রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১২:১৬ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

অগনিত মানুষের মন জয় করেছেন জয়া

image_pdfimage_print

দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান। দক্ষ অভিনয়ের মাধ্যমে দেশে বিদেশে অগনিত মানুষের মন জয় করেছেন। তার অভিনয় দেখে বলিউডের রানী মুখার্জি, ইরফান খান ও ঋষি কাপুরসহ অনেক বড় বড় অভিনেতারাও মুগ্ধতা প্রকাশ করেছেন।

বিশেষ করে গত ১০ মে জয়ার নতুন সিনেমা ‌‘কণ্ঠ’ মুক্তির পর থেকে টানা ২৫ দিন ধরে ৩০টা শো হাউজফুল যাচ্ছে কলকাতায়। এরপর থেকে অনেকেই জয়ার আসল নাম ভুলে তাকে সবাই ‘কন্ঠ’ সিনেমার চরিত্র রুমেলা নামে ডাকতে শুরু করেছেন।

এনডিটিভির এক সাক্ষাতকারে জয়া বলেন, ‘এটাই তো চাই। দর্শক আমার আসল নাম ভুলে যাক। চরিত্রের নাম ধরে ডাকুক। একটা ছবি থেকে এটাই আমাদের পাওনা।’

তিনি বলেন, আমি যে ধরনের চরিত্র করে এসেছি এতদিন তার সঙ্গে রুমেলাকে একেবারেই মেলানো যাবে না। নিজে যন্ত্র দিয়ে কথা বলা আর সেটা অন্যকে শেখানোই ছিল আমার চরিত্রের কাজ। যেটা একেবারেই সহজ নয়। যেমন, যন্ত্র দিয়ে কথা বলা অভ্যেস করতে স্পিচ থেরাপিস্ট সোমনাথ মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে বেশ কয়েকবার বসতে হয়েছে। ল্যারিঙ্স ক্যান্সারে আক্রান্ত পেশেন্টদের সঙ্গে কথা বলা। তাদের লড়াইকে সামনে থেকে দেখা। তাদের অভিজ্ঞতা জানা। এই সবটাই আমাকে রুমেলা হয়ে উঠতে সাহায্য করেছে।

সিনেমার অপর নায়িকা পাওলী দামের সম্পর্কে জয়া বলেন, আমরা দু-জনেই জানতাম আমাদের কতটা কী করতে হবে। আমার কাজ আমার মতো করেই করতে হয়েছে। আবার পাওলি যেহেতু শিবুদার অনস্ক্রিন বউ তো অনেক বেশি ডিটেলিং ছিল ওর ক্ষেত্রে। তারপরেও আমার কোনও অসুবিধে হয়নি। আশা করি, পাওলিরই একই মত। বরং ওর সঙ্গেই আমার প্রথম শট ছিল। প্যাকআপের পর বা সেটে কাজের ফাকে আমরা মজা করতাম।

কলকাতার বিখ্যাত পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় ও কৌশিক গাঙ্গুলির সঙ্গে কাজের বিষয়ে জয়া বলেন, এটা আমার পরম পাওয়া। আমি শতভাগ মন দিয়ে কাজ করি। হয়তো তাই ওদের পছন্দের তালিকায় আমি আছি। আল্লাতালার কাছে কৃতজ্ঞ যে এই মাপের মানুষেরা আমায় ভালোবাসেন।

আলোচিত ‘কন্ঠ’ সিনেমা প্রসঙ্গে জয়া বলেন, ‘ক্যান্সারকে নিয়ে ছবি, কিন্তু কোথাও হতাশা নেই। বিয়োগান্ত শেষ নয়। বরং লড়াই করে বেঁচে বেরিয়ে আসার অনুপ্রেরণা জোগায় এই ছবি। লড়াই করে ফুরিয়ে যাওয়া নয়, জীবন নতুন করে শুরু করার গল্প বলে। জীবনকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়তে শেখায় এই ছবি। অথচ, কোথাও অতিরঞ্জন নেই। পুরোটাই সত্য ঘটনা অবলম্বনে তৈরি। বাস্তবধর্মী। এই জন্যেই মানুষ বারেবারে ছবিটা দেখছেন।’

সিনেমাটি প্রচারণার জন্য কলকাতার রাজ্য স্কুল শিক্ষা দপ্তরের উদ্যোগে ‘তামাকবিরোধী প্রচার’ কার্যক্রমের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ‘কণ্ঠ’। এ ছবির গানের সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন অনুপম রায়। গানে কণ্ঠ দিয়েছেন সাহানা বাজপেয়ী। জয়া আহসান ছাড়াও ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, পাওলি দাম, কণিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিপ্লব দাশগুপ্ত ও পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায় প্রমুখ।

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!