রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:৩৫ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

চাটমোহর শাহী মসজিদ; স্থাপত্য শিল্পের অনুপম নিদর্শন

স্থাপত্য শিল্পের অনুপম নিদর্শন চাটমোহর শাহী মসজিদ

image_pdfimage_print

বার্তাকক্ষ : পুরাতন জেলা শহর পাবনার যেসকল প্রত্নতত্ত্ব নিদর্শনগুলো আছে চাটমোহর শাহী মসজিদ এগুলোর মাঝে একটা। চাটমোহর মসজিদ পাবনা জেলার চাটমোহর উপজেলার বাজারের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত। এক সময়ে মসজিদটি ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছিল।

১৯৮০’র দশকে বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতর এটি সম্পূর্ণরূপে নির্মাণ করে। বর্তমানে এটি একটি সংরক্ষিত ইমারত। মসজিদটিতে একটি তুঘরা লিপিতে উৎকীর্ণ ফারসি একটি শিলালিপি ছিলো। বর্তমানে শিলালিপিটি রাজশাহী বরেন্দ্র গবেষণা জাদুঘরে সংরক্ষিত আছে। এ শিলালিপি অনুসারে ১৫৮২ খৃস্টাব্দে জনৈক খান মুহাম্মদ বিন তুকি খান কাকশাল মসজিদটি নির্মাণ করেন।

৩টি গম্বুজ সমৃদ্ধ চাটমোহর শাহী মসজিদ- মোঘল স্থাপত্যরীতিতে নির্মিত। মোঘল আমলের অধিকাংশ স্থাপনার মতো এ মসজিদেও লাল জাফরী ইট ব্যবহৃত হয়েছে। (জাফরী ইট বলা হয় কারণ এই ইটগুলো বর্তমান সময়ের ইটের মত মোটা হত না এই ইটগুলো চিকন চিকন হয় বলেই জাফরী বলা হয়) ভেতরাংশে সূক্ষ্ণ কারুকাজ ও জ্যামিতিক নকশা দারুণ নান্দনিক সৌন্দর্য তৈরি করেছে। মসজিদের দেওয়াল প্রায় ৬ ফুট ৯ ইঞ্চি চওড়া। ফার্সি ভাষায় লেখা মসজিদের কষ্টি পাথরের শিলালিপিটি বর্তমানে রাজশাহী বরেন্দ্র গবেষণা জাদুঘরে সংরক্ষিত। মসজিদের ভেতর ৩টি কাতার দাঁড়াতে পারে।

সম্রাট আকবরের পাঁচহাজার সৈন্যের সেনাপতি মাসুম খাঁ কাবলি ১৫৮১ সালে এমসজিদটি নির্মাণ করেন। পুরান নথিপত্রে চাটমোহর মসজিদকে মাসুম খাঁর মসজিদ নামেই পাওয়া যায়।

১৯৮০ সালে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর মসজিদটি সংস্কার করেন ও সংরক্ষিত ইমারত হিসেবে ঘোষণা করেন। মসজিদের প্রবেশপথে ৭ তলা সুউচ্চ নির্মাণাধীন প্রবেশদ্বারটি মূল কাঠামোর সাথে মোটেই সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। সংরক্ষিত ইমারত এলাকায় নতুন স্থাপনা নির্মাণ প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের নিষ্ক্রিয়তার তীব্র বহিঃপ্রকাশ।

মসজিদের সামনে উত্তর-পশ্চিম কর্নার ও পশ্চিম দিকের দুই-তৃতীয়াংশ বেদখল হয়ে গেছে। দখলকৃত ভবনগুলোও বেশ পুরানো। কাগজপত্রের মারপ্যাঁচে সম্ভবত আর উদ্ধার হবে না। আর হলেও কঠিন হবে। মসজিদটি ৪৩৭ বছর বয়স্ক ও দেশের অন্যতম প্রাচীন মসজিদ।

মাসুম খাঁ কাবলি (মসজিদের প্রতিষ্ঠাতা)

