জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

Rekha Rani Balo-pabna-DC-newspabnaশহর প্রতিনিধি: পাবনা জেলা প্রশাসক রেখা রানী বালো বলেছেন বর্তমান প্রযুক্তির যুগে ইন্টারনেটের সাথে সবাই যুক্ত তাই যে সকল অফিস এখনও ওয়েব পোর্টাল চালু করেন নাই তারা দ্রুত চালু করে পাবনা বাসির সেবা দিবেন।

বর্তমানে ফলের মৌসুম চলছে। মৌসুমী ফলে যাতে কেউ ফরমালিন মেশাতে না পারে, কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করতে না পারে, ভোক্তাদেরকে ঠকাতে না পারে এসব ব্যাপারে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে।

তিনি বলেন পবিত্র রমজান মাসে পাবনার ভোক্তারা যেন কোন সমস্যায় না পরে সে ব্যাপারে সবাইকে ভুমিকা রাখতে হবে। বিদুৎ ও পানি সরবরাহ, যানজট নিরসন, ভেজাল পন্য বিক্রয় বন্ধ, বাজার মুল্য স্থিতিশীল , আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো রাখাসহ সকল বিষয়ে পাবনাকে ভালো রাখতে দ্বায়িত্বপাপ্তদের সঠিক ভুমিকা রাখতে হবে।

রমজান উপলক্ষে পাবনা বাসীর সেবায় জেলা প্রশাসনের মোবাইল কোর্ট অব্যহত থাকবে বলেও তিনি জানান।

জেলা প্রশাসক বলেন, আমরা যারা পাবনায় বিভিন্ন অফিসে কর্মরত এবং দ্বায়িত্বশীল অবস্থানে আছি তাদের অন্যতম দ্বায়িত্ব হলো জেলার আইনশৃঙ্খলা, যোগাযোগ, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, নিরাপদ খাদ্যসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়ন করা।
এসব ক্ষেত্রে উন্নয়ন হলেই পাবনার মানুষের উন্নয়ন হবে। পাবনার উন্নয়ন মানে দেশের উন্নয়ন। পাবনার মানুষের উন্নয়নের প্রত্যয়ে আমাদের নিরলস কাজ করে যেতে হবে। পাবনার উন্নয়নের জন্য প্রয়োজন যার যে দ্বায়িত্ব সেটা সঠিকভাবে পালন করা।

মঙ্গলবার (২৪ মে) সকালে পাবনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির মাসিক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

পল্লী উন্নয়ন সমবায় ফেডারেশনের চেয়ারম্যান মো. হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, যারা বেশী ধান উৎপাদন করেন তাদের কাছ থেকেই ধান সংগ্রহ করা উচিৎ। চাষীদের তালিকা করার নামে কালক্ষেপন করে সিন্ডিকেট তৈরী করা হচ্ছে।

সভায় প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা বলেন, জনবল সংকটের কারণে কার্যকম কিছুটা সমস্যা হচ্ছে।

কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা বলেন, সার যথাযথ ভাবে কৃষক পাচ্ছে। ধান ভালো হয়েছে। সাড়ে ৫ শ কোটি টাকার লিচু এবং ১৪২ কোটি টাকার আম উৎপাদন হয়েছে।

জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে সভায় এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বেড়া উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, শিক্ষা প্রকৌশলী অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মারুফ আল ফারুক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শামীমা আকতার, অতিরিক্ত জেলা প্রসাশক মুন্সী মো: মনিরুজ্জামান, সালমা খাতুন, গণ পুর্ত বিভাগের উপ বিভাগীয় নিবার্হী প্রকৌশলী আহমেদ সাজ্জাদ খান, ভোক্তা অধিকারের এডি মো: হাসানুজ্জামান, সদর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা রায়হানা ইসলাম, সুজানগর উপজেলা নিবার্হী কর্মকতা মো. সাখাওয়াৎ হোসেন, আটঘোরিয়া উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মো: আলিমুর রেজা, বিটিভি প্রতিনিধি ও সংবাদ পত্র পরিষদের সভাপতি আব্দুল মতীন খান, পল্লী উন্নয়ন সমবায় ফেডারেশনের চেয়ারম্যান মো. হাবিবুর রহমান হাবিব, বাসস ও ভোরের কাগজ প্রতিনিধি অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম সুইট, বেতার প্রতিনিধি সুশীল তরফদার, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অদিপ্তরের উপমহাপরিদর্শক মো. মোর্তজা মোর্শেদ।