জঙ্গি মারজানের বাড়ি পাবনায়

জঙ্গি মারজানের বাড়ী পাবনায়

জঙ্গি মারজানের বাড়ী পাবনায়

বার্তাকক্ষ : গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় সন্দেহভাজন জঙ্গি নেতা মারজানের পরিচয় পাওয়া গেছে।

তার প্রকৃত নাম নুরুল ইসলাম মারজান। তার বাড়ি পাবনায়। পাবনার সদর থানার পুলিশ এসব কথা জানিয়েছে বলে আজ সোমবার (১৫ আগস্ট) রাতে গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারের উপকমিশনার (ডিসি) মাসুদুর রহমান।

এ পর্যন্ত গুলশানের হামলায় নিহত জঙ্গিরা ছাড়া পরিকল্পনাকারী বা সমন্বয়কারী হিসেবে দুজনের নাম প্রকাশ করেছে পুলিশ। তারা হলেন, মারজান ও তামিম চৌধুরী।

যাদের নব্য জেএমবির নেতা বলছে পুলিশ। মারজানের সাথে তামিম চৌধুরী ও অন্য জঙ্গি নেতাদের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ ছিল বা রয়েছে বলেও জানিয়েছেন পুলিশ কর্মকর্তারা।

জানা যায়, পাবনা সদর থানার পুলিশের একটি দল পাবনা সদরের হেমায়েতপুর ইউনিয়নের আফুরিয়া গ্রামে মারজানের বাড়িতে গিয়ে তার প্রকৃত পরিচয় নিশ্চিত করেছে।

তার প্রকৃত নাম নুরুল ইসলাম মারজান। বাবার নাম নিজামউদ্দিন। স্থানীয় মাদ্রাসা থেকে পাস করে ২০১৪ সালে মারজান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগে ভর্তি হন।

বিবাহিত মারজান ৮ মাস আগে স্ত্রীসহ নিখোঁজ হন। তার বিষয়ে তথ্য চেয়ে গত শুক্রবার পুলিশের তথ্য পাওয়ার বিশেষ আ্যপস ‘হ্যালো সিটি’তে তার ছবি প্রকাশ করা হয়। সেখানে তাকে গুলশান হামলার অপারেশন কমান্ডার হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। তার বয়স ২২ বা ২৩ বছর বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ও ট্রান্স ন্যাশনাল ইউনিটের কর্মকর্তারা এর আগে জানিয়েছিলেন, গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় হামলার সঙ্গে জড়িত এবং হামলাকারী জঙ্গিদের সঙ্গে মারজানের যোগাযোগ ছিল বলে তথ্য পাওয়া গেছে।

হলি আর্টিজানে হামলার পর রাত একটায় ইন্টারনেট-সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আগ পর্যন্ত ভেতর থেকে জঙ্গিরা হত্যাযজ্ঞের ছবি তুলে তা মারজানসহ কয়েকজনকে পাঠিয়েছিল।

ওই রাতে এসব ছবি আইএসের কথিত বার্তা সংস্থা আমাক-এ প্রকাশ করা হয়। এছাড়া আরও কিছু তথ্য পাওয়া গেছে; যাতে মনে হয়েছে, মারজান গুলশান হামলার গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে ছিলেন।