মাসুম খাঁ কাবলি ১৫৫৫ সালে জন্ম গ্রহন করেন। তিনি খোরাসানের কাকশাল গোত্রের ছিলেন। ১৫৭৫ সালে ২০ বছর বয়সে সম্রাট আকবরের সৈন্য দলে যোগ দেন। যুবক মাসুম খাঁ কালা পাহাড় নামে শত্রু সেনাপতিকে যুদ্ধে পরাজিত করে স্বীকৃতি স্বরূপ পাঁচহাজার সৈন্যের সেনাপতি পদে দায়িত্ব পান। সম্রাট আকবর দ্বীন-ই-ইলাহি নামে নতুন ধর্ম ঘোষণা করায় কাকশাল গোত্র ও বাংলার মুসলমান ভুঁইয়ারা বিদ্রোহ ঘোষণা করেন।

১৫৭৯ সালে মাসুম খাঁ বারো ভূঁইয়াদের সঙ্গে একাত্নতা ঘোষণা করে চাকরি ছেড়ে দিয়ে বার ভূঁইয়াদের সাথে যোগ দেন। কিন্তু সম্রাট আকবরের প্রধান সেনাপতি ও গভর্নর শাহববাজ খাঁনের সঙ্গে যুদ্ধে পরাজিত হয়ে তিনি পালিয়ে যান। পরবর্তীতে ১৫৯৯ সালে ৪৪ বছর বয়সে সম্রাটের ফৌজি বাহিনীর হাতে মৃত্যুবরণ করেন। তার পুরো নাম ছিল সৈয়দ আবুল ফতে মোহাম্মদ মাসুম খাঁ। এই মসজিদটি সম্রাট আকবরের অধীনতা অস্বীকার করে চাটমোহরে স্বাধীন ক্ষমতা পরিচালনার সময় নির্মিত।

পাবনার চাটমোহর মসজিদ ও বগুড়ার খেরুয়ায় ১৫৮২ অবস্থিত দু’টি মসজিদ একই কারুকাজে ও একই পরিকল্পনায় নির্মিত। মসজিদটি দেখতে প্রতিদিন শত শত মানুষ ভীড় জমায় চাটমোহরে। প্রতিনিয়ত প্রত্নতত্ত্ববিদ দেখতে যায় মসজিদটির কারুকাজ। পাবনা শহর থেকে মসজিদ ৩০ কিলোমিটার দূরে। বাস বা টেম্পুযোগে মসজিদটি দেখতে যাওয়া যায়। এছাড়া মসজিদটি থেকে ৫ কিলোমিটারের মধ্যে রয়েছে বিশাল আয়তনের ট্রেন স্টেশন। উৎসুকরা ট্রেনযোগেও মসজিদটি দর্শন করতে পারেন।

মসজিদ স্থাপত্যের এ রীতিতে অবশ্যই উত্তর ভারতের প্রভাব রয়েছে। এর উদাহরণ পাওয়া যায় প্রথম লোদি ও শূর আমলে। পরবর্তী সময়ে এই পরিকল্পনার আরো বিকাশ ঘটে এবং মুঘল আমলজুড়েই এর প্রয়োগ দেখা যায়।

উত্তর ভারতীয় রীতিতে উন্মুক্ত প্রাঙ্গণ এবং তাকে নিয়ে ঘিরে রিওয়াকবিশিষ্ট পরিকল্পনার পরিবর্তে তিন গম্বুজ বিশিষ্ট প্রার্থনাকক্ষ নির্মাণে মুঘল রীতি মসজিদ নির্মাণ পরিকল্পনার একটি পরিপূর্ণ রূপ হিসেবেই বিবেচিত হয়।

No automatic alt text available.

দিল্লীর সুনহেরী মসজিদ কিংবা আগ্রার তাজমহলের পাশে নির্মিত (১৬৩৪ খৃঃ) এর উদাহরণ। এ ধরনের ভারতীয় মসজিদ পরিকল্পনাকে বলা যেতে পারে পারস্যের মাহম্মাদিয়ার অবস্থিত ইওয়ান ই কারখা অথবা মায়াদে অবস্থিত মুসাল্লা-এর পরিবর্তিত রূপ।


পাবনার কৃতী সন্তান অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী

পাবনার কৃতী সন্তান অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী

পাবনার কৃতী সন্তান অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী

Posted by News Pabna on Tuesday, August 18, 2020

পাবনার কৃতি সন্তান নাসা বিজ্ঞানী মাহমুদা সুলতানা

পাবনার কৃতি সন্তান নাসা বিজ্ঞানী মাহমুদা সুলতানা

পাবনার কৃতি সন্তান নাসা বিজ্ঞানী মাহমুদা সুলতানা

Posted by News Pabna on Monday, August 10, 2020

© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!