বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০১:৫৪ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

তামিমদের উড়িয়ে মাহমুদউল্লাহদের প্রথম জয়

image_pdfimage_print

মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের দ্বিতীয় ম্যাচে তামিম ইকবালের নেতৃত্বাধীন একাদশকে উড়িয়ে দিয়ে প্রথম জয় তুলে নিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে মাহমুদউল্লাহ একাদশ। তামিম একাদশকে ৫ উইকেটে হারিয়ে আগের ম্যাচের পরাজয়ের লজ্জা মুছল দলটি।

আজ মঙ্গলবার মাত্র ১০৩ রানে তামিম একাদশকে গুটিয়ে দিলেও শুরুটা ভালো করতে পারেনি মাহমুদউল্লাহ একাদশ। মিরপুরে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৪৭ ওভারের ইনিংসে মাত্র ২৩.১ ওভারেই অলআউট হন তামিম ইকবালরা। তবে সন্ধ্যা পর্যন্ত পিচ যেন প্রস্তুত ছিল বোলারদের দুই হাতে ঢেলে দিতে। আর তাই বল হাতে নিয়ে তামিম একাদশের বোলাররাও ঝরাচ্ছিলেন রীতিমত আগুন।

ইনিংসের প্রথম ১৭ বল মোকাবেলা করে কোনো রানই নিতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ একাদশের ব্যাটসম্যানরা। ১৮তম বলে প্রথম রান আসে পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিজে নামা মাহমুদউল্লাহর ব্যাট থেকেই, তার আগে দল হারিয়ে ফেলে নাইম শেখ, লিটন দাস ও ইমরুল কায়েসের উইকেট। লিটন ৮, নাইম ১ ও ইমরুল মাত্র ৩ বল মোকাবেলা করেন। লিটন ও ইমরুলকে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন এবং নাইমকে মুস্তাফিজুর রহমান সাজঘরে ফেরান।

এরপর মাহমুদউল্লাহ ও মুমিনুল দেখেশুনে খেলে যান। তবে মাহমুদউল্লাহর ধীর ইনিংস এদিন আর অর্ধ-শতকের দেখা পায়নি। ৩৯ বলে মাত্র ১০ রান করে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক। মাহমুদউল্লাহ একাদশের মত তামিম একাদশও ক্যাচ হাতছাড়ার অপারদর্শিতা প্রদর্শন করেছে। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে মোমিনুল ও নুরুল হাসান সোহান দলকে জয়ের পথে এগিয়ে নিয়ে যান। ৬টি চার হাঁকানো মোমিনুল ৬২ বলে ৩৯ রান করে বিদায় নিলে সাব্বির রহমানকে সঙ্গে নিয়ে সোহান জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন।

সোহান ৩৮ বলে ৪১ রান করে অপরাজিত থাকেন। আর সাব্বির ১২ বলে ৪ রান করে অপরাজিত থাকেন। সাইফউদ্দিন ও তাইজুল শিকার করেন দুটি করে উইকেট।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে বৃষ্টির বাগড়ায় পড়ে তামিমদের ইনিংস। তার আগেই অবশ্য অধিনায়ক তামিমকে ফিরতে হয় সাজঘরে। বৃষ্টিতে ইনিংসের দৈর্ঘ্য কমে আসে ৪৭ ওভারে। তবে তামিম একাদশ উইকেটে টিকতে পেরেছে মাত্র ২৩.১ ওভার! অর্থাৎ, ইনিংসের অর্ধেক সময়ও ব্যাট ধরে রাখতে পারেননি দলের সদস্যরা।

শুরুতে আঘাত হানেন রুবেল হোসেন। একে একে সাজঘরে ফেরান তামিম ইকবাল (২), তানজিদ হাসান তামিম (২৭) ও মোহাম্মদ মিঠুনকে (০)। বিপর্যয় এড়ানোর চেষ্টায় এনামুল হক বিজয় যখন সাবধানী ভূমিকায়, তখন শাহাদাত হোসেন দিপুকে ((১) ফিরিয়ে উইকেটের মিছিল শুরু করেন পেসার সুমন খান।

দিপুর পর সুমন আউট করেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত (৫) ও বিজয়কেও (২৫)। এরপর মেহেদী হাসানের (১৯) চেষ্টা শুধু রোমাঞ্চই জাগিয়েছে, দলকে এনে দিতে পারেনি সম্মানজনক সংগ্রহ। মেহেদী হাসান মিরাজ ও আমিনুল ইসলাম বিপ্লব দুটি করে উইকেট শিকার করে তামিমদের গুটিয়ে দেন মাত্র ১০৩ রানে।

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!