মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৫৩ পূর্বাহ্ন

ইন্টারেনট দুনিয়ায় ঝড় ওঠা সেই রবিউল এখন পাবনা মানসিক হাসপাতালে

বার্তাকক্ষ : সম্প্রতি ইন্টারেনট দুনিয়ায় ঝড় ওঠা রবিউল পনেরো বছর ধরে শেকলবন্দী। সামান্য জ্বর থেকে শরীরে নানা উপসর্গ। এরপর থেকে সম্পূর্ণ মানসিক ভারসাম্যহীন এই তরুণ। বোয়ালমারী উপজেলার পশ্চিম চরবর্ণি গ্রামের বাসিন্দা মো. ওসমান মোল্লা ওরফে রবিউলকে (৩৬) মঙ্গলবার (০৩ আগস্ট) পাবনার হেমায়েতপুরের মানসিক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

গত ১ আগস্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ঝোটন চন্দ স্বাক্ষরিত একটি চিঠি হাসপাতালের পরিচালক বরাবর পাঠানো হয়। চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, ‘সম্প্রতি রবিউলের অসুস্থতার খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা উপজেলা প্রশাসনের নজরে আসে। এমতাবস্থায় ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের পরামর্শে তাঁকে উন্নত মানসিক চিকিৎসার জন্য আপনার হাসপাতালে পাঠানো হলো। তাঁর বাবা একজন ভ্যানচালক ও আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল।’ তাঁকে প্রয়োজনীয় মানসিক চিকিৎসা দিতে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য চিঠিতে অনুরোধ করা হয়।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা প্রকাশ কুমার বিশ্বাস জানান, রবিউলের চিকিৎসার জন্য গতকাল সোমবার জাতীয় সমাজ কল্যাণ পরিষদ থেকে পাঁচ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়েছে। তাঁর পরিবারকে সমাজসেবা অধিদপ্তর থেকে আরও অর্থ সহায়তা দেওয়া হবে।

আজ ভোর ৬টায় গ্রামের বাড়ি থেকে একটি মাইক্রোবাস রবিউলকে নিয়ে পাবনার উদ্দেশে রওনা দেয়। রবিউলের সঙ্গে আছেন তাঁর বাবা মো. নুরুল মোল্লা, ফুফু সাজেদা বেগম ও ফুফা আমিনুর রহমান।

বাড়িতে থাকা মা আসমা বেগমের দুঃশ্চিন্তা, ‘তাঁরা (হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ) ছাওয়ালডারে ঠিকমত খাওয়াতি পাইরবেনে কি–না। সে হাসপাতালে একা থাকতি পাইরবেনে?’ তবুও মায়ের আশা, ছেলেটা যদি সুস্থ হয় অন্তত নিজে কামাই রোজগার করে খেয়েপরে বেঁচে থাকতে পারবে।

বোয়ালমারী থানার ওসি মোহাম্মদ নুরুল আলম বলেন, এসপি স্যারের নির্দেশে আমরা রবিউলের বাবার কাছে তাঁর চিকিৎসার জন্য পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে গতকাল সোমবার নগদ ১৫ হাজার টাকা দিয়েছি। এছাড়া তাঁর পাবনা যাতায়াতের মাইক্রোবাসটি আমরা থানা পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা করে দিয়েছি।

পাবনা মানসিক হাসপাতালের পরিচালক ডা. আবুল বাশার মো. আসাদুজ্জামান মোবাইল ফোনে বলেন, বোয়ালমারীর ইউএনওর একটি দাপ্তরিক চিঠি পেয়েছি। মানসিক ভারসাম্যহীন রবিউলকে আজই এখানে ভর্তি করা হয়েছে। একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করে আগামী একমাস আমরা তাঁকে চিকিৎসা দেব। এরপর তাঁর শারীরিক অগ্রগতি জানাতে পারবো।

ছোলনা মহল্লার যুবক মো. হেদায়েতুর রাফির ফেসবুকে শেকলবন্দী রবিউলের একটি ছবি পোস্ট করলে বিষয়টি জানাজানি হয়। গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন পত্রিকায় সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

0
1
fb-share-icon1


© All rights reserved 2021 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
x
error: Content is protected !!