টা ও খাসোগির এক বন্ধু ইয়াসিন আকতাই।

পেশায় সমাজবিজ্ঞানী আকতাই বলেছেন, খাসোগির লাশ এসিড দিয়ে পুড়িয়ে ফেলা হয়। সহজেই লুকানোর উদ্দেশ্যে এ কাজটা করা হয়।

তুর্কি সংবাদমাধ্যম হুরিয়েত ডেইলিকে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমাদের আগে জানানো হয়েছিল, খাসোগির লাশ টুকরো টুকরো করে ফেলা হয়েছে। কিন্তু এখন জানছি, তাকে শুধু টুকরো টুকরোই করা হয়নি, এসিড দিয়ে গলিয়ে ফেলা হয়েছে। নিশ্চিহ্ন করে ফেলা হয়েছে।’


© All rights reserved 2018 newspabna.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!