সোমবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:১৬ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

আগামী নির্বাচনে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হচ্ছে ভূমিমন্ত্রীকে!

মন্ত্রী পিতার সাথে পুত্র তমাল

image_pdfimage_print

নিজস্ব প্রতিবেদক : আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকেন্দ্রীক আলোচনায় পাবনা-৪ ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া আসনের সংসদ সদস্য পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফকে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে এমন কথা উঠে আসছে বারবার।

কারণ সন্ত্রাসের মামলায় ভূমিমন্ত্রীর ছেলে শিরহান শরীফ তমালকে গ্রেপ্তারের পর এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়েছে। নির্বাচনকেন্দ্রীক আলোচনায় উঠে আসছে এই ঘটনাটি। ফলে মন্ত্রীর নির্বাচনী ইমেজ কিছুটা হলেও ফিকে হয়ে আসছে।

বিগত দিনগুলিতে ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া আসনটিতে আওয়ামী লীগের শক্তিশালী অবস্থানের ইতিহাস রয়েছে। তবে বর্তমানে ঈশ্বরদীর রাজনীতিতে ব্যাপক পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

ভূমিমন্ত্রীর সঙ্গে তার জামাতার বিরোধে অনেকটাই আওয়ামী লীগ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে মানুষ। যার প্রভাব পড়বে আগামী নির্বাচনে।

আগামী সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে ভূমিমন্ত্রী ছাড়াও তার মেয়ে জামাই ও ঈশ্বরদী পৌর মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টুর নাম শোনা যাচ্ছে।

এছাড়াও আওয়ামী লীগের মনোয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে কেন্দ্রীয় সেচ্ছাসেবক লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম লিটন, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী রবিউল আলম বুদু ও জাসদ থেকে আওয়ামী লীগে আসা সাবেক সংসদ সদস্য পাঞ্জাব আলী বিশ্বাসের নাম শোনা যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, পাবনা-৪ আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য শামসুর রহমান শরীফ এখন পর্যন্ত ছয়বার নৌকা প্রতীক পেয়ে নির্বাচন করেছেন এবং তিনি নির্বাচিত হয়েছেন ৪ বার।

ছাত্রলীগের তৎকালীন সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পান ১৯৯১ সালের নির্বাচনে। বাদ পরে যান তৎকালীন ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলু।

সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে হেরে যান হাবিব। পরে ১৯৯৬ সালের সংসদ নির্বাচনের আগে দল বদল করে হাবিব আওয়ামী লীগ থেকে বিএনপিতে যোগ দেন। তখন সাধারনভাবেই মনোনয়নে নাম উঠে আসে এই প্রবীন আওয়ামী লীগ নেতার।

সেই সময় হাবিব বিএনপিতে যোগ দিয়ে মনোনয়ন বঞ্চিত হন। বিএনপি থেকে মনোনয়ন পান সিরাজ সর্দার। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেন হাবিব। একদলে দুই প্রার্থীর কোন্দলে পরে বিএনপি, নির্বাচনে জিতে যান শামসুর রহমান শরীফ ডিলু। এরপরে আর ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। একে একে অষ্টম, নবম ও দশম সংসদ নির্বাচনে জিতে যান তিনি।

তবে একাদশ সংসদ নির্বাচনে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হচ্ছে তাকে। কারণ, পারিবারিক বিরোধ ভাবিয়ে তুলেছে তাকে। স্বজনপ্রীতির অভিযোগের পাশাপাশি দলীয় কর্মীদের অবমূল্যায়নের অভিযোগও উঠেছে তার বিরুদ্ধে। এ কারণে দলের একটি বড় অংশ প্রকাশ্যেই তার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে।

ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া এলাকায় ভূমিমন্ত্রীর গৃহবিবাদে সাধারণ মানুষও অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। এদিকে জামাই-শ্বশুরের নিয়মিত বিবাদে ঈশ্বরদী আতঙ্কের শহরে পরিণত হয়েছে।

ঘটছে হামলা-ভাঙচুর, চাঁদাবাজিসহ হত্যার মতো ঘটনাও। ফলে আগামী সংসদ নির্বাচনে পাবনা-৪ আসন থেকে দলীয় মনোনয়নের বিষয়টি নিয়েও নানা আলোচনা সমালোচনা চলছে।

উল্লেখ্য, গত কদিন পূর্বে ঈশ্বরদীতে মুখে কালো কাপড় বেঁধে দুটি খাবার দোকান ও দুটি বাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে সন্ত্রাসীরা। এসময় উপজেলা যুবলীগের সভাপতি যুবায়ের বিশ্বাসের বাড়িতে হামলা চালালে যুবায়েরের মা আহত হন। এঘটনায় যুবায়ের বিশ্বাসের বাবা আতিয়ার বিশ্বাস বাদী হয়ে ৩৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

মামলা করার ৭ ঘন্টার মাথায় গ্রেফতার হন পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর ছেলে যুবলীগ নেতা শিরহান শরীফ তমাল। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তিনবার তমালের জামিন আবেদন নাকোচ করে দিয়েছে আদালত।

আগামী নির্বাচনে এই সকল ঘটনার একটা প্রভাব পরবে বলে মনে করছেন পাবনা-৪ আসনের সাধারণ মানুষ।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!