বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ০৪:২০ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

ঈশ্বরদী থেকে বন্ধ হয়ে গেল ‘সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস’ ট্রেন

ছবি : ইন্টারনেট থেকে

image_pdfimage_print
ছবি : ইন্টারনেট থেকে

ছবি : ইন্টারনেট থেকে

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি : ঈশ্বরদী জংশন স্টেশন থেকে সকালে ঢাকা যাওয়ার একমাত্র যাত্রীবাহী ট্রেন ‘সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস’ আগামীকাল রোববার (১১ ডিসেম্বর) থেকে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। ঈশ্বরদীর পরিবর্তে ট্রেনটি আগামীকাল থেকে সিরাজগঞ্জ-ঢাকা-সিরাজগঞ্জের মধ্যে চলাচল করবে।

পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) অসীম কুমার তালুকদার বলেন, আগামীকাল বিকেলে ট্রেনটি আনুষ্ঠানিকভাবে ঢাকায় উদ্বোধন করা হবে। এটি সিরাজগঞ্জের মধ্যে চলাচল করবে।

পাকশী বিভাগীয় ডিআরএম কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, এখন থেকে প্রতিদিন সকাল ছয়টায় সিরাজগঞ্জ থেকে ছাড়বে ট্রেনটি। ঢাকা পৌঁছাবে ১০টা ১৫ মিনিটে।

২০১৩ সালের ২৭ জুন ঢাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে এই ট্রেনটি উদ্বোধন করেন রেলমন্ত্রী মজিবুল হক। শুধু উদ্বোধনের দিন সিরাজগঞ্জ স্টেশন পর্যন্ত ট্রেনটি চালানো হয়।

পরদিন থেকে ট্রেনটি ঈশ্বরদী জংশন থেকে সিরাজগঞ্জ বাজার স্টেশন হয়ে ঢাকার মধ্যে চলাচল করতে থাকে।

আগামীকাল বিকেল পাঁচটায় ঢাকা কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে পুনরায় ট্রেনটি উদ্বোধন করা হবে। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, রেলের মহাপরিচালক আমজাদ হোসেনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। ট্রেনটিতে সম্পূর্ণ নতুন কোচ সংযোজন করা হয়েছে।

৩ ডিসেম্বর রেলওয়ের মহাপরিচালক (ডিজি) আমজাদ হোসেন পাকশীতে আসেন। এ সময় যাত্রীদের সুবিধা বিবেচনায় এনে ট্রেনটি ঈশ্বরদী থেকে প্রত্যাহার না করতে পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে শ্রমিক লীগ শাখার পক্ষ থেকে ছয় দফা দাবিসহ তাঁকে একটি স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

ঈশ্বরদী রেলওয়ে বুকিং অফিস সূত্রে জানা গেছে, সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট বন্ধ করার জন্য এখনো লিখিত নির্দেশনা আসেনি। তবে ১০ দিন আগেই ঢাকায় ইন্টারনেটের সার্ভার থেকে টিকিট প্রিন্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এই ট্রেনটি প্রতিদিন সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে ঈশ্বরদী থেকে সিরাজগঞ্জ হয়ে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যেত। গত নভেম্বর মাসে এই ট্রেন থেকে রেলের আয় হয়েছে ১ লাখ ৯৩ হাজার ৮১০ টাকা। যাত্রী ছিল ১ হাজার ৭৮১ জন। অক্টোবর মাসে যাত্রী ছিল ২ হাজার ২৩০ জন এবং টিকিট বিক্রি থেকে আয় হয় ২ লাখ ৬৪ হাজার ৩২৫ টাকা। ঈশ্বরদী ছাড়াও নাটোর, কুষ্টিয়া ও রাজশাহী জেলার কয়েকটি উপজেলার যাত্রীরা সকালে এই ট্রেনে ঢাকা যাতায়াত করতেন।

ঈশ্বরদী জংশন স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, দেশের সর্ববৃহৎ এই জংশন স্টেশন থেকে পর্যায়ক্রমে ১৩টি যাত্রীবাহী ট্রেন প্রত্যাহার করে করে নেওয়া হয়।

সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেনে যাতায়াত করেন এমন চার-পাঁচজন যাত্রী বলেন, ঈশ্বরদী থেকে ট্রেনটি বন্ধ করে দেওয়ায় এখন ঢাকা যেতে তাঁদের কষ্ট হবে।

শহরের পিয়ারপুর এলাকার সাইদুর রহমান বলেন, ‘স্বাচ্ছন্দ্যে আমরা সকালে ঢাকা বা সিরাজগঞ্জ যেতে পারতাম। ট্রেনটি উঠে যাওয়ায় আমরা সেই সুবিধা থেকে এখন বঞ্চিত হলাম।’ ঈশ্বরদী বাজারের ব্যবসায়ী শামীম আহমেদ বলেন, ‘সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেন তো চলে গেল। কিন্তু আমাদের সকালবেলা ঢাকা যাতায়াতের জন্য এ ধরনের একটি ট্রেন জংশন স্টেশন থেকে চালু করা দরকার।’

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!