রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১০:৪৪ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

ঈশ্বরদীতে ত্রিশ লক্ষ শহিদের স্মরণে ৩০ লক্ষ তাল গাছ রোপনের উদ্যোগ

ছবি : সংগৃহীত

image_pdfimage_print

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি : ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে ত্রিশ লক্ষ শহিদের স্মরণে সারা দেশে ৩০ লক্ষ তাল গাছ রোপনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্বর্ণপদক প্রাপ্ত ঈশ্বরদীর কৃষক দম্পতি সিদ্দিকুর রহমান ময়েজ ও বেলী বেগম ।

বাংলাদেশ কৃষক উন্নয়ন সোসাইটির সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু জাতিয় কৃষি পদক প্রাপ্ত কৃষক সিদ্দিকুর রহমান কূল ময়েজ ঈশ্বরদী-ঢালারচর রেল লাইনের দুই ধার দিয়ে এই তালের গাছ রোপন শুরু করবেন।

আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে তাল গাছ রোপন বিষয়ে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইন্সটিটিউট (বিএসআরআই) এর মহাপরিচালক ড. মোঃ আমজাদ হোসেন।

ত্রিশ লক্ষ শহিদের স্মরণে কৃষক দম্পতির ৩০ লক্ষ তাল গাছ রোপন

ঈশ্বরদীর কৃষক দম্পতি সিদ্দিকুর রহমান ময়েজ ও বেলী বেগম

সিদ্দিকুর রহমান কূল ময়েজের সভাপতিত্বে এসময় আলোচনায় অংশ গ্রহন করেন, মালয়েশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আমিরুল ইসলাম, তাঁর স্ত্রী সুফিয়া সুলতানা, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রওশন জামাল, সমিতির সাধারন সম্পাদক আব্দুল জলিল কিতাব মন্ডল, পদকপ্রাপ্ত কৃষাণি বেলি বেগম, আমিরুল ইসলাম, আব্দুল বারী, কৃষক আব্দুল হাই, আব্দুল হাকিম, আবু তালেব, কবির মালিথা প্রমূখ।

সিদ্দিকুর রহমান কূল ময়েজ তাঁর পরিকল্পনা ব্যক্ত করে বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে এদেশের ৩০ লাখ মানুষ শহিদ হয়েছেন। তাঁদের স্মরণে ও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে বর্তমানে বজ্রপাতের হাত হতে রক্ষা পেতে এই চারা রোপনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

ঈশ্বরদী-ঢালারচর রেল লাইনের দুই ধার দিয়ে তাল গাছের চারা প্রথম পর্যায়ে রোপন করা হবে। এই কর্মকান্ডে বাংলাদেশ কৃষক উন্নয়ন সোসাইটির বিভিন্ন জেলার সদস্যরা অংশ গ্রহন করবেন বলে তিনি জনিয়েছেন।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে তালের বীজ সংগ্রহের কাজ শুরু হয়েছে। এই মৌসুমে ৬ লাখ তাল গাছ রোপন করা হবে। পর্যায়ক্রমে পাঁচ বছরে স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তির আগেই বাকি তাল গাছ রোপন করা হবে।

তিনি বলেন, বজ্রপাতে কৃষকেরই সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি ঘটছে। কারণ কৃষকেরা মাঠে কাজ করার সময় ঝড়-বৃষ্টি ও বজ্রপাত কোথাও আশ্রয় নিতে না পারায় বজ্রপাতের আঘাতে নিমিষেই মৃত্যুবরণ করেন।

এসময় তিনি গত ১০ই সেপ্টেম্বর ঈশ্বরদীর মোকারমপুর গ্রামের কৃষক নঈম উদ্দিন বজ্রপাতে মৃত্যু বরণের ঘটনাসহ আরো কৃষকের প্রাণহানির বিষয় উপস্থাপন করেন। তালগাছ বজ্রপাতের হাত হতে রক্ষা করে, তাই আমরা কৃষক সমাজ তাল গাছ রোপনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছি। ঢালারচর পর্যন্ত তাল গাছ রোপনের পর পদ্মা সেতু দিয়ে সোজা গোপালগঞ্জ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর মাজার পর্যন্ত রেল লাইন স্থাপনের দাবী করা হবে বলে কৃষকরা জানিয়েছেন।

প্রস্তাবিত এই রেল লাইনের দু’ধারেও তাল গাছ রোপন করার পরিকল্পনার কথা সভায় জানানো হয়। পদকপ্রাপ্ত কৃষকরা বলেন, বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে আজ উন্নয়নের রোল মডেল। বাংলার কৃষককূলই এই উন্নয়নের ধারার পথযাত্রী।

বিএসআরআই-এর মহাপরিচালক ড. মোঃ আমজাদ হোসেন এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনে এবং বজ্রপাত হতে রক্ষা পেতে তালগাছের বিকল্প নেই। মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মহুতি দেয়া শহিদদের স্মরণে বাংলাদেশ কৃষক উন্নয়ন সোসাইটির রেল লাইনের দুই ধার দিয়ে তাল গাছ রোপনের উদ্যোগ খুবই প্রশংসনীয় বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি আরো বলেন, শুধু বজ্রপাত প্রতিরোধই নয়, তালের শ্বাস, পাকা তাল, তালের রস, তালের গুড় ও রস থেকে উৎপাদিত তাল মিশ্রি খাওয়াও যায় । আবার তালপাতা জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার এবং তাল গাছ বিভিন্ন কাজে ব্যবহৃত হয়। তালবীজ সংরক্ষণ ও রোপনে বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইন্সটিটিউট তাদের সার্বিক কারিগরি সহযোগিতা প্রদান করবেন বলে জানিয়েছেন।

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!