মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০, ১১:২১ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

ট্রাক থেকে তোলা চাঁদার টাকার হিসাব নিয়ে হাতাহাতি, শ্রমিকের মৃত্যু

রাজশাহীতে ট্রাক থেকে তোলা চাঁদার হিসাব চাওয়া নিয়ে সভাপতির সঙ্গে শ্রমিকদের হাতাহাতির সময় অসুস্থ্য হয়ে একজন শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকের এই ঘটনা ঘটে। মৃত ট্রাক চালক সোহরাব আলী (৩৫) নগরীল খোঁজাপুর এলাকার বাসিন্দা।

এদিকে সোহরাব আলীর মৃত্যুর পর বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা তার লাশ নিয়ে বোয়ালিয়া মডেল থানার পাশের জেলা ট্রাক, ট্যাংক লরি ও কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়ন কার্যালয় সামনে বিক্ষোভ শুরু করে। এ সময় তীব্র চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। দুই পক্ষের মধ্যে আবারও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন। নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মণ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, চাঁদার টাকার হিসাব নিতে শুক্রবার সকাল থেকেই শ্রমিকরা ইউনিয়নের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেয়। টাকার হিসাবের দাবিতে অবরুদ্ধ করে রাখেন জেলা ট্রাক, ট্যাংক লরি ও কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে। মনির হোসেন নামের এক ট্রাকচালক সাংবাদিকদের বলেন, শ্রমিকদের উন্নয়নের নামে সড়কে কোটি কোটি টাকা চাঁদা তোলা হয়। কিন্তু এখন সেই টাকার কোনো হিসাব পাওয়া যাচ্ছে না।

তিনি আরও জানান, তাদের সংগঠনের সদস্য সংখ্যা প্রায় ২ হাজার ৬০০ জন। সম্প্রতি তাদের ইউনিয়নের সভাপতি ফরিদ হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক আক্কাস আলী কিছু শ্রমিককে ডেকে ৮ কেজি করে চাল ও ২ কেজি করে আলু দিচ্ছিলেন। শ্রমিকদের কেউ কেউ বেকায়দায় পড়ে নিয়েছেন। কিন্তু বেশিরভাগই সেই চাল-আলু প্রত্যাখান করে তাদের টাকার হিসাব চেয়েছেন। সেদিন ১১ মে হিসাব দেয়া হবে বলে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক সাধারণ শ্রমিকদের জানান। কথামতো তারা সেদিন ইউনিয়ন কার্যালয়ে যান। কিন্তু হিসাব না দিয়ে আবারও ১৫ মে দিন দেয়া হয়। কথামতো তারা এ দিনও এসেছেন। কিন্তু তাদের জানানো হয়েছে হিসাব প্রস্তুত করা হয়নি। তাই তারা অবস্থান নিয়েছেন।

সাজ্জাদ আলী নামের আরেক শ্রমিক বলেন, বর্তমান কমিটির মেয়াদ তিন বছর। গত ১৭ এপ্রিল কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে। তাই কমিটির কাছে হিসাব প্রস্তুত থাকার কথা। কিন্তু টাকা নয়-ছয় হয়েছে বলে হিসাব প্রস্তুত নেই বলে মনে করেন শ্রমিকরা। সাজ্জাদ ধারণা করেন, তিন বছরে এই কমিটির কাছে অন্তত ১৫ কোটি টাকা গেছে শ্রমিকদের উন্নয়নের নামে। কিন্তু চলমান লকডাউনে তাদের দিন চলছে না। তারা টাকার হিসাব চাওয়ায় বর্তমান কমিটির কয়েকজন শ্রমিকের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

সাজ্জাদ বলেন, হাতাহাতির মধ্যে পড়েছিলেন ট্রাকচালক সোহরাব আলী। তিনি রোজাও রেখেছিলেন। এ রকম পরিস্থিতিতে তার রক্তচাপ বেড়ে যায়। অসুস্থ হয়ে পড়লে তার মাথায় পানি দেয়া হয়। এরপর তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেয়া হয়। তখন চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এরপর শ্রমিকরা একটি পিকআপে করে তার লাশ ইউনিয়নের কার্যালয়ের সামনে আনে।

এদিকে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে নগরীর বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মন বলেন, টাকার হিসাব চাইতে এসে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। তার লাশ ইউনিয়নের কার্যালয়ের সামনে আছে। শ্রমিকরা উত্তেজিত। পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা চলছে। শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

error20
fb-share-icon0
Tweet 10
fb-share-icon20


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial
error: Content is protected !!