শনিবার, ২৮ মার্চ ২০২০, ০৫:৩১ অপরাহ্ন

নানা নাটকীয়তার পর অবশেষে ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ছেন আ স ম আবদুর রব

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ছাড়তে পারেন আ স ম আবদুর রব এমন গুঞ্জন আগেই চলছিলো। এবার সেই গুঞ্জন সত্যি করে নানা নাটকীয়তার পর ঐক্যফ্রন্ট ত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জোটের শীর্ষ নেতা আ স ম আবদুর রব। এক সময়ের জনপ্রিয় এই নেতার পদত্যাগের বিষয়টি ২৫ নভেম্বর সকালে সাংবাদিকদের কাছে নিশ্চিত করেছেন আ স ম আবদুর রবের স্ত্রী ও জেএসডি সহসভাপতি তানিয়া রব।
সূত্র বলছে, ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে বিএনপির মনোনয়নের দর-কষাকষি নিয়ে আ স ম আবদুর রবের অনেক দিন ধরেই মতবিরোধ চলছিলো। বিশেষ করে রবের লক্ষ্মীপুরের আসনটি নিয়ে বিএনপির সাথে চরম বিরোধ প্রকাশ্যে রূপ নিয়েছে। বিএনপি কিছুতেই ওই আসনটি ছাড়তে রাজি নয়। শুধু তাই নয়, এমন অনেক আসনই রয়েছে যেগুলো ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের ছাড় দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে বিএনপি। এর ফলশ্রুতিতে ঐক্যফ্রন্টের অভ্যন্তরে ফাটল দেখা দিয়েছে বলেও সূত্র নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে, ঐক্যফ্রন্টের নেতা আ স ম আবদুর রবের পছন্দের আসন নিজ জন্মস্থান লক্ষ্মীপুর। কিন্তু লক্ষ্মীপুর-৪ আসনে বিএনপির শক্ত প্রার্থী আশরাফ উদ্দিন নিজান এ আসন নিয়ে কোন ছাড় দেবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। এদিকে দল টিকিয়ে রাখার স্বার্থে বিএনপির পক্ষ থেকেও লক্ষ্মীপুর-৪ আসন ছাড় দেয়া সম্ভব নয় বলে ঐক্যফ্রন্টকে স্পষ্ট জানিয়ে দেয়া হয়েছে। এতে আ স ম আবদুর রব চরম সংক্ষুব্ধ হয়েছেন। এই প্রবীণ নেতা মনে করেন, লক্ষ্মীপুর-৪ আসনে তার মনোনয়নের বিষয়ে বিএনপি আপত্তি তুলে তাকে চরম অপমান করেছেন।

এ প্রসঙ্গে আ স ম আবদুর রবের স্ত্রী তানিয়া রব বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে রবের অবদান সবার জানা। তার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে কখনো মনোনয়ন নিয়ে তাকে এভাবে অপমানের সম্মুখীন হতে হয়নি। বিএনপি লক্ষ্মীপুরের আসন ছাড় দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে তার মতো প্রবীণ নেতাকে চরম অপমান করেছে। তাই আ স ম আবদুর রব সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি আর ঐক্যফ্রন্টে থাকবেন না।

এদিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সূত্রে জানা গেছে, ঐক্যফ্রন্টের শরিক দলগুলো যার যার মতো নিজেদের চাহিদা অনুযায়ী তালিকা তৈরি করেছে, তবে বিএনপি সংশ্লিষ্ট নেতাদের হাতে দেয়ার পর থেকেই লক্ষ্মীপুর আসন নিয়ে জোটের মধ্যে মতবিরোধ সৃষ্টি হয়। এতে ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের মধ্যে একাধিকবার উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়েছে বলেও জানা যায়।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির জ্যেষ্ঠ সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, আসন বণ্টন নিয়ে জোটের অভ্যন্তরে কিছু সমস্যা তৈরি হয়েছে। লক্ষ্মীপুরের আসনটি বিএনপির ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত। এখানে রব সাহেবকে ছাড় দেয়ার কোন সুযোগ বিএনপির নেই। বৃহৎ স্বার্থে বিষয়টিতে রব সাহেব ছাড় দেবেন বলেই আমি বিশ্বাস করি।

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালে জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব লক্ষ্মীপুর-৪ আসনে জয়ী হলেও ১৯৯১, ২০০১ ও ২০০৮ সালের নির্বাচনে বিএনপির কাছে হেরে যান তিনি। এবার ঐক্যফ্রন্টের হয়ে এ আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে লড়তে মরিয়া ছিলেন এই নেতা। কিন্তু তা মানছে না জাতীয় ঐক্যের বৃহৎ শরিক দল বিএনপি।


ওয়ার্ডপ্রেস থিম দিয়ে নিজেই ওয়েবসাইট তৈরি করুন

© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!