ঈশ্বরদীতে যুবলীগ নেতা খুন : ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট

স্টাফ রিপোর্টার ।। গতকাল বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) রাত ১১টার দিকে পাবনা জেলার ঈশ্বরদী উপজেলার পাকশীর নতুন রূপপুর এলাকায় প্রতিপক্ষের হামলায় পাকশী ইউনিয়ন ৬নং ওয়ার্ড যুবলীগের সহ-সভাপতি ও থানা কমিটির সদস্য শাহজাহান আলী (৪৫) নিহত হয়েছেন।

এসময় আহত হয়েছেন ওই ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আশরাফুল ইসলাম এবং আবুল হোসেন। এই ঘটনার জের ধরে গভীর রাতে হামলাকারীদের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল হাই তালুকদার বলেন, এলাকায় ডিশ ও বালুর ব্যবসার ভাগাভাগি ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন থেকে নতুন রূপপুর গ্রামে সোমা হোসেনের ছেলে নবীন হোসেনের সঙ্গে যুবলীগের নেতা শাহজাহানের দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। ওই দ্বন্দ্বের জের ধরে এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।

তিনি বলেন, শাহজাহান গতকাল রাতে তাঁর ফুফাতো বোনের স্বামী আবুল কাশেমের সিএনজিচালিত অটোরিকশায় চড়ে পাকশী ইউনিয়ন ৬ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আশরাফুল বিশ্বাসকে নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন।

তাঁরা নতুন রূপপুরের কড়ইতলার কাছে এলে প্রতিপক্ষের হামলার শিকার হন। এতে শাহজাহানসহ তিনজন আহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় শাহজাহানকে প্রথমে ঈশ্বরদী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি ঘটলে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে রাত আড়াইটার দিকে শাহজাহান মারা যান। তাঁর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পাকশী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেন, পরিকল্পিতভাবে পাকশী ইউনিয়ন ৬ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সহসভাপতি শাহজাহানকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারের দাবি জানান তিনি।

এলাকাবাসী জানায়, হত্যার খবর ছড়িয়ে পরলে রাতেই নতুন রূপপুরে শাহজাহানের সমর্থকেরা প্রতিপক্ষের দুইটি বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয় ও দুটি বাড়ি ভাঙচুর করে। দমকল বাহিনীর সদস্যরা রাতে আগুন নেভান। আগুনে বাড়ির আসবাব ও ডিশ-সংযোগের সব সরঞ্জাম পুড়ে গেছে।

পরে ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক, থানার অফিসার ইনচাজ আব্দুল হাই তালুকদার রাতেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিপুল সংখ্যক পুলিশ দিয়ে হামলাকারীদের নিয়ন্ত্রণ করেন। তবে কেউ গ্রেফতার হয়নি।