মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:৫২ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

কেমন আছেন এন্ড্রু কিশোর?

image_pdfimage_print

ছয়টি ধাপে কেমো নেয়া শেষ হয়েছে। ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে সুস্থ হয়ে গেল মার্চের শেষে দেশে ফেরার কথা ছিল প্লেব্যাক খ্যাত কণ্ঠশিল্পী এন্ডু কিশোরের। কিন্তু ফিরতে পারলেন না করোনা পরিস্থিতির কারণে। এপ্রিলের শুরু থেকে তার রেডিওথেরাপি শুরু হয়েছে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে। সময় সংবাদকে এমনই তথ্য দিয়েছেন শিল্পীর শিষ্য মোমিন বিশ্বাস।

তিনি জানান, কেমো নেয়া শেষ হলেও শরীরে ক্যান্সারের প্রভাব রয়ে গেছে। তাই নতুন করে তার শরীরে রেডিওথেরাপি শুরু হয়েছে। ২০টি রেডিওথেরাপির পর চিকিৎসকরা আবার পরীক্ষা করবেন। এপ্রিলেই শেষ হবে তার রেডিওথেরাপি। এরপর চিকিৎসকরা পরীক্ষা–নিরীক্ষা করবেন। সে ক্ষেত্রে সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে মে মাসে দেশে ফিরতে পারবেন তিনি।

মোমিন বিশ্বাস আরও জানান, দাদা আগের চেয়ে অনেক ভালো আছেন। করোনার দিনগুলোতে সিঙ্গাপুরে বাসাতেই সময় কাটাচ্ছেন। বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া হাসপাতালেও যাচ্ছেন না তিনি।

শরীরে নানা ধরনের জটিলতা নিয়ে অসুস্থ অবস্থায় গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে দেশ ছেড়েছিলেন এন্ড্রু কিশোর। সেখানে গিয়ে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর গত ১৮ সেপ্টেম্বর তার শরীরে নন-হজকিন লিম্ফোমা ধরা পড়ে (নন-হজকিন লিম্ফোমা নামক ব্লাড ক্যানসার)। সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক লিম সুন থাইয়ের অধীনে তার চিকিৎসা শুরু হয়। গত সাত মাস একনাগাড়ে তার চিকিৎসা চলে।

এন্ড্রু কিশোরকে বলা হয় ‘প্লেব্যাক সম্রাট’। ১৯৭৭ সালে মেইল ট্রেন চলচ্চিত্রের ‘অচিনপুরের রাজকুমারী নেই যে তার কেউ’ গানের মাধ্যমে তার প্লেব্যাক যাত্রা শুরু। যদিও ১৯৭৯ সালে মুক্তি পাওয়া প্রতীজ্ঞা সিনেমার ‘এক চোর যায় চলে’ গানের মাধ্যমে প্রথম জনপ্রিয়তা লাভ করেন এন্ড্রু কিশোর। এর পর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!