শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৩৬ অপরাহ্ন

কুমিল্লায় পবিত্র কোরান অবমাননা সংক্রান্ত খবরটির প্রতি সরকারের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ বিষয়ে সকলকে ধর্মীয় সম্প্রীতি ও শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে।- ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়

ডেল্টার তীব্রতা শিশুদের মধ্যে খুবই কম: গবেষণা

করোনার ভারতীয় ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের প্রাদুর্ভাবের প্রথম দিকে যুক্তরাষ্ট্রের হাসপাতালগুলোতে শিশুদের উপস্থিতি আশঙ্কাজনক ছিল। কিন্তু নতুন এক গবেষণা প্রতিবেদনে দাবি করা হচ্ছে, ডেল্টা নিয়ে শিশুদের জন্য আতঙ্কগ্রস্ত হওয়ার কিছু নেই। কারণ ডেল্টা সংক্রমণের তেমন কোনো তীব্রতা শিশুদের মধ্যে দেখা যায়নি।

গত ২০ জুন থেকে ৩১ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের শিশু কোভিড হাসপাতালগুলোর তথ্য নেই এই তথ্য জানানো হয়েছে। দেশটির কেন্দ্রীয় রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি) এই গবেষণা চালিয়েছে।

সিডিসি জানায়, ওই সময়ে যারা টিকা নিয়েছেন তাদের তুলনায় যারা টিকা নেয়নি তাদের (কিশোর-কিশোরী) হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সম্ভাবনা ১০ গুণ বেশি ছিল।

স্বাস্থ্য সংস্থা গত ১ মার্চ ও ১৪ আগস্টের এর মধ্যে মার্কিন জনসংখ্যার প্রায় ১০ শতাংশ এলাকা জুড়ে হাসপাতালের রেকর্ড বিশ্লেষণ করেছে। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ার আগে ওই রেকর্ড বিশ্লেষণ করা হয়। আর গত ২০ জুন থেকে ডেল্টার ব্যাপকতা ছড়িয়ে পড়ে।

গত ২০ জুন থেকে ৩১ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের শিশু কোভিড হাসপাতালগুলোর তথ্য নেই এই তথ্য জানানো হয়েছে। দেশটির কেন্দ্রীয় রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি) এই গবেষণা চালিয়েছে।

সিডিসি জানায়, ওই সময়ে যারা টিকা নিয়েছেন তাদের তুলনায় যারা টিকা নেয়নি তাদের (কিশোর-কিশোরী) হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সম্ভাবনা ১০ গুণ বেশি ছিল।

স্বাস্থ্য সংস্থা গত ১ মার্চ ও ১৪ আগস্টের এর মধ্যে মার্কিন জনসংখ্যার প্রায় ১০ শতাংশ এলাকা জুড়ে হাসপাতালের রেকর্ড বিশ্লেষণ করেছে। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ার আগে ওই রেকর্ড বিশ্লেষণ করা হয়। আর গত ২০ জুন থেকে ডেল্টার ব্যাপকতা ছড়িয়ে পড়ে।

গত ১২ জুন থেকে ৩ জুলাই এক সপ্তাহে হাসপাতালে ভর্তি এক লাখ রোগীর মধ্যে ০ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিশুর হার ছিল ০ দশমিক ৩ শতাংশ। এরপর তা ১ দশমিক ৪ শতাংশে দাঁড়ায়। তবে গত ১৪ আগস্ট শেষ সপ্তাহে শেষ হার ৪ দশমিক ৭ শতাংশ দাঁড়িয়েছিল।

যুক্তরাষ্ট্র শুধু ডেল্টা নয় একইঙ্গে আলফা ভ্যারিয়েন্টও সামাল দিচ্ছে। পূর্ব গবেষণা অনুযায়ী, ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী ও ০ থেকে ৪ বছর বয়সী শিশুরা ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী শিশুদের চেয়ে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে।

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের আগে ৩ হাজার ১১৬টি ও ডেল্টার সময়ে ১৬৪টি হাসপাতাল রেকর্ড পর্যালোচনা করা হয়েছে। পর্যালোচনায় শিশুদের জন্য বড় ধরনের কোনো জটিলতা দেখা যায়নি।

হাসপাতালগুলোতে ডেল্টা সংক্রমণের আগে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে রোগী ছিল ২৬ দশমিক ৫ শতাংশ, ডেল্টা সংক্রমণের পরে ২৩ দশমিক ২ শতাংশ। এরমধ্যে ডেল্টা সংক্রমণের আগে মারা গেছে ০ দশমিক ৭ শতাংশ। ডেল্টা সংক্রমণের পর মারা গেছে ১ দশমিক ৮ শতাংশ।

গবেষণায় ডেল্টার সময়ে ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা নিয়ে আলোকপাত করা হয়েছে।তবে গত ২০ জুন থেকে ২১ জুলাই ওই জরিপে ৬৮ কিশোর-কিশোরীর মধ্যে ৫৯ জন ভ্যাকসিন নেয়নি। ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েছে মাত্র পাঁচজন। আর পূর্ণ ডোজ নিয়েছে চারজন। এর অর্থ হলো যারা ভ্যাকসিন নেয়নি তাদের হাসপাতালে ভর্তির সম্ভাবনা ১০ গুণ বেশি।

গবেষণাটি সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য বার্তাটি হল, ১২ বছরের কম বয়সীদের মধ্যে ভ্যাকসিনের ক্লিনিকাল ট্রায়াল ও পরবর্তী অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। তবে টিকা দেওয়ার ফলে শিশুরা যে করোনা সংক্রমণ সুরক্ষিত দেবে সে বিষয়ে সন্দেহ নেই।

সূত্র: এএফপি।

0
1
fb-share-icon1


© All rights reserved 2021 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
x
error: Content is protected !!