বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০১:৫৮ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

ঈশ্বরদী চালের মোকামে হুহু করে বাড়ছে চালের দাম

ফাইল ছবি

image_pdfimage_print
ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বার্তা সংস্থা পিপ : দেশের উত্তরবঙ্গের মোটা চালের বৃহৎ মোকাম পাবনার ঈশ্বরদী’র জয়নগর মোকামে হঠাৎ করে চাল বেচা কেনা স্থবির হয়ে পড়েছে। বেড়ে গেছে চালের দাম।

উত্তরের জেলা পাবনাসহ বিভিন্ন জেলায় দাম বেড়ে যাওয়ায় প্রভাব পড়েছে ঈশ্বরদীর মোকামে। গত দুই সপ্তাহের ব্যবধানে এই মোকামে চালের দাম বেড়েছে বস্তা প্রতি (৮৪ কেজি) ৩৫০ টাকা পর্যন্ত।

চালের দাম বাড়ার কারণে ঈশ্বরদী মোকাম ক্রেতা শুন্য হয়ে পড়ছে। সোমবার যে চাল ৩৩৫০ টাকায় বিক্রি হয় তা মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে ৩৪০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এই মোকামে চালের দাম আরও বেড়ে যাওয়ার আশংকায় বাইরের চাল ব্যবসায়ীরা। ফলে স্বল্প আয়ের মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঈশ্বরদীর জয়নগর মোকামে গত দুই সপ্তাহ থেকে চালের দাম উর্দ্ধমুখী। মঙ্গলবার এই মোকামে মিনিকেট চাল প্রতি বস্তা (৮৪ কেজি) তিন হাজার ৪০০ টাকায় বিক্রি হয়। দুই সপ্তাহ আগে মিনিকেট চালের দাম ছিল ৩০৫০ থেকে ৩১’শ টাকা।

এই মোকামে মোটা চাল বিআর-২৮ দুই সপ্তাহ আগে ২৭’শ টাকা বর্তমানে ৩০৫০ টাকা, বিআর-২৯ দুই সপ্তাহ আগে ২৬’শ টাকা বর্তমানে ২৯৫০ টাকা, মিনিকেট দুই সপ্তাহ আগে ৩১’শ টাকা বর্তমানে ৩৩৫০ টাকা, বাঁশমতি দুই সপ্তাহ আগে ৩৪’শ টাকা বর্তমানে প্রতিবস্তা (৮৪ কেজি) ৩৭৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়াও অন্যান্য চালের দামও বেড়েছে বস্তা প্রতি ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা পর্যন্ত।

চালের দাম বাড়ার কারণ সম্পর্কে জয়নগর মোকামের ব্যবসায়ীরা নির্দিষ্টভাবে কিছু জানাতে না পারলেও তাদের ধারণা ঢাকার বড় বড় ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে দাম বাড়াচ্ছেন।

এ মোকামে এসে ওই চাল সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের প্রতিনিধিরা বেশি দামে চাল কিনছেন। তবে এখানকার ব্যবসায়ীরা জানান, চালের দাম বাড়ার খবর তারা ঢাকাসহ বিভিন্ন বড় বাজার এলাকা থেকে আগেই পেয়ে যান। এ জন্য তারাও চালের দাম বাড়িয়ে দেন।

ব্যবসায়ীরা জানান, এখানকার ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন হাট বাজার ও মোকামে কৃষকদের নিকট থেকে ধান কিনে এনে এখানে চাল বানায়।

ঈশ্বরদীতে চাল উৎপাদনের এ রকম ৬০০ ধানের চাতাল রয়েছে। এসব চাতালে ১২ হাজার শ্রমিক কাজ করছে। এখান থেকে ঢাকা, সিলেট, চট্টগ্রাম, খুলনা, যশোর, মাগুরা, কুষ্টিয়া, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, টাঙ্গাইলসহ ২০টি জেলায় নিয়মিত চাল পাঠানো হয়।

এসব জেলার ব্যাপারী ও মহাজনেরা এসেও এখান থেকে পাইকারী দামে চাল কেনেন। ব্যবসায়ীরা জানান, উত্তরবঙ্গে মোটা চালের বৃহৎ মোকাম ঈশ্বরদী’র জয়নগরে বর্তমানে চালের বাজার উচ্চমুখি।

এদিকে মোকামে চালের দাম বাড়ার কারণে খুচরা বাজারে প্রকার ভেদে চালের দাম বেড়েছে প্রতি কেজিতে চার থেকে পাঁচ টাকা পর্যন্ত।

জয়নগরের চাল ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেন বাদশা বার্তা সংস্থা পিপ‘কে বলেন, বর্তমানে মোকামে ধানের দাম তুলনামুলক অনেক বেশী। এখানকার ব্যবসায়ীরা উত্তর ও দক্ষিণ বঙ্গের বিভিন্ন ধানের মোকাম থেকে বেশী দামে ধান কিনছেন।

মোকামে ৯০০ টাকা দরে (৪০ কেজি) ধান কিনতে হচ্ছে। এছাড়া অতি বৃষ্টির কারণেও চালের দাম বাড়ছে বলে তার ধারণা। তিনি আরও বলেন, চালের দাম বাড়তি থাকার কারণে ঈশ্বরদীর বাইরের ব্যাপারীদের জয়নগর মোকামে কম দেখা যাচ্ছে।

ঈশ্বরদী উপজেলা ধান-চাউল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক মজিবর রহমান মোল্লা বার্তা সংস্থা পিপ‘কে জানান, সরকার খাদ্য গুদামে ধান নেয়ার কারণে মোকামে ধানের প্রচুর চাহিদা থাকায় দাম বেড়ে গেছে।

এছাড়া অটো মিলের মালিকেরা চড়া মূল্যে মোকাম থেকে ধান ক্রয় করছে। অটো মিলের কারণে ঈশ্বরদী উপজেলার ৮০ ভাগ হাসকিন মিলের চাতাল ইতোমধ্যে বন্ধ হয়ে গেছে। তিনি বলেন, চালের দাম বাড়ার আরেকটি বড় কারণ হচ্ছে দেশের বাইরে থেকে এলসির চাউল আসা বন্ধ রয়েছে।

ঈশ্বরদী উপজেলা চাউল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব খায়রুল ইসলাম বার্তা সংস্থা পিপ‘কে জানান, আমাদের দেশে খাদ্যের কোন অভাব নেই। কৃষক ধান বিক্রি করে দেয়ায় আমাদের দেশের কৃষকদের গোলায় এখন আর ধান নেই।

কৃষকের ধান এখন মজুতকারীদের গোডাউনে চলে গেছে। সরকার খাদ্য গুদামে ধান ক্রয় করার কারণে মোকামে এর চাহিদা বেড়েছে। ধান মজুতকারীরা কৃত্রিম সংকট তৈরী করে অধিক মূনাফা অর্জনের জন্য ধানের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে, তাই চালের মূল্য বেড়ে যাচ্ছে।

সরকার এলসির ভ্যাট কমিয়ে দিলেই বিদেশ থেকে চাউল আমদানী হবে এবং দেশে চালের দাম কমে যাবে।

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!