চাটমোহরে ৪০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে এনজিও উধাও!

চাটমোহরে ৪০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে এনজিও উধাও!

চাটমোহরে ৪০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে এনজিও উধাও!

চাটমোহর প্রতিনিধি : চাটমোহরের কয়েকটি ইউনিয়নের প্রায় ১ হাজার  গ্রাহকের নিকট থেকে ঋণ দেবার কথা বলে ‘সমাজ কল্যান সংস্থা’ নামক একটি ভূয়া এনজিও প্রায় ৪০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হয়েছে।

শনিবার (১১ জুন) সকাল থেকে সংস্থাটির কর্তা ব্যক্তিদের কোনও সন্ধান মিলছে না। ঋণের বিপরীতে শতকরা দশ টাকা হারে লাখ লাখ টাকা সঞ্চয় উত্তোলন করে সংস্থাটি।

শনিবার ঋণ নিতে গিয়ে গ্রাহকরা অফিসে তালাবদ্ধ দেখতে পায়। সংস্থার কথিত ব্যবস্থাপক, মাঠকর্মীদের সাথে সঞ্চয় জমাকারীরা মোবাইল ফোনে (০১৭৫৬-৪৩৯৬০৮, ০১৭৬০-৯৫১৬০১ নম্বরে) যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে নম্বর গুলোতে রিং বাজলেও কেউ ফোন রিসিভ করেননি।

রবিবার (১২ জুন) শত শত গ্রাহক ঋণের টাকা উত্তোলনের জন্য সংস্থাটির চাটমোহর পৌর সদরের আফ্রাতপাড়াস্থ কার্যালয়ে আসলে অফিস বন্ধ দেখতে পান। রবিবার ফোন নম্বর গুলো বন্ধ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, চাটমোহর পৌর সদরের আফ্রাতপাড়া মহল্লার আব্দুল হামিদের বাসা ভাড়া নিয়ে গত ৫ জুন কার্যক্রম শুরু করে এনজিওটি। মাত্র কয়েক দিনে উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়ন চষে বেড়ায় সংস্থাটির কর্মীরা। এই স্বল্প সময়ের মধ্যে তারা প্রায় ৪০ লাখ টাকা সঞ্চয় উত্তোলণ করে সটকে পরে।

অফিসের সাইন বোর্ডে লেখা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত। রেজিঃ নং ৩৭৩/৮৪ ১২০/২০১০। ঋণের আবেদন ফরমে প্রধান কার্যালয়ের ঠিকানা সিটি কমপ্লেক্স, সার্কুলার রোড, দিলকুশা, মতিঝিল বা/এ, ঢাকা ১০০২, রেজি নং ১২০ লেখা রয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের ধুলাউড়ি গ্রামের রোজিনা, লাবনী, ফরিদা, হাসিনা, সোনাভান, শিউলী, হরিপুর গ্রামের বন্যা, বিউটি, জয়ন্তী, অনীতা, গীতা, বিলচলন ইউনিয়নের সোনাহার পাড়া গ্রামের শাহেরা, রহিমা, শামীমা, ফিরোজা, ছাইকোলা ইউনিয়নের কাটেঙ্গা গ্রামের শিউলী, রুবিয়া, আলেয়া, মিনারা, নারগিস, জিয়াসমিন, নিমাইচড়া ইউনিয়নের ধানকুনিয়া গ্রামের স্বপ্না, হাসিনা, হেনা, নূরজাহান, আসিয়া, কোমেলা, ফরিদা, নাজমা, রুমা প্রমুখ জানান, ৫০ হাজার টাকা করে ঋণ দেবার কথা বলে তাদের নিকট থেকে ৫ হাজার টাকা করে সঞ্চয় হাতিয়ে নিয়েছে সমাজ কল্যান সংস্থার কথিত কর্তা ব্যক্তিরা।

কষ্টার্জিত সঞ্চয়ের টাকা হারিয়ে তারা এখন দিশেহারা হয়ে পরেছেন। তারা জানান, শত শত মানুষের নিকট থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে এনজিওটি।

এ ব্যাপারে চাটমোহরে কর্মরত সমাজ সেবা কর্মকর্তা আব্দুল মালেক জানান, সমাজ কল্যান সংস্থা নামক কোন বৈধ এনজিওর অস্তিত্ব চাটমোহরে নেই। সচেতনতার অভাবে খোঁজ খবর না নিয়ে সঞ্চয় জমা করে গ্রাহকেরা প্রতারিত হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

চাটমোহর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেগম শেহেলী লায়লা জানান, বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি। গ্রাহকেরা প্রতারিত হলে সংশ্লিষ্ট এনজিওর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। প্রয়োজনে মোবাইল ট্রাকিং এর মাধ্যমে কথিত এনজিও কর্মীদের সনাক্তের চেষ্টা করা হবে।