বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:৩৮ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

ঈদে ঘুরে আসুন বেড়ার হুরাসাগর পারে

image_pdfimage_print

বার্তাকক্ষ : স্বাস্থ্য বিধি মেনে ঘুরে আসতে পারেন পাবনার বেড়া উপজেলার হুরাসাগর নদের পারে। ভরা বর্ষায় ফুলে-ফেঁপে অনেকটা সাগরের আমেজ সৃষ্টি করে এই হুরা সাগর।

বেড়া পৌরসভার পোর্ট নামক স্থানে হুরাসাগরপারে দাঁড়ালে যে-কারোরই মন আনন্দে ভরে ওঠে।

এই আনন্দ আরও বেড়ে যায় ইঞ্জিনচালিত নৌকা ভাড়া করে নদের বুকে ঘুরে বেড়ানোয়।

তাই পুরো বর্ষায় ওই স্থানে ভিড় লেগে থাকে। আর ঈদের মতো উৎসব এলে তো কথাই নেই।

পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) ও এলাকাবাসী জানান, বেড়া নৌবন্দর পুনরুজ্জীবিত প্রকল্পের আওতায় ২০০৬ সালে পাউবো বেড়া পৌর এলাকার ডাকবাংলোর পাশে নৌঘাট নির্মাণ করে।

হুরাসাগরপারে জেলা বন্যানিয়ন্ত্রণ বাঁধসংলগ্ন নৌঘাটটি লম্বায় ২৭৫ মিটার। এর দুই পাশ ১০০ মিটার করে নদের দিকে বাড়ানো।

প্রায় পাঁচ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত গোটা অংশ সিঁড়ির মতো ধাপে ধাপে বাঁধানো। নানা জটিলতার মুখে একপর্যায়ে পাউবো নৌবন্দর পুনরুজ্জীবিত প্রকল্পটি বাতিল করে।

এর ফলে বাঁধানো ঘাটের অংশ ওভাবেই পড়ে থাকে।

ভালো যোগাযোগব্যবস্থার কারণে একপর্যায়ে ওই এলাকা মানুষের কাছে ভ্রমণের আদর্শ জায়গা হিসেবে গড়ে ওঠে।

সবার কাছে জায়গাটির নাম পোর্ট বলে পরিচিতি পায়।

শুধু বেড়া উপজেলাই নয়, পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন উপজেলার মানুষ, এমনকি পাবনা ও সিরাজগঞ্জ শহরের মানুষও প্রতিদিন পোর্টে বেড়াতে আসে।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে মানুষের ভিড় এবার ব্যাপক বেড়ে গেছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, পরিবারের সদস্যদের নিয়ে দূর-দূরান্ত থেকে অনেকেই মাইক্রোবাস, প্রাইভেট কার, সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও মোটরসাইকেল নিয়ে পোর্টে বেড়াতে এসেছেন।

কেউবা এসেছেন ব্যাটারিচালিত রিকশা অথবা অটোভ্যানে চড়ে। পোর্ট এলাকায় বাঁধের সড়কের ওপর মেলার মতো পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে।

সেখানে বাচ্চাদের খেলনা থেকে শুরু করে খাবারের অসংখ্য দোকান বসেছে।

বাঁধানো ঘাটজুড়ে ৪০ থেকে ৫০টি ইঞ্জিনচালিত নৌকা দেখতে পাওয়া যায়। বেড়াতে আসা লোকজন সেগুলো ঘণ্টা হিসাবে চুক্তি করে হুরাসাগর নদের আশপাশে বেড়াতে যাচ্ছেন।

একটি নৌকার মাঝি মোহম্মাদ আলী বলেন, ‘এমনিতে আমরা প্রতি ঘণ্টার জন্য দেড় থেকে দুই শ টাকা নিই। কিন্তু ঈদের জন্য কিছুটা বেশি নিচ্ছি।

বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই লোকজন হুরাসাগরের উল্টো পারে গ্রামের ভেতরে নৌকায় বেড়াতে যায়। কেউ কেউ আবার নদের উজানে বা ভাটির দিকেও যায়।’

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলা থেকে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে বেড়াতে আসা মাসুম মিয়া বলেন, ‘এই জায়গাটি (পোর্ট) ছাড়া আশপাশে বেড়ানোর তেমন ভালো জায়গা নেই। এখানে কক্সবাজার বা কুয়াকাটা সৈকতের আমেজ পাই। তাই ছুটি পেলে এখানে প্রায়ই বেড়াতে আসি।’

বেড়া পৌর এলাকার বাসিন্দা ও স্থানীয় একটি কলেজের শিক্ষক বলেন, ‘পোর্ট এলাকাটি অন্যতম বিনোদনকেন্দ্র হিসেবে গড়ে উঠেছে। আমরা তো এখানে বেড়াতে আসিই, বাড়িতে আত্মীয়স্বজন এলে তাদেরও স্থানটি দেখানোর জন্য আনা হয়।’


পাবনার কৃতী সন্তান অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী

পাবনার কৃতী সন্তান অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী

পাবনার কৃতী সন্তান অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী

Posted by News Pabna on Tuesday, August 18, 2020

পাবনার কৃতি সন্তান নাসা বিজ্ঞানী মাহমুদা সুলতানা

পাবনার কৃতি সন্তান নাসা বিজ্ঞানী মাহমুদা সুলতানা

পাবনার কৃতি সন্তান নাসা বিজ্ঞানী মাহমুদা সুলতানা

Posted by News Pabna on Monday, August 10, 2020

© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!