ঈশ্বরদীতে ট্রাক চাপায় রূপপুর প্রকল্পের শ্রমিক নিহত

উপজেলা করেসপন্ডেন্ট : পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় বাড়ি থেকে রূপপুর প্রকল্পে কাজে আসার সময় সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হওয়া মোবারক হোসেন (২৩) অবশেষে মৃত্যু বরন করেছেন।

তিনি রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের (আরএনপিপি) আহত শ্রমিক ছিলেন।

বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) দুপুরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রামেক) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়।

তার আগে সকালে ঈশ্বরদী-কুষ্টিয়া মহাসড়কের নতুন হাট গোলচত্বরে নাটোর থেকে কুষ্টিয়াগামী মালবাহী ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ব্যাটারি চালিত একটি অটোরিক্সাকে চাপা দেয়।

অটোরিকশায় থাকা রুপপুর পারমাণবিক প্রকল্পে কর্মরত পাঁচ শ্রমিকসহ অটোরিকশাচালক আহত হন।

এর মধ্যে আহত হওয়া মোবারক হোসেন (২৩) অবশেষে মৃত্যু বরন করেন।

নিহত মোবারক ঈশ্বরদী উপজেলার সলিমপুর ইউনিয়নের জগন্নাথপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে এবং রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের নির্মাণ কাজের রাশিয়ানদের মালিকাধীন সাব-ঠিকাদারি নিকিমথ কোম্পানির শ্রমিক ছিলেন।

ঈশ্বরদীর সলিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ বাবলু মালিথা জানান, আজ সকালে প্রতি দিনের মতো রুপপুর পারমাণবিক প্রকল্পে কাজে যোগদানের জন্য তারা একটি ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সা যোগে ৫ শ্রমিক রুপপুরের দিকে আসছিলেন।
বিপরীতগামী একটি ট্রাক অটোটিকে চাপা দেয়। এতে মোবারক হোসেন (২৩), তরিকুল ইসলাম (৪৫), সাগর হোসেন (২৪), খাইরুল ইসলাম (২৬) ও মিনারুল ইসলাম গুরুতর আহত হন।

তাৎক্ষণিকভাবে খবর পেয়ে ঈশ্বরদী ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্সের উদ্ধারকর্মীরা ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চিকিৎসাধীন অবস্থায় মোবারক ও তরিকুলের অবস্থা গুরুতর হওয়ার কারণে তাদের দুজনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

পাকশী হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আক্তারুজ্জামান আক্তার জানান, আহত মোবারকের মৃত্যুর খবর পেয়েছি।

দূর্ঘটনার পর চালক-হেলপার পলাতক রয়েছে। দূর্ঘটনাস্থল থেকে ট্রাক (ঢাকা মেট্রো-ট- ২০-৯৩৪৫) আটক করে ফাঁড়িতে আনা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।