সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ০৯:৪৮ অপরাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

দুই সন্তানকে কীটনাশক পান করিয়ে মায়ের আত্মহত্যা

image_pdfimage_print

মানিকগঞ্জে দুই সন্তানকে কীটনাশক পান করিয়ে আত্মহত্যা করেছেন এক নারী। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে সাটুরিয়া উপজেলার হরগজ বেপারীপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নারীর নাম রহিমা আক্তার (২৮)। তাঁর দুই সন্তান তাসলিমা আক্তার মেঘলা (৮) ও আকাশ হোসেন (৫)।

দুজনই মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

স্বামী রহিম উদ্দিনের সঙ্গে দাম্পত্য কলহের জের ধরে এই আত্মহত্যা এবং সন্তানদের হত্যাচেষ্টার ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করেছেন রহিমার আত্মীয়স্বজন ও প্রতিবেশীরা।

স্থানীয় লোকজন ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, হরগজ বেপারীপাড়া এলাকার রহিমউদ্দিন রাজমিস্ত্রির (নির্মাণ শ্রমিক) কাজ করেন। এক ছেলে, এক মেয়ে ও স্ত্রী নিয়ে তাঁর সংসার। কিছুদিন ধরে বিভিন্ন সাংসারিক বিষয় নিয়ে রহিমার সঙ্গে তাঁর কলহ শুরু হয়। গত বুধবার রাতেও স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া হয় রহিমের। এই ঝগড়াকে কেন্দ্র করে গতকাল রাত পৌনে ৯টার দিকে কাশির ওষুধের কথা বলে ছেলে ও মেয়েকে কীটনাশক পান করান রহিমা। এরপর তিনি নিজেও তা পান করেন।

ওই সময় পেটে যন্ত্রণা হলে ছেলেমেয়েরা কান্না শুরু করে। স্বজন ও প্রতিবেশীরা এসে তা দেখে সন্তানসহ রহিমাকে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক রহিমাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ছাড়া উন্নত চিকিৎসার জন্য মেঘলা ও আকাশকে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। এর পর রহিমার লাশ বাড়ি নিয়ে আসেন স্বজনরা।

মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক আনিসুর রহমান জানান, ভাই ও বোনের পেট থেকে কীটনাশক বের করা হয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি রেখে তাদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তবে তারা এখনো শঙ্কামুক্ত নয়।

সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুল্লাহ সরকার জানান, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে। এ ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন ওই নারীর স্বামী রহিম।

ওসি আরো বলেন, এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে রহিমার পরিবারের লোকজন এসে লিখিতভাবে অভিযোগ দিলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!