চাটমোহরের জোড়া শিশুটিকে ঢাকায় প্রেরণ

চাটমোহরের জোড়া শিশুটিকে ঢাকায় প্রেরণ

চাটমোহরের জোড়া শিশুটিকে ঢাকায় প্রেরণ

চাটমোহর প্রতিনিধি: চাটমোহর উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নে আটলংকা গ্রামের জন্ম নেওয়া মাথা জোড়া লাগানো দুটি মেয়ে শিশুকে শনিবার সকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শিশু সার্জারি বিভাগে তাদের চিকিৎসা চলছে। শিশু দুটির বাবা রফিকুল ইসলাম এবং মা তাসলিমা। এই দম্পতির ৬ বছর বয়সি আরেকটি মেয়ে শিশু আছে। রফিকুল ইসলাম উপজেলার অমৃতকুন্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

টায়ফয়েডে আক্রান্ত শিশু দুটির পিতা রফিকুল ইসলাম চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বলেন, গত ১৬ জুলাই পাবনার পিডিসি ক্লিনিকের চিকিৎসকরা তাসলিমাকে সিজার করে।

সিজারের পর দেখা মাথা জোড়া লাগানো দুটি শিশু। মাথা ছাড়া শিশু দুটির সবকিছু আলাদা। চিৎ হয়ে ঘাড় কাত করে দুজনে মাথা মিশিয়ে শোয়ার মতো, দুজনের মাথার তালু জোড়া লাগানো।

তিনি আরো বলেন, শুনেছি বিএসএমএমইউতে এ ধরনের জোড়া লাগানো শিশুর অপারেশন করা হয়। তাই শিশু দুটিকে নিয়ে শুক্রবার সকালে তাদের খালা বিএসএমএমইউতে ভর্তি করিয়েছেন।

আমি টায়ফয়েডে আক্রান্ত তাই মেয়েদের সাথে ঢাকায় যেতে পারিনি। আমার স্বজনরা শিশু দুটির সাথে আছে। মেয়ে দুটিকে নিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় পড়েছি। তিনি মেয়েদের সুস্থ্যতার জন্য দেশবাসীর সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

শিশু সার্জারি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডাঃ মোঃ রুহুল আমিন বলেন, তাদের আইসিইউতে (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) রাখা হয়েছে। দুটি শিশুর মধ্যে একজনের সামান্য জন্ডিস হয়েছে। সাধারণ যেসব পরীক্ষা, সেগুলো করা হয়েছে। এখন তাদের বেশি নাড়াচাড়া করা ঠিক হবে না। তাই মাথার পরীক্ষাগুলো আরো কয়েকদিন পরে করার পরিকল্পনা আছে।