বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:০৩ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

ঈশ্বরদীতে রেলওয়ের ৮০ ভাগ বাসা অবৈধ দখলে

ঈশ্বরদীতে রেলওয়ের ৮০ ভাগ বাসা অবৈধ দখলে

image_pdfimage_print
ঈশ্বরদীতে রেলওয়ের ৮০ ভাগ বাসা অবৈধ দখলে

ঈশ্বরদীতে রেলওয়ের ৮০ ভাগ বাসা অবৈধ দখলে

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি: ঈশ্বরদীতে রেলওয়ের কোয়ার্টারের ৮০ ভাগেরও বেশি অবৈধ দখলে রয়েছে। এর মধ্যে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে ৩৯৬টি ইউনিট।

এদিকে, আবাসিক ব্যবস্থা থাকার পরও রেলওয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বেশি টাকায় অন্যত্র বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করতে বাধ্য হচ্ছেন।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী`র (কার্য) ২০১৫ সালের জুন মাসের প্রতিবেদন অনুসারে, ঈশ্বরদীতে রেলওয়ের ৩৪২টি আবাসিক ভবনে ইউনিট রয়েছে ১ হাজার ২১২টি। এসব ইউনিটের ৮২ শতাংশ অবৈধ দখলে। ৩৯৬টি বাসা বসবাসের অনুপযোগী ঘোষণা করলেও সেগুলোতে ঝুঁকি নিয়ে অবৈধ দখলদাররা বাস করছেন। কর্তৃপক্ষকে কোনো ভাড়াও দিতে হয় না।

এসব বাসা মূলত এক ও দুই ইউনিট বিশিষ্ট। অবৈধ হলেও এসব বাসায় বসবাসকারী অধিকাংশই নিম্ন আয়ের। এই বাসাগুলো আবার সময়ে সময়ে হাত বদল হয়। অর্থের বিনিময়ে এগুলো বিক্রি করা হয়। স্থানীয়ভাবে এর নাম দেয়া হয়েছে ‘বাসা বিক্রি’। ফলে মানুষ বসবাস করলেও এসব বাসা থেকে রেলের কোনো আয় আসছে না।

রেলের বাসায় দীর্ঘদিন বসবাসকারী একজন জানান, ‘আমার বাবা রেলে কাজ করতেন। এখানে জন্মের পর থেকে আছি। সরকারকে বলবেন বাসাগুলো ঠিক করে দিলে ভাল হয়’।

এদিকে, রেলওয়ের কয়েকজন কর্মচারী জানান, রেলওয়ের কোয়ার্টার না পাওয়ায় বেশি ভাড়া দিয়ে অন্যত্র থাকতে হচ্ছে। এতে যেমন রেল আয় হারাচ্ছে অন্যদিকে কর্মস্থল থেকে দূরে থাকায় অফিসে আসতে অতিরিক্ত ব্যয় বহন করতে হচ্ছে।

রেলওয়ের একাধিক কর্মচারী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, কর্তৃপক্ষের সঠিক পরিকল্পনার অভাব ও উদাসীনতার কারণে এসব বাসা দখল মুক্ত করা যাচ্ছে না।

রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি অফিসের একজন কর্মচারী বলেন, অবৈধ দখল মুক্ত করতে নিয়মিত ম্যাজিস্ট্রেট দরকার যা রেলওয়ের নেই। এছাড়া প্রয়োজনীয় জনবল সংকট রয়েছে। এছাড়াও আছে অবৈধ হস্তক্ষেপ ও বাধা। অবৈধ দখলদারদের সঙ্গে ক্ষমতাসীন দলের কিছু নেতা-কর্মীর যোগসূত্র রয়েছে। ফলে উচ্ছেদ করতে গেলেই সংঘবদ্ধ বাধা আসে।

উপ-সহকারী প্রকৌশলী হাবিবুর রহমান এ ব্যাপারে নিউজ পাবনা ডটকমকে জানান, অবৈধ দখলদারদের সঙ্গে আমাদের কোনো সম্পৃক্ততা নেই। বিভাগীয় প্রকৌশলী-২ এ ব্যাপারে বলেন, পরিত্যক্ত ভবনগুলো সংস্কারের কোনো পরিকল্পনা নেই। অবৈধ দখলদারদের তালিকা বিভাগীয় ভূসম্পত্তি অফিসে আছে, সেই অনুযায়ী তারা ব্যবস্থা নিতে পারেন।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!