আটঘরিয়ায় বিয়ের প্রলোভনে মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ

বার্তা সংস্থা পিপ, পাবনা : পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার একদন্ত ইউনিয়নের নয়নগর (বেলদহ) গ্রামে দীর্ঘ দিন ধরে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে রুহুল আমিন ওরফে রুবেল নামক এক লম্পট মাদরাসার ছাত্রীকে ধর্ষণ করে আসছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এঘটনায় আটঘরিয়া থানায় একটি মামলা হয়েছে। মামলা নং ০৯।

এজাহার ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, শাহাদত হোসেনের মেয়ে চৌবাড়ীয়া দাখিল মাদরাসার দশম শ্রেনীর ছাত্রীর সাথে দীর্ঘ ৪বছর ধরে একই গ্রামের আব্দুস সালাম প্রামানিকের লম্পট ছেলে রুহুল আমিন ওরফে রুবেল সুকৌশলে কু-প্রস্তাব ও প্রেম প্রস্তাব দিত।

একপর্যায়ে মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে অবৈধ শারীরিক সর্ম্পক গড়ে তোলে।

গত ২৩ জুন সহযোগি বিপ্লব হোসেন তার স্ত্রীকে কৌশলে বাড়ী থেকে অন্য বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। এই সুযোগে বাড়ী ফাকা পেয়ে বিপ্লব হোসেন ও রুহুল আমিন ধর্ষণ করে।

এসময় মেয়ের বাবা মেয়েকে বাড়িতে না পেয়ে খুজতে খুজতে সহযোগি বিপ্লবের বাড়িতে যায়। সেখানে রুবেল ও তার মেয়েকে অশ্লীল ও বিবস্ত্র অবস্থায় দেখতে পেয়ে মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে যান।

ঘটনাটি জানা জানি হলে গ্রাম্য প্রধানদের কাছে তার মেয়ের সুষ্ঠ বিচার না পেয়ে গত ২৮/০৬/২০২০ইং আটঘরিয়া থানায় ধারা ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী /০৩) এর ৯ (১) মামলা দায়ের করে।

মেয়ের বাবা ও বাদী শাহাদত হোসাইন জানান, এই ঘটনার পর থেকে আসামী পক্ষ ধর্ষিতার পরিবারকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিচ্ছে।