বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ১১:১৪ অপরাহ্ন

করোনার সবশেষ
করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৯৫ জন, শনাক্ত হয়েছেন ৪ হাজার ২৮০ জন। আসুন আমরা সবাই আরও সাবধান হই, মাস্ক পরিধান করি। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখি।  

এখনও বদলায়নি ঈশ্বরদীর সেই স্কুলের নাম

বার্তাকক্ষ : বছরখানেক আগে দাবি উঠেছিল ঈশ্বরদীর বাংলাদেশ রেলওয়ে সরকারি নাজিম উদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনের। আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে হয়েছিল তদন্ত কমিটি। কিন্তু এখনও আলোর মুখ দেখেনি সেই কমিটির প্রতিবেদন। এখনও ‘নাজিম উদ্দীন’ নামের ভার থেকে মুক্ত হতে পারেনি ঈশ্বরদীবাসী।

প্রসঙ্গত, ১৯৪৮ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান গণপরিষদের অধিবেশনে পূর্ব বাংলার তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খাজা নাজিম উদ্দীন বাংলা ভাষার বিরোধিতা করে উর্দুকে রাষ্ট্রভাষা করার পক্ষে জোরালো বক্তব্য দেন।

১৯৫২ সালের ২৬ জানুয়ারি পল্টন ময়দানেও তিনি পুনরায় ঘোষণা দেন, ‘একমাত্র উর্দুই হবে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা’। বিভিন্ন কারণে ইতোমধ্যে ঈশ্বরদীর একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নাম পাল্টানো হয়েছে।

যেমন, স্থানীয় জিন্নাহ কলেজের নাম মুক্তিযুদ্ধের পর পরিবর্তন করে ঈশ্বরদী সরকারি কলেজ করা হয়েছে। অথচ বাংলা ভাষার বিরোধিতাকারী এই রাজনীতিকের নামে ১৯৫২ সালে প্রতিষ্ঠিত ‘বাংলাদেশ রেলওয়ে সরকারি নাজিম উদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়ের’ নাম এখনও পাল্টানো হয়নি।

গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে ঈশ্বরদীবাসী স্কুলের নাম পরিবর্তন করার দাবিতে সোচ্চার হন। গঠন করা হয় একটি তদন্ত কমিটি। রেলের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ছাড়াও তৎকালীন উপজেলা চেয়ারম্যান (বর্তমানে সংসদ সদস্য) বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান বিশ্বাস এই তদন্ত কমিটির সদস্য।

সম্প্রতি এই স্কুলের নাম পরিবর্তন করার দাবিতে ঈশ্বরদী উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগ বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে স্কুলের প্রধান ফটক থেকে ‘নাজিম উদ্দীন’ নামটি কালো কালি দিয়ে মুছে দেয়। ছাত্রলীগের এই উদ্যোগ প্রশংসিত হলেও কাজের কাজ হয়নি এখনও।

সর্বশেষ খোঁজ নিতে গেলে এই স্কুলের প্রধান শিক্ষক খন্দকার আব্দুর রহমান জানান, প্রায় এক বছর আগে গঠিত তদন্ত কমিটির কাছে এই বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করার জন্য সুপারিশমালা পাঠানো হয়েছে কিন্তু এ বিষয়ে এখনও কিছু জানানো হয়নি।

এ বিষয়ে পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান বিশ্বাস বলেন, দ্রুততম সময়ের মধ্যে এই স্কুলের নাম পরিবর্তন করার জন্য আমি এ এলাকার এমপি হিসেবে রেলওয়ে মন্ত্রীকে বিশেষভাবে অনুরোধ জানাচ্ছি।

ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পিএম ইমরুল কায়েস মোবাইল ফোনে বলেন, বাংলা ভাষার বিরুদ্ধে অবস্থানকারী খাজা নাজিম উদ্দীনের নামে প্রতিষ্ঠিত এই স্কুলের নাম পাল্টানোর জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে সুপারিশপত্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে ম্যানেজার (ডিআরএম) শাহীদুল ইসলাম বলেন, বাংলা ভাষার প্রতি সম্মান রেখে সরকারি রেলওয়ের এই স্কুলটির নাম পরিবর্তন করার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ ইতোমধ্যে নেওয়া হয়েছে। আমরা সুপারিশমালা রেলওয়ে মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছি। নির্দেশনা পেলেই আনুষ্ঠানিকভাবে স্কুলটির নাম পরিবর্তন করার ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

‘ঈশ্বরদীর ইতিহাস’ বইয়ের প্রণেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল আহমেদ জানান, ১৯৫২ সালে ঈশ্বরদীর পাকিস্তানি অবাঙালিরা রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগসাজশে ঈশ্বরদীর লোকো রোডে ব্রিটিশ আমলে নির্মিত বড় আকারের রেলওয়ে রানিংরুমে তৎকালীন পাকিস্তানি উর্দুভাষী প্রধানমন্ত্রী খাজা নাজিম উদ্দীনের নামে এই স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন। পরে এটি ‘বাংলাদেশ রেলওয়ে সরকারি নাজিম উদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়’ নামে প্রতিষ্ঠা পায়।

0
1
fb-share-icon1


শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের এমপি প্রিন্স

শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের এমপি প্রিন্স

শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের প্রিন্স অফ পাবনা

Posted by News Pabna on Thursday, February 18, 2021

© All rights reserved 2021 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
x
error: Content is protected !!