মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১১:৪৮ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

ঈদ সামনে, হাসি নেই পাবনার তাঁত পল্লীতে

ঈদ সামনে, হাসি নেই পাবনার তাঁত পল্লীতে

image_pdfimage_print

বিশেষ প্রতিনিধি : বেচাকেনা কমে যাওয়ায় হতাশ হয়ে পড়েছেন পাবনার তাঁতীরা। ঈদকে সামনে রেখে অধিক শাড়ী তৈরি করে এখন অনেকটা বিপাকে পরেছেন তারা।

আর কয়েকদিন পরেই ঈদ হলেও এখনও জমে ওঠেনি পাবনার তাঁতের শাড়ীর বাজার। ফলে হতাশ হয়ে পরেছেন পাবনার তাঁতীরা।

কদিন আগেই পাবনা সদর উপজেলার দোগাছি, ভাড়ারা, জালালপুর, নতুনপাড়া, গঙ্গারামপুর, বলরামপুর, মালঞ্চি, কুলুনিয়া, খন্দকারপাড়া, কারিগরপাড়া, সাঁথিয়া উপজেলার ছোন্দহ, ছেচানিয়া, জোড়গাছা, সনতলা, কাশিনাথপুর, বেড়া উপজেলার কৈটলা, পাটগাড়ীসহ বিভিন্ন এলাকায় তাঁতের খট খট শব্দে মুখরিত ছিলো।

সেই সময়ে তৈরি করা শাড়ীগুলো ঈদ সামনে রেখে বিক্রির আশা নিয়ে তৈরি করলেও এখনও তেমন জমে ওঠেনি তাঁতশাড়ীর বাজার।

তাঁত ব্যবসায়ী শফিকুর রহমান ফিরোজ জানান, ঈদকে সামনে রেখে বিপুল পরিমাণ শাড়ী তৈরী করা হয়েছে। কিন্তু কালের বিবর্তনে মেয়েরা থ্রি-পিচের দিকে ঝুঁকে পড়ায় এবার লোকসান গুনতে হবে মনে হচ্ছে।

আবার পার্শ্ববর্তী সিরাজগঞ্জের বৃহত্তম এনায়েতপুর, সোহাগপুর, নিউমার্কেট ও শাহজাদপুর কাপড়ের হাট থেকেও বিপুল পরিমাণ শাড়ী পাবনায় আসছে ফলে মার খাচ্ছে পাবনার তাতীঁরা।

রং ও তাঁত ব্যবসায়ী রতন জানান, রং এর দামের সাথে শ্রমিক মজুরী বৃদ্ধি পেয়েছে। এভাবে চলতে থাকলে শুধু কাপড় নয় তাঁত বিক্রি করেও ঋণ পরিশোধ করাও সম্ভব নয়। কারন এবার শাড়ির বাজার মন্দা।

সুতা ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান জানান, তুলার সঙ্কট এবং আন্তর্জাতিক বাজারে সুতার দাম বৃদ্ধির কারণেই স্থানীয় বাজারে সুতার দাম বেড়ে যায়।

তাঁত একটি শিল্প হওয়া সত্ত্বেও সরকার বাজেট বরাদ্দকালীন এ শিল্পের দিকে নজর না দেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ব্যবসায়ীরা।

তাঁতশিল্পকে রক্ষা করতে অবৈধ পথে ভারতীয় শাড়ি আসা বন্ধ ও রং-সুতার দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

তাঁতশিল্পকে রক্ষার জন্য ভারতীয় শাড়ি আসা বন্ধ ও রং-সুতার দাম কমাতে সরকার দ্রুত পদক্ষেপ নিবেন এমনটাই দাবি তাঁতীদের।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!