রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ০৫:১৯ পূর্বাহ্ন

পাবনায় অস্ত্রের মহড়া: জব্দ অস্ত্রের লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনার গণপূর্ত অফিসে আওয়ামী লীগ নেতাদের অস্ত্রের মহড়ার ঘটনায় জব্দ করা অস্ত্রের লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৫ জুন) দুপুরে পাবনার পুলিশ সুপার অফিসের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের প্রশ্নে পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান এ কথা জানান।

তিনি বলেন, অন্যদের কথা বলতে পারবো না। তবে এ ঘটনায় পুলিশই একমাত্র যথাযথ দায়িত্ব পালন করেছে।

পুলিশ সুপার আরও বলেন, ঘটনার পরপরই আইনশৃঙ্খখলা কমিটির মাসিক সভায় আমিই বিষয়টি উত্থাপন করি। পরবর্তীতে পাবনা সদর থানার ওসিকে বিষয়টি তদন্ত করে রির্পোট পেশ করতে বলি। তদন্ত করার পর পুলিশই অস্ত্র জব্দের ব্যবস্থা করে। এর পরই প্রয়োজনীয় আইনগত পদক্ষেপ নিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, থানায় জমা অস্ত্র এবং ফুটেজে দেখতে পাওয়া অস্ত্রের মিল নিয়ে সন্দেহ থাকায় বিষয়টি নিয়ে আরও পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়। অনেকে একটি অস্ত্রকে হুজি অস্ত্র মনে করলেও সেটি আসলে শটগান ছিল।

পুলিশ সুপার আরও জানান, লাইসেন্স করা অস্ত্র ব্যবহারে বিভিন্ন শর্ত রয়েছে। পাবনার গণপূর্ত অফিসে অস্ত্র নিয়ে ঢোকার ক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট দুটি শর্ত ভঙ্গ হয়েছে। তাই অস্ত্রের লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেবেন।

পুলিশ জানায়, পাবনা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের বিলুপ্ত কমিটির বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ফারুক হোসেন ও বিলুপ্ত পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ আর খান মামুন ও পাবনা জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য শেখ লালু গত ৬ জুন বেলা ১২টার দিকে সশস্ত্র অবস্থায় পাবনার গণপূর্ত অফিসে ঢুকে মহড়া দেন।

ওইদিন অস্ত্র নিয়েই তারা কার্যালয়ের বিভিন্ন কক্ষে ঢোকেন। সে সময় তাদের সঙ্গীরা বাইরে অপেক্ষায় ছিলেন। ১২টা ১২ মিনিটে তারা ফিরে যান। গত ১২ জুন সিসিটিভি ফুটেজে বিষয়টি ভাইরাল হলে সারা শহরে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

ঘটনার প্রায় এক সপ্তাহ পর সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশের পর ১২ জুন বিষয়টি জানাজানি হলে জেলার সর্বত্র আলোড়ন সৃষ্টি হয়। অজ্ঞাত কারণে গণপূর্ত বিভাগ বিষয়টি ধামা চাপা দেওয়ার চেষ্টা করে বলে বিভিন্ন সূত্র অভিযোগ করে।

পাবনার পুলিশ সুপার জানান, গণপূর্ত বিভাগ বিষয়টি নিয়ে কোনও অভিযোগ করেনি বা জানায়নি। ফেসবুকে সিসিটিভির ফুটেজ দেখে পুলিশ নিজ উদোগে কাজ করছে। বিষয়টি তদন্তাধীন রয়েছে।

পাবনার জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ বলেন, পুলিশের তদন্ত রির্পোট বা অস্ত্রের লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ পত্র হাতে পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

0
1
fb-share-icon1


শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের এমপি প্রিন্স

শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের এমপি প্রিন্স

শৈশব কৈশরের দুরন্ত-দুষ্টু ছেলেটিই আজকের প্রিন্স অফ পাবনা

Posted by News Pabna on Thursday, February 18, 2021

© All rights reserved 2021 ® newspabna.com

 
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
x