রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ০২:৩০ পূর্বাহ্ন

আতঙ্কিত হবেন না
করোনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

নির্বাচনের কাজে অবৈধ যান বৈধ হয়ে যায়

নির্বাচনের কাজে অবৈধ করিমন বৈধ হয়ে যায়

image_pdfimage_print
নির্বাচনের কাজে অবৈধ করিমন বৈধ হয়ে যায়

নির্বাচনের কাজে অবৈধ করিমন বৈধ হয়ে যায়

চাটমোহর প্রতিনিধি : ‘অবৈধ’ যান ভটভটি বা নছিমন ‘বৈধ’ হয়ে যায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে । তার প্রমাণ মিলেছে পাবনার চাটমোহরে। শুক্রবার (৩ জুন) এমন অবৈধ শতাধিক ভটভটি-নছিমনসহ অনুমোদনবিহীন যান সংগ্রহ করে তা দিয়েই উপজেলা নির্বাচন অফিস ও রিটার্নিং অফিস থেকে ব্যালট বাক্স, পেপারসহ প্রিসাইডিং ও পুলিশ অফিসার আনসার সদস্যদের কেন্দ্রে কেন্দ্রে নিয়ে যেতে দেখা যায়।

মোট ৫৭টি কেন্দ্রের প্রতিটিতে দুইটি করে ভটভটি বা নসিমন বরাদ্দ দেয়া হয়। ষষ্ঠ ধাপে আজ শনিবার চাটমোহর উপজেলার বাকি ৬টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

শুক্রবার দুপুর থেকেই কেন্দ্রে কেন্দ্রে ব্যালট বাক্স, ব্যালট পেপারসহ নির্বাচনী সরঞ্জাম রিটার্নিং অফিসারের নিকট বুঝে নিয়ে প্রিজাইডিং অফিসার, পুলিশ আনসার সদস্যরা স্ব-স্ব ভোট কেন্দ্রে নিয়ে যেতে দেখা যায়।

তাদের যাতায়াতের জন্য ক’দিন ধরে সংগ্রহ করা হয়েছে এসব অবৈধ যান। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে একটি ভটভটির কাছে গিয়ে দেখা গেল, সামনের দিকে একটি কাগজ সাঁটা। তাতে লেখা রয়েছে ইউনিয়নের নাম: গুনাইগাছা, কেন্দ্র নং-৫২-২, ভোট কেন্দ্রের নাম: জাবরকোল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ড্রাইভারের নাম: ফিরোজ, মোবা: ০১৭৫২-৭৫১৩০১। এভাবেই কাগজ সাঁটা যানগুলো সরকারী কাজে ব্যবহার করে বৈধ করা হয়েছে।

ওই সময় উপজেলা পরিষদ চত্বরে দাঁড়িয়ে এক প্রিজাইডিং অফিসার নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, নির্বাচন এলে কৌশলে অবৈধ যানকে বৈধতার স্বীকৃতি দিচ্ছে প্রশাসন। ফলে কদর বেড়ে যাচ্ছে এসব যানের। পুলিশ রাস্তা থেকে ওই সব যানবাহন তুলে এনে উপজেলা পরিষদ চত্বরে জমা করে।

জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ভোটকেন্দ্র থেকে মালামাল আনা-নেওয়ার দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তাদের। এটা তারাই ভালো বলতে পারবেন।

সরকারি কাজে এ ধরনের ‘অবৈধ যান’ ব্যবহারের কারণ জানতে চাইলে রিটার্নিং অফিসার কৃষ্ণ মোহন হালদার বলেন, নির্বাচনী সরঞ্জাম ও লোকবল কেন্দ্রে পাঠানো বাবদ নির্বাচন কমিশন থেকে বরাদ্দ দেওয়া হয়, এত অল্প টাকায় অন্য কোনো যানবাহন পাওয়া যায় না। তাই এগুলো ব্যবহার করা হয়।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সাখাওয়াত হোসেন, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা কৃষ্ণ মোহন হালদার এবং উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. মাহাবুবুর রহমান রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করছেন। সম্বনয় করছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেগম শেহেলী লায়লা।

0
1
fb-share-icon1

Best WordPress themes


© All rights reserved 2020 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!