রবিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৬:৪২ অপরাহ্ন

ছেলের লাশ ট্যাঙ্কিতে রেখে নির্বাচনি প্রচারে স্বামী-স্ত্রী!

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর মাদকাসক্ত ছেলেকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার মা-বাবার বিরুদ্ধে।

উপজেলার নরিনা ইউনিয়নের নরিনা হানিফনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহতের নাম আব্দুল করিম (১৮)। তার মা করুনা খাতুন নরিনা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত নারী সদস্য প্রার্থী হিসাবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, পেশায় পিকআপ চালক আব্দুল করিম মাদকাসক্ত। সে প্রায় রাতেই মাদক সেবন করে বাড়ি ফিরে সবাইকে নির্যাতন করত। এতে পরিবারের সবাই তার ওপর অতিষ্ট ছিল।

গত মঙ্গলবার রাতে মাদক সেবন নিয়ে বাকবিতণ্ডার জেরে তার বাবা-মা তাকে বেধড়ক মারপিট করে। এক পর্যায়ে তার মৃত্যু হয়। কিন্তু মৃত্যুর বিষয়টি গোপন রেখে লাশ নিজ বাড়ির টয়লেটের ট্যাঙ্কিতে ফেলে দিয়ে তারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের কাছে ভোট প্রার্থনা করছিলেন।

বিষয়টি টের পেয়ে শুক্রবার সকালে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার কাজ শুরু করেছে।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা আলহাজ আলী ও মা করুনা খাতুনকে আটক করেছে পুলিশ।

এ বিষয়ে নরিনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফজলুল হক বলেন, বিষয়টি এলাকাবাসীর কাছ থেকে শুনে ঘটনাস্থলে ছুটে এসেছি। পুলিশও ঘটনাস্থলে এসেছে। টয়লেটের ট্যাঙ্কি থেকে লাশ উদ্ধারের জন্য পুলিশ প্রস্তুতি নিচ্ছে। এ ঘটনার পর পুলিশ নিহতের বাবা-মাকে আটক করেছে।

শাহজাদপুর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আব্দুল মজিদ বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসেছি। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। তবে এলাকাবাসীর মুখে মুখে রটনা শোনা যাচ্ছে, মা-বাবা তাকে হত্যার পর লাশ টয়লেটের ট্যাঙ্কিতে ফেলে দিয়েছে। এটা সঠিক কি না তা তদন্ত না করে বলা সম্ভব হচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। এ ছাড়া লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে।


© All rights reserved 2022 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com